যশোরে রং নাম্বারে পরিচয় ও বিয়ের প্রলোভন দিয়ে যুবতীর সর্বনাশ অতঃপর

প্রকাশিত: ১৬-০৪-২০২১, সময়: ১১:০৪ |
Share This

যশোর ব্যুরো : রং নাম্বারে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে পরিচয়ের সূত্র ধরে ইন্দ্র্রোজিত দাস (২৬) নামে এক লম্পট এক যুবতী (২২) কে দেখা করার এক পর্যায় বিয়ের প্রলোভন দিয়ে জোর পূর্বক ধর্ষন করে। পরে তা মোবাইল ফোনে ভিডিও করে ২০ হাজার টাকা দাবি করে ইন্টার নেট ও ফেসবুক মেসেঞ্জারে ছাড়িয়ে দেওয়ার হুমকী দিয়েছে। এ ঘটনায় লম্পটের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। লম্পট ইন্দ্রোজিত ফরিদপুর জেলার মধুখালী উপজেলার কলাগাছি গ্রামের মনোরঞ্জন দাসের ছেলে। এ ঘটনায় যুবতী বাদি হয়ে বুধবার কোতয়ালি মডেল থানায় ইন্দ্রোজিত বিরুদ্ধে মামলা করেছে।যুবতী মামলায় বলেছেন, রং নাম্বারে উক্ত লম্পটের সাথে তার পরিচয় হয়। পরিচয়ের পর থেকে উক্ত ইন্দ্রোজিত বিয়ের কথা বলতো। বিয়ের জন্য ফুসলানোর এক পর্যায় যুবতীতে তার সাথে দেখা করার কথা বলিতো। লম্পট ইন্দ্রোজিত যুবতীকে জানায়,যশোর শহরের বেজপাড়া নলডাঙ্গা রোডস্থ তার এক বন্ধুর মেস আছে। যুবতীকে সেখানে তার সাথে দেখা করার কথা বলে। যুবতী উক্ত যুবকের সাথে দেখা করতে রাজি হলে বিগত ২০১৯ সালের ৫ ডিসেম্বর বেলা সাড়ে ১১ টায় লম্পট যুবতীকে শহরের বেজপাড়া নলডাঙ্গা রোডস্থ বিধানের বাড়ির মেসে একটি কক্ষের মধ্যে নিয়ে যায়। সেখানে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে ফুসলিয়ে জোর পূর্বক শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলে। ওই সময় আসামী তার মোবাইল ফোনে কিছু নগ্ন ছবি ও বিডিও ধারন করে রাখে। লম্পট যুবককে যুবতী বিয়ের কথা বললে সে বিভিন্ন অজুহাত দেখিয়ে ঘুরাতে থাকে। এক পর্যায় যুবতীর কাছে লম্পট ইন্দ্রোজিত ২০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে। না দিলে তার কাছে থাকা নগ্ন ছবি ইন্টারনেটে ছেড়ে দেওয়ার হুমকী দেয়। টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে উক্ত যুবত ফেইস বুকে ও বিভিন্ন মেসেঞ্জারে খারাপ ছবি ছেড়ে দেয়। বিষয়টি যুবতীর আত্মীয় স্বজন দেখে হতবাক হয়ে পড়ে। যুবতীর পিতা উক্ত যুবককে বাধা নিষেধ করলে উক্ত যুবক গত ১৮ মার্চ সকালে পুনরায় যুবতীর মোবাইল ফোনে ফোন করে মান সম্মান নষ্ট করার হুমকী দেয়।

ফেসবুকে আমরা

সর্বশেষ সংবাদ

উপরে