জামালপুরের শত বছরের স্বপ্নপূরণ হচ্ছে মাদারগঞ্জ-সারিয়াকান্দি ফেরী চলাচল শুরু

প্রকাশিত: ৩১-০৫-২০২১, সময়: ১২:১৭ |
Share This

কামরুজ্জামান কানু : জামালপুরের শত বছরের স্বপ্ন পূরণ করতে অবশেষে মাদারগঞ্জ – বগুরার সারিয়াকান্দি নৌপথে ফেরী চলাচল শুরু হতে যাচ্ছে। এ পথ চালু করতে একটি উচ্চ পর্যায়ের সরকারি দল নদী পথ পরিদর্শন করে সম্ভবতা যাচাই-বাছাই করছেন। আসছে বর্ষা মৌসুমে এই পথে ফেরি চালু হবে বলে একটি সূত্র জানিয়েছে। প্রাথমিক ভাবে এই নৌপথে বিআইডাব্লিউটিএর কয়েকটি সীট্রাক চলাচল করবে। তা দিয়ে যাত্রী, মালামাল ও হালকা যানবাহন পারাপার করতে পারবে। এই ফেরি চলাচলে উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও মাদারগঞ্জ-মেলানদহ আসনের সংসদ মির্জা আজম এমপি।ফেরি চালুর জন্য ফেরিঘাট নির্মাণ, সড়ক যোগাযোগ স্থাপন, নাব্যতা ফেরাতে নদী খননসহ নদী সংস্কার ও উন্নয়নকাজে প্রকল্প গ্রহণের প্রাক-সম্ভাব্যতা যাচাইয়ে একটি কারিগরি বিশেষজ্ঞ দল বুধবার সারিয়াকান্দি ও মাদারগঞ্জ এলাকা পরিদর্শন করেছে। জাতীয় গবেষণা প্রতিষ্ঠান ইন্সটিটিউট অব ওয়াটার মডেলিংয়ের (আইডব্লিউএম) দুই সদস্যের প্রতিনিধিদল ফেরি চালুর সামাজিক ও অর্থনৈতিক সম্ভাব্যতা যাচাই করছেন।প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে ছিলেন আইডব্লিউএমের পরামর্শক মো. মহিউদ্দীন পাটোয়ারি। তিনি বলেন, রাজধানী ঢাকার সঙ্গে উত্তরবঙ্গের সড়ক যোগাযোগে দূরত্ব কমাতে বৃহত্তর ময়মনসিংহ হয়ে যমুনায় ফেরি সার্ভিস চালুর দীর্ঘদিন ধরে পরিকল্পনা চলছে। প্রথমে বাহাদুরাবাদ-গাইবান্ধার বালাসি নৌপথে ফেরি চালুর পরিকল্পনা ছিল সরকারের। পরে সেই পরিকল্পনা আর এগোয়নি। এখন নতুন করে মাদারগঞ্জ-বগুরার সারিয়াকান্দি ১৬ কিলোমিটার নৌপথে ফেরি চালুর পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। এই পথ চালু হলে রাজধানী ঢাকার সঙ্গে বগুড়ার সড়ক পথে ৮০ কিলোমিটার দূরত্ব কমবে। সময় বাঁচবে কয়েক ঘণ্টা।

জামালপুরের মেলান্দহে অবৈধভাবে ব্রীজের গার্ডার সংলগ্ন থেকে বালু উত্তলন চক্রের একজনকে জরিমানা

কামরুজ্জামান কানু : জামালপুরের মেলান্দহে দির্ঘ দিন থেক অবৈধভাবে বঙ্গোবন্ধু ব্রীজের গার্ডার সংলগ্ন থেকে অবৈধ ভাবে বালু খেকো বালু উত্তোলনের দায়ে চক্রের আবু বক্কর নামের একজন বালু ব্যবসায়ীকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে মেলান্দহের সহকারী কমিশনার (ভুমি) মো: সিরাজুল ইসলাম। কিছু দিন আগে রমজানে ঐ অবৈদ্ধ বালু উত্তলনের সময় বালু মহল থেকে চারটি মাহিন্দ্র ট্রাক্টর ধরেনিয়ে আসে প্রশাসন জরিমানা দিয়ে তা ছাড়িয়ে নেয়। বালু উত্তোলনের একটি চক্র রয়েছে ওখানে। ২৯ মে দুপুরে মেলান্দহ উপজেলার ১-নং দুরমুঠ ইউনিয়নের বীরহাতিজা বঙ্গোবন্ধু ব্রীজের নিচে একটি চক্র দির্ঘ দিন থেকে বালু উত্তোলন করে আসছে বেকো দিয়ে বালু উত্ততোলন করায় এ ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।এতে নতুন ব্রীজের গার্ডার নরমাল হয়ে যেকোন সময় বন্যায় ব্রীজের খতি হতে পারে। সহকারী কমিশনার (ভুমি) মো: সিরাজুল ইসলাম জানান, বালু মহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইন ২০১০ অনুযায়ী জরিমানা আদায় করা হয়েছে। জনস্বার্থে বালু উত্তলনের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান।

ফেসবুকে আমরা

সর্বশেষ সংবাদ

উপরে