পাইকগাছার ১নং হরিঢালী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের প্রার্থী এগিয়ে

প্রকাশিত: ২৭-০৯-২০২১, সময়: ০৪:০৯ |
Share This

আওরঙ্গজেব কামাল : সারাদেশে শুর হয়েছে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন তারই তারাই ধারাবাহিকতায় আসন্ন ইউপি নির্বাচন ২০২১ইং নিয়ে দেশের প্রতিটি ইউনিয়নে নির্বাচনীয় হাওয়ায় ভাসছে। আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে খুলনা জেলার পাইকগাছা থানার ১নং হরিঢালী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ গ্রহনের কথা জানিয়েছেন উক্ত ইউনিয়নের তারন‍্যের অহংকার, বিশিষ্ট সমাজসেবক,সৎ ও ক্লিন ইমেজের মানুষ, নির্ভেজাল ও সকলের প্রিয় হরিঢালী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের আহবায়ক, নৌকা মার্কার চেয়ারম্যান প্রার্থী শেখ বেনজির আহম্মেদ বাচ্চু । এ বিষয়ে ইউনিয়ন ঘুরে জানাযায় আওয়ামীলীগের নিবেদিত প্রাণ সকলের প্রিয় সমাজসেবক শেখ বেনজির আহম্মেদ বাচ্চু অনেক ভালো মনের মানুষ । তিনি সামাজিক মুল‍্যবোধের জন‍্য অনেক প্রীয়। সন্ত্রাস ও মাদক মুক্ত একজন জনদরদী মানুষ। এ ছাড়া শেখ বেনজির আহম্মেদ বাচ্চু ইউনিয়নে সকলের আস্থাভাজন ব‍্যক্তি হিসেবে সবার মন জয় করেছেন। একান্ত ভাবে স্বাক্ষাতকারে শেখ বেনজির আহম্মেদ বাচ্চু জানিয়েছেন আমি এই ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হলে আমি এই ইউনিয়ন বাংলাদেশ সরকারের ঘোষনায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ক্ষুধা ও দারিদ্র্য মুক্ত ইউনিয়ন হিসাবে বাংলাদেশে উপহার দিতে জীবনের সকল প্রকার অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগাবো ইনশাআল্লাহ। শুধু তাই নয় যে কোন ধরনের সামাজিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহনের মাধ‍্যমে জনগণের সকল প্রকার আশা আঙ্খাংকা কথা বিচার বিশ্লষন করব এবং তা সমাধানের চেষ্টা করব ইনশাআল্লাহ। তরুণ- তরুণীদের খেলাধুলার মাধ‍্যমে সুশীল সমাজ গঠনের জন‍্য এলাকায় মাদকের সেবন ও বিক্রেতাদের স্বমুলে মুলৎপাঠন করে এই ইউনিয়নকে মাদকমুক্ত করবো ইনশাআল্লাহ। আমি এই নির্বাচনে স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশ গ্রহণ করবো ইনশাআল্লাহ। তিনি আরও বলেন ক্ষুধামুক্ত দারিদ্র্য মুক্ত, মাদকমুক্ত, বাল‍্যবিবাহমুক্ত ইউনিয়ন হিসেবে উপহার দেওয়া হবে আমার প্রধান লক্ষ। তিনি বলেন, আমি ১৬বছর বয়স থেকে আমার প্রানের সংগঠন আওয়ামীলীগের সংগঠনের সাথে যুক্ত। আওয়ামী লীগের অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের মাধ্যমে দিনেদিনে ছাত্রলীগ,যুবলীগ, এখন মূল দলের তৃনমূল পর্যায়ে। দুই দশক ধরে হরিঢালী ইউনিয়নের নেতৃত্ব দিয়ে এপর্যন্ত এসেছি। উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য, তারপরে হরিঢালী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও বর্তমানে আহ্বায়ক কমিটির আহ্বায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছি। ২০০৩,২০১১, ২০১৩,২০১৬, ২০২১ এই পাঁচটি নির্বাচন করছি। অনেক অভিজ্ঞতা, অনেক কিছু জানি,শুনি,বুঝি। শেষ বয়সে এসে আবারো নৌকা প্রতীক দিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী মমতাময়ী মা শেখ হাসিনা আমাকে সম্মানিত করেছেন। আমি বিশ্বাস করি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের আদর্শই আমার একমাত্র আশ্রয়স্থল।আমার জীবনের সবথেকে বড়প্রাপ্তি যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সাথে জীবনে ৩বার দেখা হয়েছে, সরাসরি কথা বলার সুযোগ হয়েছে। ভালোবলেন আর খারাপ বলেন, আমি হয়তো কারো দালালী বা চামচামি করতে পারি না, জ্বি হুজুর, জ্বি হুজুর করতে পারিনা বলেই আমার এতো দোষ,এতো সমস্যা। আদর্শগতভাবে আমি রাজনীতি করে আসছি, আগামীতেও করব। ইনশাআল্লাহ । যেসব ব্যক্তিরা আমাকে নিয়ে খারাপ সমালোচনা করেন আমি তাদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই, আমি একমাত্র মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার লোক। আমি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পূর্বে থেকে প্রতিটা মিটিং এ উন্মুক্তভাবে বলেছি, নৌকা প্রতীক যেইপাবে, আমার সর্বস্ব দিয়ে আমি তার পিছনে কাজ করব। আজ যদি নৌকা প্রতীক সরদার গোলাম মোস্তফা পাইতো আমি তার হয়ে কাজ করতাম,আজ যদি নৌকা প্রতীক রাজীব গোলদার পাইতো, আমি তাকে বিজয়ী করানোর জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা করতাম।যদি কোনো বি,এন,পি জামাত ঘেষা লোকও নৌকা পাইতো আমি তার হয়ে কাজ করতাম। শুধুমাত্র শেখ হাসিনার আদেশ বলেই করতাম। কখনো দলের বিরুদ্ধে অবস্থান করিনি মৃত্যুর পূর্ব পর্যন্ত করবোনা। ইনশাআল্লাহ। আমার জীবনে একটাই স্লোগান নৌকা যার আমি তার , ষড়যন্ত্র যে যাই করুক না কেনো,আমি কোনো ষড়যন্ত্রকে ভয় পাইনা।কারন উপরে আল্লাহ ও নিচে শেখ হাসিনা, মাঝখানে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ, আাপামোর জনগনের ভালোবাসা আছে আমার সাথে।আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে ধারন করে বাঁচতে চাই।আমি মনেপ্রাণে বিশ্বাস করি আল্লাহর উপরে কিন্তু কেউ নাই। অতএব ষড়যন্ত্রকে আমি ভয় পাই না। আমি ভয় পাই মহান সৃষ্টিকর্তা আল্লাহ ও নিচে শেখ হাসিনাকে। দলের স্বার্থে যা যা করা লাগবে আমি সেটাই করতে সদা সর্বদা প্রস্তুত। আমি সকলে উদ্দেশ্যে বলতে চায় আল্লাহ তা’য়ালা যদি আমাকে আপনাদের সেবা করার সুযোগ করে দেন, তাহলে একজন নির্বাচিত চেয়ারম্যান ইউনিয়নের জন্য কতটা উউন্নয়ন করতে পারেন, সেটা আমি ইউনিয়ন বাসিকে দেখিয়ে দেবো। অপেক্ষা করুন, ধৈর্য ধরুন, ভালো কিছু হবেই হবে ইনশাআল্লাহ। সকলে আমার জন্য দোয়া ও আশীর্বাদ করবেন আল্লাহ যেনো হরিঢালী ইউনিয়নের গরিব অসহায় ৪০ হাজার জনগণের মনের আশা পূরণ করেন। তিনি আরও বলেন আমি জনগণের টাকা বা ক্ষমতার জন‍্য নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবো না, আমি চাই জনগণের পাশে থেকে তাদের দুঃখ, দুর্দশা লাঘব করে সমাজসেবা করতে। তিনি বলেন এবারের নির্বাচনে জনগণের নিকট আমার একটাই দাবি আপনারা আপনাদের আশে পাশের অন‍্যান‍্য প্রার্থী এবং আমার এযাবৎ কালের জীবনের সব কর্মকাণ্ডকে পর্যালোচনা করে যদি আমাকে যোগ‍্য মনে করেন তাহলে আমার জোরালো দাবি আমাকে নৌকা মার্কায় ভোটদিন উন্নয়ন বুঝেনিন। সকলে ভালো থাকবেন, সুস্থ থাকবেন। জয়বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু জয় হোক হরিঢালী ইউনিয়নের নৌকার মার্কার। আমাকে আপনাদের মুল‍্যবান ভোট, দোয়া,সমর্থন, সহযোগিতা প্রার্থনা করছি।

ফেসবুকে আমরা

সর্বশেষ সংবাদ

উপরে