আশাশুনিতে জলমহালে লুটপাট ও হামলায় আহত-৫

প্রকাশিত: ২৮-০৯-২০২১, সময়: ১১:০০ |
Share This

আশাশুনি প্রতিনিধি : আশাশুনির বাশতলা বিলে ইজারা নেওয়া খেজুরডাঙ্গা জলমহাল জবর দখলের চেষ্টা, মারপিট ও লুটপাটের অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রতিপক্ষের হামলায় ৫ জন আহত হয়েছে। কাটাখালী গ্রামের মৃত. ওসমান গাজীর পুত্র মোক্তার গাজী বাদী হয়ে ১৩ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরও ২০/২৫ জনকে আসামী করে দাখিলকৃত এজাহার সূত্রে জানাগেছে, উপজেলার দরগাহপুর গ্রামের আব্দুল আজিম জলমহালটি ইজারা নিয়ে মৎস্য চাষ করে আসছেন। জলমহালে কয়েক লক্ষ টাকার মাছ রয়েছে। বাদীসহ ৮/১০ জন জলমহালটি তত্ত্বাবধান করে থাকেন। প্রতিপক্ষ জলমহালটি জবর দখলের জন্য দীর্ঘদিন ষড়যন্ত্র করে আসছিলেন। ২৭ সেপ্টেম্বর বেলা ১২ টার দিকে প্রতিপক্ষ চাইনিজ কুড়াল, রাম দা, লোহার রড, শাবল, চাপাতি, ছোরা, বাঁশের লাঠি নিয়ে জলমহালে অনধিকার প্রবেশ করে জবর দখলের চেষ্টা করলে বাদীর ভাই ছবুর গাজী, সাইদ গাজী, বাদীর স্ত্রী মোমেনা খাতুন, সাইদের স্ত্রী মর্জিনা বাধা দিতে গেলে হত্যার উদ্দেশ্যে রাম দা দিয়ে মাথায় আঘাত করলে সবুর হাড়কাটা জখম হয়। সাইদের ডান হাত ও পা জখম হয়, মোমেনার শাস রোধ করে হত্যার চেষ্টা ও মর্জিনাকেও বেআব্রু করা হয়। তাদের শিশু পুত্র সিয়াম (৮) কে মারপিট ও পানিতে ছুড়ে ফেলে দেওয়া হয়। আটন পাটা ভাংচুর করে ২০ হাজার টাকার ক্ষতি তছরুপ ও ২ লক্ষাধিক টাকার মাছ লুট করে নেওয়া হয়। পাশের স্বাক্ষীরা এগিয়ে গেলে বাদী পক্ষকে জীবননাশের হুমকী দিয়ে তারা কেটে পড়ে। গুরুতর আহত সবুর, সাইদ, মোমেনা ও মর্জিনাকে আশাশুনি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। #
ক্যাপশান: আশাশুনির বাশতলায় জলমহালে লুটপাট ও হামলায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহতদের তিন জন।

আশাশুনি উপজেলা কৃষকলীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির মেয়াদ ৩ মাস বৃদ্ধি

আশাশুনি প্রতিনিধি : আশাশুনি উপজেলা কৃষকলীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির মেয়াদ ৩ মাস বৃদ্ধি করা হয়েছে। কেন্দ্রীয় কৃষকলীগের দপ্তর সম্পাদক রেজাউল করিম রেজা স্বাক্ষরিত ২৩ সেপ্টেম্বর’২১ তারিখে এক পত্রে উল্লেখ করা হয়েছে, গত ২৭ ফেব্রুয়ারী’২১ তারিখ বাংলাদেশ কৃষকলীগ আশাশুনি উপজেলা শাখার ৩৫ সদস্য বিশিষ্ট সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি গঠন করা হয়। এবং ১৩ মার্চ অনুষ্ঠিত বর্ধিত সভায় সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক নাজমুল ইসলাম পানু’র উপস্থিতিতে ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন সম্মেলনের প্রস্তুতি গ্রহণের নির্দেশনা দেয়া হয়। আশাশুনি সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির মেয়াদ শেষ হওয়ায় খুলনা বিভাগীয় আঞ্চলিক কমিটির আহবায়ক আল. শরীফ আশরাফ আলী ও সদস্য সচিব অধ্যাপক নাজমুল ইসলাম পানু’র লিখিত সুপারিশের প্রেক্ষিতে আশাশুনি উপজেলার সকল ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন সম্মেলন সমাপ্ত করার লক্ষ্যে বাংলাদেশ কৃষকলীগের গঠনতন্ত্রের ২৪ ধারার ‘ঘ’ উপধারা মোতাবেক বাংলাদেশ কৃষকলীগের সভাপতি কৃষিবিদ সমীর চন্দ ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক কৃষিবিদ বিশ্বনাথ সরকার বিটু’র নিদের্শক্রমে আশাশুনি উপজেলা শাখার সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির মেয়াদ ৩ মাস বৃদ্ধি করা হয় এবং কাউন্সিলের মাধ্যমে ইউনিয়ন কমিটি গঠন ও অনুমোদনের ক্ষমতা প্রদান করা হয়েছে।

আশাশুনি প্রেসক্লাবের নবনির্বাচিত নেতৃবৃন্দকে কৃষকলীগের অভিনন্দন

আশাশুনি প্রতিনিধি : আশাশুনি প্রেসক্লাবের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচনে নবনির্বাচিতদের অভিনন্দন জ্ঞাপন করা হয়েছে। আশাশুনি উপজেলা কৃষকলীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির পক্ষ থেকে এ অভিনন্দন জ্ঞাপন করা হয়। আশাশুনি প্রেসক্লাবের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচনে সভাপতি পদে এস.এম আহসান হাবিব, সাধারণ সম্পাদক পদে এস.কে হাসান, সাংগঠনিক সম্পাদক পদে আকাশ হোসেন সহ নব-নির্বাচিত কর্মকর্তাদেরকে শুভেচ্ছা জ্ঞাপন ও তাদের দায়িত্বকালে সফল ও সুষ্ঠু ভাবে প্রেসক্লাব পরিচালিত হোক সে কামনা করে বিবৃতি দিয়েছেন, আশাশুনি উপজেলা কৃষকলীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির নেতৃবৃন্দ। বিবৃতি দাতারা হলেন ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী ও কৃষকলীগ আহবায়ক এন.এম.বি রাশেদ সরোয়ার শেলী, সদস্য সচিব মতিলাল সরকার, ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী রবিউল ইসলাম রবি, হারুন উর রশিদ, প্রভাষক দীপঙ্কর বাছাড় দীপু, গোলাম কুদ্দুস ময়না, কৃষকলীগের নেতাকর্মী বদরুদ্দোজা সানা, ফজল মাহমুদ তুহিন, আসাদুল ইসলাম ফকির, ফারুক হোসেন সানা, সালাহউদ্দীন, মোস্তাফিজুর রহমান, আবু হাসান, তারিকুল ইসলাম, রবিউল ইসলাম বাদশা, অভিজিত সানা, কনক চন্দ্র সরকার, মুক্তি মাহমুদ, রুহুল কুদ্দুছ, শহিদুল ইসলাম প্রমুখ।

ফেসবুকে আমরা

সর্বশেষ সংবাদ

উপরে