চালককে হত্যার পর অটো রিকশা ছিনতাই করে একটি চক্র

প্রকাশিত: ৩০-১০-২০২১, সময়: ১২:৫৩ |
Share This

জয়পুরহাট প্রতিনিধি : জয়পুরহাট শহর থেকে ৩০ টাকায় কেনা চাকু দিয়ে গলা কেটে মৃত্যু নিশ্চিত করে। এরপর অটো রিকশার সামনে বসা রুবেল হোসেন এবং অপর অভিযুক্ত রাস্তার ধারে একটি জঙ্গলে ফেলে দিয়ে অটো রিকশাটি নিয়ে পালিয়ে যায়। যাত্রী সেজে অটো রিকশা ছিনতাইকালে এভাবেই জয়পুরহাটের শফিকুল ইসলামকে হত্যা করা হয়েছে মর্মে পুলিশের কাছে স্বীকার৷ স্বীকারোক্তি দিয়েছে গ্রেপ্তার হওয়া দুই ছিনতাইকারী। পুলিশ জানান, (২৪ অক্টোবর) জয়পুরহাটের ক্ষেতলাল উপজেলার বটতলী বাজারে অভিযুক্ত রশিদুল, রুবেল সহ একটি সংঘবদ্ধ দল একত্রিত হয় অটো রিকশা ছিনতাই করার পরিকল্পনা নেয়। পরে তারা জয়পুরহাট শহরের পৃথিবী কমপ্লেক্সের সামনে এসে মঙ্গলবাড়ী যাওয়ার কথা বলে ২০০ টাকা চুক্তিতে জয়পুরহাট সদর উপজেলার চকবরকত ইউনিয়নের নিলু মিয়ার ছেলে শফিকুল ইসলামের (২৮) অটো রিকশাটি রিজার্ভ নিয়ে কালক্ষেপণ করে তারা কিছুটা সময় নওগাঁর ধামইরহাট উপজেলার আলতা দিঘী এলাকায় কাটায়। পরে জয়পুরহাটে আসার সময় অভিযুক্তরা রশি এবং ৩০ টাকা দিয়ে কেনা একটি চাকু দিয়ে শফিকুলকে হত্যা করেন। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় জয়পুরহাট জেলা পুলিশ সুপার মাছুম আহাম্মদ ভুঞা তার কার্যালয়ে স্থানীয় সাংবাদিকদের নিয়ে এক মিট দ্যা প্রেসে জানান, (২৪ অক্টোবর) রাত আনুমানিক ৯টার দিকে এ হত্যাকান্ড ঘটলে পরের দিন সকালে স্থানীয়দের সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়ে দেয়। এরপর থেকেই জেলা গোয়েন্দা পুলিশের সদস্যরা তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে ৪৮ ঘন্টার ব্যবধানে হত্যাকারীদের সনাক্ত করে। পুলিশ সুপার আরো জানান, পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী পেশায় ট্রাক চালক জয়পুরহাটের ক্ষেতলাল উপজেলার তিলাবদুল পূর্ব পাড়া গ্রামের বাসিন্দা শহিদুল ইসলামের ছেলে রশিদুল ইসলাম (৩২) এবং সহকারী একই গ্রামের বাসিন্দা বাবলু মন্ডলের ছেলে রুবেল সহ অন্যান্যরা শফিকুলকে হত্যা করে এবং অটো রিকশায় ব্যবহৃত ৫টি ব্যাটারী বটতলী বাজারের ভাংড়ী ব্যবসায়ী আঙ্গুল ফুলে কলা গাছ বনে যাওয়া জহুরুল ইসলামের কাছে বিক্রি করে দেয়। এ ঘটনায় দুইজনকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হলেও আরো অন্যান্যরা পলাতক রয়েছে বলে জানায় জেলা পুলিশের এই শীর্ষ কর্মকর্তা।
গ্রেপ্তার হওয়া রশিদুল এবং রুবেল হোসেন জয়পুরহাটের পাঁচবিবি, ক্ষেতলাল, দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট, হাকিমপুর, গাইবান্ধার পলাশবাড়ী ও গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় বিভিন্ন সড়কে চুরি, ছিনতাই ও ডাকাতি চক্রের সংঘবদ্ধ সদস্য। তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে।

ফেসবুকে আমরা

সর্বশেষ সংবাদ

উপরে