রাজাপুরে প্রতারক চক্রের সদস্য দুই যুবক গ্রেফতার

প্রকাশিত: ২২-০৯-২০২১, সময়: ১৪:০৮ |
Share This

ঝালকাঠি প্রতিনিধি : ঝালকাঠির রাজাপুরে গুপ্তধন তুলে দেয়ার কথা বলে দেড়লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে প্রতারক দু’যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার দিবাগত রাতে রাজাপুর উপজেলার গালুয়া ইউনিয়নের দুর্গাপুর এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ ঘটনায় প্রতারীত মাসুম বিল্লাহ বাদী হয়ে গ্রেপ্তারকৃত দুই যুবকসহ তিন জনের বিরুদ্ধে রাজাপুর থানায় ২১ সেপ্টেম্বর রাতে একটি প্রতারনা মামলা দায়ের করেছেন।এরা হলো- বাগেরহাট জেলার মোড়েলগঞ্জ উপজেলার খাউলিয়া এলাকার মো. দুলাল খানের ছেলে মো. আরিফ খান জয় (২৩) ও ল²ীপুর জেলার কমল নগর উপজেলার চর জাঙ্গালিয়া এলাকার মো. আজাদের ছেলে মো. তারেক (২৩)।
মামলা সূত্রে জানাগেছে, ফেনী জেলার পূর্ব পরিচিত মো: জুয়েল (২৪) নামের প্রতারক চক্রের এক সদস্য উপজেলার দুর্গাপুরের মো. সাইদুর রহমান আজাদের ছেলে মো. মাসুম বিল­াহর ঘরে গুপ্তধন আছে বলে তথ্য জানায়। আত্মীয়তার সুবাদে প্রতারক জুয়েলের রাজাপুরের মাসুমের বাড়িতে তার যাতায়াত ছিলো। উক্ত গুপ্তধন তুলতে ভারত থেকে তান্ত্রিক সাধক ভাড়া করে আনতে হবে জানিয়ে গত ১৫ এপ্রিল মাসুমের কাছ থেকে এক লাখ টাকা নেয় জুয়েল। দ্বিতীয় দফায় গত ৩ সেপ্টেম্বর তান্ত্রিক নিয়ে আসার বাবদ খরচ হিসাবে জুয়েল বিকাশের মাধ্যমে আরও পাঁচ হাজার টাকা নেয়। এরপর গত ১৭ সেপ্টেম্বর জুয়েল, আরিফ ও তারেক নামে ৩ প্রতারক মাসুমের বাড়িতে আসে। এসময় তারা মাসুমের ঘরের মাটি খুড়ে স্বচ্ছ কাঁচের একটি পেপার ওয়েট দেখিয়ে গুপ্তধন বলে জানায়। এসময় তারা এই গুপ্তধন পরিশোধন করতে সিঁদুর, রক্ত এবং সাপের মাথা কিনতে হবে জানিয়ে আরও চলি­শ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়। এক পর্যায়ে বিষয়টি নিয়ে মাসুমের সন্দেহ হলে ২১ সেপ্টেম্বর বিকালে উক্ত তিন যুবককে আটকে রেখে রাজাপুর থানা পুলিশে খবর দেয়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে প্রতারক চক্রের মূলহোতা জুয়েল ঘটনাস্থল থেকে কৌশলে পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও আরিফ ও তারেক নামে দুই যুবককে পুলিশে সোপর্দ করেন। এঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আরিফ ও তারেককে বুধবার আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।রাজাপুর থানা অফিসার ইনচার্জ মো. শহিদুল ইসলাম বলেন, আজ বুধবার সকালে তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে। পালাতক অপর আসামী জুয়েলকে গ্রেপ্তারের অভিযান অব্যহত রয়েছে

উপরে