ভান্ডারিয়া প্রতিনিধি : পিরোজপুরের ভান্ডারিয়ায় সোমবার সকালে আতরখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণির মেধাবী ছাত্রী,আলীয়া মাদ্রাসার ছাত্রী এবং রাজপাশা বালিকা দাখিল মাদ্রাসার ছাত্রী ধর্ষণ সহ ১০টি নারী ও শিশু ধর্ষণ মামলার আসামী সন্ত্রাস, সিরিয়াল রেপিষ্ট শামীম মৃধার ফাঁসির দাবীতে মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এ উপলক্ষে সকালে উপজেলার ৫নম্বর ধাওয়া ইউনিয়ন এবং ৪নম্বর ইউড়ি ইউনিয়নের সর্বস্তরের জনগণের উদ্যোগে আতরখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন সড়কে সাড়ে ১০টা থেকে সাড়ে ১১টা পর্যন্ত মানববন্ধনে ধাওয়া ইউনিয়নের সাবেক সংরক্ষিত মহিলা ইউপি সদস্য ও নারী সংগঠক শাহানাজ আক্তারের নেত্রীত্বে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, আতরখালী মানিক মিয়া মহা বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ দেলোয়ার জেসমিন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. সেলিম পঞ্চায়েত,আতরখালী আলীম মাদ্রাসার সুপার মো. ইদ্রিস আলী সিকদার, রাজপাশা বালিকা দাখিল মাদ্রাসার সুপার মাওলানা সবুর হোসেন, আতরখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মো. আমিনুল ইসলাম,৪৭নং উত্তর আতরখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষ মো. মাহাবুবুর রহমান,মো. জাকির হোসেন হাওলাদার , সাবেক ইউপি সদস্য মো.নাসীর উদ্দিন মল্লিক,শিক্ষার্থী ফাতেমা আক্তার, মেহেদী হাসান প্রমুখ। এর পূর্বে মানববন্ধন কারীরা ধাওয়া এবং ইকড়ি ইউনিয়নের বিভিন্ন সড়কে বিভিন্ন প্লাকার্ড সহ একটি বিক্ষোভ মিছলও করে। সভায় বক্তারা বলেন,গত ১১জুন আতরখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মেধাবী ছাত্রী পরীক্ষা দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে ধর্ষণের শিকার হয়। ঐ ছাত্রীর বাবা একজন মৎস্যজীবি হওয়ায় মাছ শিকারের কাজে কুয়াকাটার মহিপুরে বসবাস করে। বাড়ি এসে ধর্ষণের ঘটনা মা কে খুলে বলার পরে মা পরের দিন বাদি হয়ে ভান্ডারিয়া থানায় শামীমকে প্রধান আসামী করে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করে। সেই থেকে শামীম কৌশলে পালিয়ে বেড়াতে থাকে। ১৩জুন আতরখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, অভিভাবক এলাকাবাসী প্রথম দফায় বিদ্যালয় সংলগ্ন সড়কে শামীমের ফাঁসি সহ দৃষ্টান্ত মূল ক শাস্তির দাবি জানান। পরে আইন শৃংঙ্খলা বাহীনি বিষয়টি গুরুত্বের সহিত বিবেচনা করে অত্যাধুনিক প্রযুক্ত ব্যবাহার করে শুক্রবার রাতে র‌্যাবের একটি টিম সিরিয়াল রেপিষ্ট শামীম মৃধাকে ঢাকার উত্তরা থেকে আটক করে শনিবার র‌্যাবের পক্ষ থেকে প্রেস ব্রিফিং করে শনিবার রাতে ভাÐারিয়া থানায় প্রেরণ করেন। শনিবার ভান্ডারিয়া থানাপুলিশ পিরোজপুর কোর্টের মাধ্যমে জেলা কারাগাড়ে প্রেরণ করে। শামীম কারাগাড়ে থাকলেও হঠাৎ গজে উঠা একটি প্রভাবশালী মহেলের ছত্রছায়ায় সন্ত্রাসী বাহীনি তার আপন ভাই সবুর মৃধা, একই এলাকার মৃত ছন্দু মৃধার ছেলে মিলন মৃধা এবং একই এলাকার আবু তালেব মৃধা ধর্ষণ মামলার বাদি সহ যারা যারা তার (শামীমের) বিরুদ্ধে কথা বলবে তাদের সহ তাদের পরিবারকে দেখিয়ে দেবার এমনকি বেশি বাড়াবাড়ি করলে জীবণনাশের মত হুমকি দিয়ে আসছে। তারা আরো বলেন, ধর্ষক শামীম মৃধা এতই প্রভাবশালী আইন কানুনের তোয়াক্কা না করে একের পর এক অপরাধ করে যাচ্ছে। তাই এই কুখ্যাত সন্ত্রাসী সিরিয়াল রেপিষ্ট শামীমের অনতিবিলম্বে ফাঁসি এবং এলাকায় থাকা তার বাহীনিদের গ্রেফতার পূর্বক দৃষ্টান্ত মূলক সাস্তির জন্য স্থানীয় সাংসদ,স্বরাস্ট্রমন্ত্রী এবং প্রধাণ মন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন। এ ব্যাপারে ভান্ডারিয়া থানার অফিসার্স ইন চার্জ(ওসি) মো. মাসুমুর রহমান বিশ্বাস জানান,সিরিয়াল রেপিষ্ট শামীম মৃধাকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। এবং পিরোজপুর জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে স্কুল ছাত্রীর শারীরিক পরীক্ষার এখন পর্যন্ত পাওয়া যায়নি। রেপিষ্ট শামীমের বিরুদ্ধে ভান্ডারিয়া ও কাঠালিয়া থানায় ধর্ষণ, ধর্ষণের চেষ্টা , চাঁদাবাজী ও মাদকসহ ৮টি মামলা রয়েছে।