নাসিরনগরে শোক দিবসে বঙ্গবন্ধুর ছবি সংবলিত ব্যানার, ফেস্টুন ছিঁড়ে ফেলেছ দুর্বৃত্তরা।

প্রকাশিত: ১৬-০৮-২০২১, সময়: ১৫:৫৪ |
Share This

নাসিরনগর প্রতিনিধি : ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস। এ উপলক্ষে বাংলাদেশ কৃষকলীগের কেন্দ্রীয় অর্থ বিষযক সম্পাদক আলহাজ্ব মোঃ নাজির মিয়ার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও মাননীয় প্রধান মন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ছবি সংযুক্ত টাঙানো ব্যানার ও ফেস্টুন রাতের অন্ধকারে ছিঁড়ে ফেলেছে দুর্বৃত্তরা। ঘটনাটি ঘটেছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলার গোকর্ণ সহ বিভিন্ন এলাকায়। গভীর রাতে উপজেলার বিভিন্নস্থানে । আলহাজ্ব নাহির মিয়া জানান,একটি কু চক্রী মহলের ইন্ধনে আমার টাঙানো এ সমস্ত ব্যানার ছিঁড়ে ফেলা হয়েছে। তিনি বলেন ব্যানারে বাঙ্গালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের,মাননীয় প্রধান মন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ছবি ও আমার ছবি কেটে ছিঁড়ে ফেলেছে দুর্বৃত্তরা এই ন্যক্কারজনক ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন নাজির মিয়া সহ নাসিরনগর উপজেলার কৃষক লীগের আাহবায়ক ও নাসিরনগর সদর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান শেখ মোঃ আব্দুল আহাদ।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে নাসিরনগর উপজেলা সদর থেকে কুন্ডা, ধরন্তীর কাছাকাছি পর্যন্ত ব্যানার, ফেষ্টুন ছাড়াও তোরণ নির্মাণ করেছেন আলহাজ্ব নাজির মিয়া। সাম্প্রতিক নাসিরনগরে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে বৈশ্বিক করোনা মহামারিকালীন দুর্যোগে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের হতদরিদ্র মানুষের পাশে থেকে নানাভাবে সাহায্য সহযোগীতা ও করেন আলহাজ্ব নাজির মিয়া। তাছাড়ও রাজনৈতিক নানা কর্মসূচীর মাধ্যমে এলাকাবাসীর নজর কারেন। নাজির মিয়া জানান তার জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে একটি মহল আমার ব্যানার, ফেষ্টুন ও তোরণ নষ্ট করেছে। শোকদিবসে বঙ্গবন্ধুর ছবিসহ ব্যানার খুলে সরিয়ে ফেলা হয়েছে অনেক জায়গায় থেকেও। কোথাও কোথাও ব্যানার ও তোরণের নানা অংশ ক্ষতিগ্রস্থ করেছে। এর মধ্যে গোকর্ন নতুন বাজারের শেষ অংশের ব্যানার ছিঁড়ে ফেলার প্রমানও রয়েছে তার হাতে।এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় কৃষক লীগ নেতা আলহাজ্ব মোঃ নাজির মিয়ার সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, ঘটনাটি দুঃখজনক। এখনো সেই সব জঘন্য মানসিকতার ব্যক্তিরা আমাদের সমাজে আছে ভাবতেই অবাক লাগে। কীভাবে এমন নোংরা কাজ করতে পারে তারা, যারা বঙ্গবন্ধুকে ভালোবাসে তারা এমন ঘৃণ্য কাজ করতেই পারে না। তিনি বলেন ঘটনাটি জানার পরে আমি নাসিরনগর উপজেলা কৃষকলীগ নেতা নূর আলম সহ চার সদস্য বিশিষ্ট একটি প্রতিনিধি টিম সেখানে পাঠিয়েছি। আগামী ২০ আগষ্ট নাসিরনগর উপজেলা সদরে কৃষক লীগের উদ্যোগে আয়োজিত “শোক সভা ও দোয়া মাহফিল” অনুষ্ঠিত হবে। সেই সভায় এ বিষয়ে নেতা-কর্মীদের সাথে পরামর্শেক্রমে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান নাজির মিয়া।

ফেসবুকে আমরা

সর্বশেষ সংবাদ

উপরে