ভান্ডারিয়া প্রতিনিধি : সব যল্পনা কল্পনা শেষে সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী ২৫জুন উদ্ভোধন হতে যাচ্ছে বাঙালীর স্বপ্নের পদ্মা সেতু। জনশ্রুতি রয়েছে মহা বিশ্ব মানচিত্রে এ্যামাজন নদীতে প্রথম বড় সেতুর পর বাংলাদেশের পদ্মা নদীর উপর এটি দ্বিতীয় বড় সেতু নির্মান হয়েছে। যা আর মাত্র তিন দিন পর আনুষ্ঠানিক উদ্ধোধন করবেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জেষ্ঠ্য তনয়া চার বারের প্রধান মন্ত্রী জন নেত্রী শেখ হাসিনা। এদিকে পদ্মা সেতু উদ্ধোধনকে ঘিরে সর্বত্র বিরাজ করছে আনন্দঘণ পরিবেশ। যার কমতি নেই পিরোজপুরের ঐতিহ্যবাহী ভান্ডারিয়ায়ও। নৌ পথে ঐদিন লঞ্চ সংককটের কারনে এ উপজেলা থেকে ৬টি লঞ্চ ২৪তারিখ বিকাল ৪টায় উৎসুক জনতা নিয়ে ঘাট ছাড়বে বলে জানাগেছে সংশ্লিষ্ট আয়োজক বৃন্দের কাছ থেকে।
খোঁজ নিয়ে জানাগেছে,এই ভান্ডারিয়া গর্বিত সন্তান উপ-মহাদেশের প্রখ্যাত সাংবাদিক এবং জাতিসংঘ স্বীকৃতি প্রাপ্ত বিশ্বের সাহসী সাংবাদিক তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়ার কণিষ্ঠ্য পুত্র এবং দাদী হাজেরা বেগমের আদরের নাতী “আনার” তৎকালীন সফল যোগাযোগ মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু’র সুপরিকল্পনায় ২০০১সালে ৪জুলাই এই সেতুর নির্মান কাজের ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন করেন দেশের চার চার বারের প্রধান মন্ত্রী জন নেত্রী শেখ হাসিনা। অন্যদিকে এই সেতু নির্মানে নানা ধরণের দেশি বিদেশী ষড়যন্ত্রের জালে আটকে সেতুটি নির্মান কাজের প্রক্রিয়া কয়েক দফা বাঁধার সম্মুখিণ হয়ে পড়ে। তবে তা ধোপে টিকেনি। সকল চড়াউ উৎরাই পার করে ফুল ফুটুক আর না ফুটুক ২৫জুন উদ্ধোধন হতে যাচ্ছে বীর বাঙালীর স্বপ্নের পদ্মা সেতু।
যেহেতু এই সেতুর পরিকল্পনাকারী ঐতিহ্যবাহী এই ভান্ডারিয়ার সন্তান এবং জাতির পিতা খ্যাত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্নেহাষ্পদ বাংলাদেশ সংসদের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের দ্বায়িত্বপ্রাপ্ত সফল মন্ত্রী আনোয়ার মঞ্জু এমপির জন্মস্থান সেহেতু এই ভান্ডারিয়ার মাণুষের উৎসাহ উদ্দিপনা একটু বেশি ই। এতো মধ্যে ৬টি লঞ্চ ঘাট ছাড়ার পূর্বেই নানা ধরনের শ্লোগান সমৃদ্ধ বাহারী সাজে সুসজ্জ্বিত করার জন্য প্রিংন্টি প্রেস গুলোতে দিন রাত চলছে ব্যানার ফ্যাস্টুন তৈরীর কাজ। ১৪দলীয় জোটের শরিকদল জাতীয় পার্টি-জেপির স্থানীয় নের্তৃবৃন্দ ঐদিন উদ্ধোধনকে সার্থক ও সফল করতে দফায় দফায় সভা করছে। যাতে যারা নৌ এবং সড়ক পথে সেতুর উদ্ধোধন সভাস্থলে নির্বিঘেœ পৌঁছাতে পারে সে জন্য নেতা-কর্মীদের মধ্যে একটি প্রাণচাঞ্চল্যকর পরিবেশ বিরাজ করছে। পিছিয়ে নেই আওয়ামী লীগের স্থানীয় নের্তৃবৃন্দর সভা। এমনটি জানিয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফাইজুর রশিদ খশরু জোমাদ্দার এবং জাতীয় পার্টি-জেপির সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক এবং সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মাহিবুল হোসেন মাহিম। এই ভান্ডারিয়া উপজেলার তেলিখালীর সন্তান পিরোজপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এবং পিরোজপুর জেলা পরিষদের প্রসাশক মহিউদ্দিন মহারাজ সম্প্রতি বরিশাল বিভাগীয় একটি সভায় বলেছেন সেতু উদ্ভোধনী সভা সার্থক করতে সকলের ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্ঠায় আমরা পিরোজপুর জেলা বিশেষত ভান্ডারিয়া উপজেলার মানুষ যাতে নির্ভিঘ্নে সভাস্থলে পৌঁছাতে পারে এবং সভা শেষে ফিরে আসতে পারে সে বিষয়ে আমাদের মুরুব্বি স্থানীয় সাংসদ জাতীয় পার্টি-জেপির চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন মঞ্জু এমপির সাথে পরামর্শ করেই সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহন করব।