মোঃ শাহাদত হোসেন ;কাউনিয়া রংপুর : সারাদেশব্যাপী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগকে তৃণমূলে আরও শক্তিশালী করার জন্য সারা দেশব‍্যাপী চলছে ত্রি -বার্ষিক কাউন্সিল। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ২নং হারাগাছ ইউনিয়ন শাখার সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থিতা ঘোষণা করেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ হারাগাছ ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের সভাপতি মোঃ মেনাজ উদ্দিন।মোঃ মেনাজ উদ্দিন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সাবেক যুবলীগ নেতা বর্তমান আওয়ামী লীগের ৬ নং ওয়ার্ডের সভাপতি, মোঃ মেনাজ উদ্দিন একজন সৎ উদীয়মান তরুণ সমাজসেবক হিসেবে যথেষ্ট খ্যাতি অর্জন করেছেন। তিনি মহামারী করোনা কালীন সময়ে বাংলাদেশ সরকারের পাশাপাশি নিজস্ব তহবিল থেকে গরীব ও দুস্থ মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী থেকে শুরু করে বিনামূল্যে হ্যান্ড স্যানিটাইজার সহ মাস্ক এবং বিভিন্ন ধরনের সাহায্য সহযোগিতা করে ব‍্যাপক আলোচিত একজন নেতা হিসেবে পরিচিতি অর্জন করেন। উক্ত ইউনিয়নে তিনি একদিকে যেমন সমাজসেবক অন্যদিকে তেমনি রাজনৈতিক দূরদর্শী কর্মী। বিগত সময়ে আওয়ামী লীগের দায়িত্বপ্রাপ্ত যেসব নেতা-কর্মী ছিল তাদের সবচেয়ে পছন্দ এবং নির্ভরযোগ্য কর্মী হিসেবে মোঃ মেনাজ উদ্দিন এর রয়েছে ব্যাপক সুনাম তিনি। তার নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান চালানোর পরও আওয়ামী লীগকে সুসংগঠিত করার জন্য তৃণমূলের নেতাকর্মীদের সাথে ব্যাপক ভাবে যোগাযোগ স্থাপন করে চলেছেন।বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ইউনিয়ন শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ শহিদুল ইসলাম জানান আগামী ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিল যদি মোঃ মেনাজ উদ্দিন এর মত সৎ এবং রাজপথের লড়াকু সৈনিক কে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নির্বাচন করা যায় তাহলে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ২নং হারাগাছ ইউনিয়ন শাখা শক্তিশালী এবং সুসংগঠিত হবে বলে আমার বিশ্বাস তাই আমি আমার দলের সিনিয়র নেতা কর্মীদের অনুরোধ করব আগামী ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিলে মোঃ মেনাজ উদ্দিন এর মত সৎ এবং যোগ্য প্রার্থীকে বিনা ভোটে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দেখতে চাই। এ ব্যাপারে আমাদের প্রতিনিধিকে মোঃ মিনহাজ উদ্দিন জানান আমি যদি হারাগাছ ইউনিয়ন শাখার সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নির্বাচিত হতে পারি তাহলে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার আওয়ামী লীগকে আরও শক্তিশালী এবং সুসংগঠিত করার কাজে নিজেকে বিলিয়ে দিব ইনশাআল্লাহ। তাই আগামী ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিলে হারাগাছ ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী হিসেবে সকলের দোয়া সমর্থন ও সহযোগিতা কামনা করছি সেই সাথে সকল কাউন্সিলর বৃন্দের প্রতি আমার একটি অনুরোধ থাকবে আপনারা নেতা নির্বাচিত করবেন তার রাজনৈতিক দূরদর্শিতা এবং সাংগঠনিক কার্যকলাপ বিভাজনের উপর আপনারা এমন একজন সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করবেন যার রাজনৈতিক ব্যাকগ্রাউন্ড এর পিছনে কোন ধরনের দুর্নীতি অসামাজিক কার্যকলাপ এবং দলকে বিতর্কিত করবে এ ধরনের কোনো চরিত্র দেখা না যায়।সেই দিক দিয়ে বিচার-বিশ্লেষণে আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাসী যে আমার রাজনৈতিক জীবনে কোন ধরনের দুর্নীতি সমাজবিরোধী দেশবিরোধী এবং দলকে প্রশ্নবিদ্ধ করবে এ ধরনের কোন রিপোর্ট নাই। সেই সাথে আমি আরো বলতে চাই আগামী ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিল হবে আওয়ামী লীগের জন্য একটি পরীক্ষিত মুজিব বাহিনী যারা স্বপ্ন দেখে স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার জন্য সেই লক্ষ্যকে সামনে রেখে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা স্বপ্ন দেখেন বাংলাদেশকে একটি উন্নত রাষ্ট্র হিসেবে বিশ্বের মধ্যে প্রতিষ্ঠা করতে। প্রধানমন্ত্রীর সেই সেই বিশ্বাস কে কাজে লাগিয়ে আমি কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে দলকে সুসংগঠিত করার কাজে নিজেকে বিলিয়ে দিতে চাই। আওয়ামী লীগের মাঝে এবং তৃণমূল পর্যায়ের আওয়ামী লীগের সকল অবহেলিত নেতাকর্মীদের যথাযথ মূল্যায়নই হবে আমার প্রধান লক্ষ্য। জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু।