ডেস্ক রিপোর্ট : ব্লাড ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে অবশেষে না ফেরার দেশে পাড়ি জমালেন আসামীয়া ছবির তারকা কিশোর দাস। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল মাত্র ৩০ বছর। শনিবার চেন্নাইয়ের একটি হাসপাতালে মারা যান কিশোর দাস।সম্প্রতি মহামারি করোনা ভাইরাসেও আক্রান্ত হয়েছিলেন অভিনেতা কিশোর দাস। তারপরই শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়। শনিবার ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আসামে কিছুদিন চিকিৎসা নেওয়ার পর তাকে নেয়া হয় মুম্বাইয়ের একটি হাসপাতালে। পরে তাকে চেন্নাইয়ে স্থানান্তরিত করা হয়। সেখানেই শনিবার একটি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন এই অভিনেতা।সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক জনপ্রিয় কিশোর। ইনস্টাগ্রামে তার ফলোয়ার সংখ্যা দুই লাখ ছুঁই ছুঁই। প্রিয় তারকার মৃত্যুর খবরে শোকস্তব্ধ শুভাকাঙ্ক্ষিরা। আসামিয়া ইন্ডাস্ট্রিতেও নেমে এসেছে শোকের ছায়া।ইঞ্জিনিয়ারিং নিয়ে পড়াশোনা কিশোরের, তবে অভিনয় ছিল প্রথম ভালোবাসা। কিশোর অল্প বয়সেই আসামিয়া ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে শক্ত অবস্থানে জায়গা করে নেন। ‘বৃন্দাবন’, ‘প্রেম বন্ধকি’, ‘দাদা তুমি দুষ্টু বড়’ সহ একাধিক ছবিতে অভিনয় করেন কিশোর। এছাড়াও তিন শতাধিক মিউজিক ভিডিওতে দেখা গেছে তাকে। টেলিভিশনের পর্দাতেও কাজ করেছেন। তার সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য সিরিয়াল, ‘বিধাতা ও বন্ধু’।