স্পিডবোটের সংঘর্ষের ঘটনায় নিহতদের সবারই মাথায় আঘাত ছিল

প্রকাশিত: ০৩-০৫-২০২১, সময়: ১৮:২৮ |
Share This

মাদারীপুর প্রতিনিধি : বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌপথে শিবচর উপজেলার কাঁঠালবাড়ি ঘাটের অদূরে নোঙর করে রাখা একটি বাল্কহেডের সঙ্গে স্পিডবোটের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে এ পর্যন্ত ২৬ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। নিহতদের সবার মাথায় আঘাতের চিহ্ন ছিল। পদ্মা নদীতে সোমবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে এ দুর্ঘটনার খবর পেয়ে নৌপুলিশ, কোস্টগার্ড ও ফায়ার সার্ভিস অভিযানে নামে। তারা যৌথভাবে অভিযান চালিয়ে এ পর্যন্ত ২৬ জনের লাশ উদ্ধার করেছে। জীবিত ৫ জনকে উদ্ধার করে শিবচর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।শিবচরের কাঁঠালবাড়ি ঘাটসংলগ্ন পদ্মায় স্পিডবোট দুর্ঘটনায় নিহতদের প্রায় সবাই মাথায় আঘাত পেয়েছেন বলে জানিয়েছেন সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করা চিকিৎসক শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শশাঙ্ক চন্দ্র ঘোষ।তিনি বলেন, সাধারণত স্পিডবোট দুর্ঘটনায় এত লোক মারা যায় না। বেপরোয়া বোটটি দ্রুতগতিতে বাল্কহেডের গায়ে ধাক্কা লাগলে স্পিডবোটটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়। এতে যাত্রীরা সজোরে মাথার সামনের অংশে প্রচণ্ড আঘাত পেয়ে অজ্ঞান হয়ে পানিতে পড়ে যান। ফলে বেশি লোক মারা যায়। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে সকালেই ঘটনাস্থলে ছুটে যান মাদারীপুর জেলা প্রশাসক ড. রহিমা খাতুন, শিবচর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আসাদুজ্জামান, শিবচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মিরাজুল হোসেনসহ জেলা উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাসহ আওয়ামী লীগের নেতারা।এ দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে মাদারীপুরের স্থানীয় সরকারের উপ-পরিচালক মো. আজহারুল ইসলামকে প্রধান করে ৬ সদস্যের একটি এবং নৌ মন্ত্রণালয়ের ৩ জনের একটিসহ দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ৩ কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
মাদারীপুর জেলা প্রশাসক ড. রহিমা খাতুন বলেন, এ পর্যন্ত দুর্ঘটনায় নিহত ২৬ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। বেশ কয়েকজনকে আহতাবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ফেসবুকে আমরা

সর্বশেষ সংবাদ

উপরে