আশুলিয়ায় নৌকা যোগে এসে অস্ত্র ঠেকিয়ে মুদি দোকানসহ ১৯ টি স্বর্ণের দেকানে ডাকাতি

প্রকাশিত: ০৭-০৯-২০২১, সময়: ০২:৫৭ |
Share This

বিনয় কৃষ্ণ মন্ডল,আশুলিয়াঃ সাভার উপজেলার আশুলিয়ার নয়ারহাট বাজারে নৌকা যোগে এসে গভীর রাতে অস্ত্র ঠেকিয়ে ১৯ টি স্বর্ণের দেকানে লুট করেছে ডাকাতরা। এতে প্রায় কোটি টাকার স্বর্ণলঙ্কার লুট করে নিয়ে যায় তারা। রোববার দিবাগত গভীর রাতে আশুলিয়ার নয়ারহাট এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।
ডাকাতি হওয়া দোকানগুলো হলো-ভূমি জুয়েলার্স এন্ড ওয়ার্কশপ, আরিফা গোল্ড পালিশ হাউজ, জবা জুয়েলার্স, অন্তু জুয়েলার্স, সৌরভ জুয়েলার্স, সাথী জুয়েলার্স, যমুনা জুয়েলার্স, মতি জুয়েলারী ওয়ার্কসপ, পার্থ জুয়েলারী ওয়ার্কসপ, তুহিন জুয়েলারী ওয়ার্কসপ, শুস্মীতা জুয়েলার্স, মাহফুজা জুয়েলারী ওয়ার্কসপ, দীলিপ স্বর্ণাললয়, মনিকা জুয়েলার্স, জবা জুয়েলার্স ও আরও কয়েকটি স্বর্ণের দোকানসহ একটি মুদি দোকান রয়েছে৷ স্বর্ণের দোকানদাররা জানান, রাতে তাদের কাছে বাজার থেকে ফোনে বলা হয় বাজারে ডাকাত পরেছে৷ অল্প কিছুখনের ভেতর ডাকাতরা লুট করে নিয়ে যায়। আমরা এসে দেখি আমাদের দোকানের সাটার খোলা ভোল্ট বাইরে রাখা। আর দোকানের ভেতরে সব কিছু উল্টো পাল্টা করা৷ এমন ১৯ টি দোকানে এঘটনা ঘটেছে৷ সব মিলিয়ে ডাকাতরা কোটি টাকার মালামাল লুট করে নিয়েছে। কয়েকজন আহতও হয়েছে৷
তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে৷ বাজারের দোকানদারদের অভিযোগ বাজার কমিটির গাফলতির ও নিরাপত্তার কারণে এমন ঘটনা ঘটেছে৷ দীলিপ জুয়েলার্সের মালিক দীলিপ চন্দ্র দাশ বলেন প্রায় ১০ বছর যাৎ নয়ারহাট বাজারের স্বর্ণের ব্যবসা করে আসচ্ছেন। তার দোকানেও গত রাতে ডাকাতি হয়েছে। আমি রাত ৪টার দিকে আমার পাশের দোকান থেকে ফোন পাই৷ তখন শুনি বাজারে অনেক মানুষ। সবার হাতে দেশিয় অস্ত্র, পিস্তল, লাঠি ও শাবল নিয়ে তারা ঘুরাঘুরি করছে। এরপরে শুনি আমার দোকানসহ আরও কয়েকটা দোকানের তালা ভেঙে সব কিছু নিয়ে যায় ডাকাতরা৷
আরেক স্বর্ণের দোকানদার জীবন ঘোষ বলেন, নৌকা করে তারা এসেছে। আধাঘন্টা কি চল্লিশ মিনিটের ভেতর তারা সব লুট করে নিয়ে যায়। বাজারের পশ্চিম পাশে নদীতে নৌকা রাখে বলে জানতে পরেছি আমরা। নিরাপত্তার দ্বায়িত্বে থাকা বাবুল বলেন, রাত ১ টার দিকে ডাকাতরা সেলো মেশিনের নৌকা দিয়ে আসে প্রায় ১০০ জনের উপরে হবে। আমাকে মারধর করে বেধে রাখে। এরপর তারা প্রায় দুই ঘন্টা ছিলো৷ তারা সব স্বর্ণের দোকানে ডাকাতি করে৷ আমাদের চারজন সিকিউরিটিকে মারধর করে। সবাইকে বেধে রাখে৷ নয়ারহাট জুয়েলারী মালিক সমিতির কমিটির সভাপতি আশেতুস স্বর্ণকার বলেন, গত ১০০ বছরেও এমন নজিরবিহীন ঘটনা ঘটেনি নয়ারহাট বাজারে।
আমাদের অনেক কারিগর আহত হয়েছে যাদের আটক করে রাখা হয়েছিলো। বাজারের কমিটি রয়েছে ব্যবসায়ীরা রয়েছে তাদের সাথে কথা বলে আইনানুগ ব্যবস্থায় আগাবো। আশুলিয়া থানার পরিদর্শক (অপারেশন) আব্দুর রাশিদ ও উপপরিদর্শক (এসআই) হারুন অর রশিদ জানান, গভীর রাতে একদল ডাকাত বংশী নদীতে নৌকাযোগে নয়ারহাট এলাকায় আসে। এরপর তারা নদী তীরবর্তী এলাকার প্রায় ১৮-১৯টি স্বর্ণের দোকানে হানা দেয়। এসময় অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ও বেঁধে দোকানে থাকা স্বর্ণালংকার লুট করে নিয়ে যায়।ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেছেন ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মারুফ সরদার ও সাভার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মাজাহারুল ইসলাম। ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মারুফ সরদার বলেন, আনুমানিক রাত ১ টার দিকে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। আমরা সকালে খবর পেয়ে ঘটনা স্থলে আসি। আমরা তদন্ত করছি। এ ঘটনার সাথে যারা জড়িত তাদের কে আইনের আওতায় আনাহবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

ফেসবুকে আমরা

সর্বশেষ সংবাদ

উপরে