সুন্দরগঞ্জে আনন্দ গ্রুপের ঈদ উপহার প্রদান

প্রকাশিত: ০৮-০৫-২০২১, সময়: ১৭:৩১ |
Share This

আবু বক্কর সিদ্দিক, সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি:গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার ৫ হাজার পরিবারের জন্য ঈদ উপহার প্রদান করেছে ঢাকাস্থ আনন্দ গ্রুপ।
শনিবার সকালে উপজেলার উত্তর সাহাবাজ গ্রামের মহরহুম মঞ্জুরুল ইসলাম লিটনের বাসভবনে উপজেলার ১৫টি ইউনিয়ন ও পৌরসভা আ’লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের হাতে সংশ্লিষ্ট পর্যায়ে পৌঁছে দেয়ার জন্য ঈদ উপহার প্রদান করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ আল-মারুফ। আনন্দ গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও উপজেলা আ’লীগের ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক আফরুজা বারীর পক্ষে এসব ঈদ উপহার ছাড়াও ৮ জন প্রতিবন্ধীর মাঝে হুইল চেয়ার বিতরণ করা হয়। এসময় ছিলেন উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোহাম্মদ ওয়ালিফ মন্ডল, থানা অফিসার ইনচার্জ আব্দুল্লাহিল জামান, উপজেলা আ’লীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক আহসান আজিজ সরদার মিন্টু, রেজাউল আলম রেজা, হাফিজা বেগম কাকলী, স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক আব্দুল্লাহ আল মেহেদী রাসেলসহ সকল ইউনিয়ন ও পৌর আ’লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকগণ ছাড়াও বিভিন্ন সহযোগী অঙ্গ-সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।
উল্লেখ্য, করোনা পরিস্থিতির কারণে ঢাকাস্থ আনন্দ গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও উপজেলা আ’লীগের ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক আফরুজা বারী উপস্থিত হতে না পারলেও আনন্দ গ্রুপের কর্মকতা-কর্মচারীগণের মাধ্যমে উপজেলার প্রত্যেক ইউনিয়ন ও পৌরসভার জন্য প্রতিবারের ন্যায় এবারেও ঈদ উপহার প্রদান করা হয়েছে। উপহার সামগ্রীর মধ্যে ছিল- শাড়ি, লুঙ্গি, হুইল চেয়ার প্রভৃতি।

সুন্দরগঞ্জে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে গৃহবধূর মৃত্যু নিয়ে গুঞ্জন

আবু বক্কর সিদ্দিক, সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি: গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার দহবন্দ ইউনিয়নের উত্তর ধুমাইটারী গ্রামে খাদিজা বেগম (২৬) নামে ২ সন্তানের জননীর বিদ্যুৎস্পৃষ্টে মৃত্যুর ঘটনা নিয়ে গুঞ্জন চলছে।
জানা যায়, শনিবার বিকেলে ময়না তদন্ত শেষে স্বজনদের নিকট খাদিজা বেগমের মৃতদেহ হস্তান্তর করেছে প্রশাসন। এরআগে শুক্রবার বিকেলে স্বামীগৃহে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে আহত হয়েছে মর্মে স্বামীর পরিবার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক খাদিজাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় খাদিজার পিতা আঃ খালেক অভিযোগ করেন তার মেয়েকে মারপিট করে হত্যার পর বৈদ্যুতিক শক দিয়ে খাদিজার বিদ্যুৎস্পষ্টে মৃত্যু হয়েছে বলে চালানোর অপচেষ্টা চালায়। বিয়ের পর থেকে যৌতুকের দাবিতে প্রতিনিয়তই খাদিজার উপর নির্যাতন চালাত স্বামী ও তার পরিবারের লোকজন।
থানা অফিসার ইনচার্জ আব্দুল্লাহিল জামান জানান, এ ব্যাপারে একটি ইউডি মামলা হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে খাদিজার মরদেহ স্বাজনদের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে।

উপরে