অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক এর পদক্ষেপে শিক্ষার্থীরা ফেরৎ পেলো এ্যাসাইন্টমেন্ট এর অর্থ !

প্রকাশিত: ২৩-০৮-২০২১, সময়: ১৬:১৮ |
Share This

স্টাফ রিপোর্টারঃ , মুঃ জিল্লুর রহমান জুয়েল, (পটুয়াখালী) : পটুয়াখালীর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক শিক্ষা ও (আইসিটি) মোসাঃ ইসরাত জাহান এর পদক্ষেপে দশমিনা উপজেলার চাদঁপুরা এবিসি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ২০২০/২১ সালের এসএসসি শিক্ষার্থীদে মাঝেঁ বিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষ অর্থ ফেরৎ দেয়া হয়েছে। উল্লেখ্য ২০২১-২০২১ইং শিক্ষা বছরের শিক্ষার্থীদের কাছে থেকে জানা যায়সরকারী আইনকে বৃদ্ধা আঙ্গুল দেখিয়ে চলমান করোনার মাহামারীর সময়ে চাদঁপুরা এবিসি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষ , কম্পিউটার কম্পোজ, অফিস খরচ এবং শিক্ষকদের বেতন সহ বিভিন্ন অজুহাত দেখিয়ে প্রতি সাবজেক্টে ৪’শত টাকা আদায় করেছিলো। যা বর্তমান করোনাকালীন সময়ে অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের প্রতি অতিরিক্ত জুলুম এবং অবিচার করা হচ্ছে বলে অভিভাবক বৃন্দরা জানান জানান। খবরটি বিভিন্ন গনমাধ্যের নজরে আসলে তা প্রতিবেদন আকারে বেশকিছু জাতীয় পত্রিকা ও অনলাইন নিউজ পোর্টালে প্রকাশিত হলে, বিষয়টি পটুয়াখালী জেলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক শিক্ষা ও আইসিটি) ইসরাত জাহান এর নজরে আসলে নড়েচড়ে বসে চাদঁপুরা এবিসি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষ। ইসরাত জাহান গণকন্ঠ কে বলেন, এমনিতেই করোনাকালীন সময়ে শিক্ষা ব্যাবস্থার সঠিক মান ধরে রাখার জন্য সরকার আন্তরিক ভাবে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। তার উপর এবিসি মাধ্যমিক বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের ঘাড়েচাপানো অর্থ আদায় অভিভাবকদের নানা দূশ্চিন্তায় ফেলে দেয়ায় অত্যান্ত দুঃখজনক । এ বিষয়ে চাদঁপুরা এবিসি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষকে কঠিন হুশিয়ার এবং সতর্ক সহ অর্থ আদায় গুলো শিক্ষার্থীদের মাঝেঁ ফিরিয়ে দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এছাড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কোন অনিয়ম ও দূর্নীতি সয্য করা হবেনা বলে তিনি কঠিন হুশিয়ার করেন। এরেই পরিপ্রেক্ষিতে গত ১৭ এবং ১৮ আগষ্ট তারিখে চাঁদপুরা এবিসি মাধ্যমিক বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ইসরাত জাহান এর নির্দেশে অবৈধ ভাবে নেয়া অর্থ ফিরিয়ে দিয়েছেন বলে ২১ আগষ্ট শনিবার মুঠোফোনে অভিভাবকরা জানিয়েছেন। এদিকে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ইসরাত জাহান এর পদক্ষেপ গ্রহনে সাধুবাদ জানিয়েছেন বিভিন্ন অভিভাবক সুশীল সমাজ।

ফেসবুকে আমরা

সর্বশেষ সংবাদ

উপরে