ফিরোজ আহম্মেদ, ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ কালীগঞ্জ উপজেলার বড় শিমলা গ্রামে হযরত আলী নামে এক যুবলীগ নেতার হাতের কব্জি কাটার ঘটনায় মামলার পর প্রধান আসামিসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে থানা পুলিশ। ওই যুবলীগ নেতার ভাই ইউনুস আলী কালীগঞ্জ থানায় গতকাল শনিবার (১২ই মার্চ) বিকেলে মামলা দায়ের করে।মামলায় গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- বড় শিমলা গ্রামের মৃত আমির গাজীর ছেলে আসাদুল ওরফে আশা গাজী (৪৫), মৃত মইজ উদ্দিনের ছেলে সোহাগ হোসেন (৩৫) ও মৃত শুকুর আলীর ছেলে সেলিম হোসেন (৪৫)।
গত বৃহস্পতিবার (১০ই মার্চ) রাত সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার  গ্রামে প্রতিপক্ষের লোকজন যুবলীগ নেতা হযরত আলীর ওপর হামলা চালায়। তখন প্রতিপক্ষের লোকজন তার হাতের কব্জি কেটে ফেলে। এ হামলায় আরো তিনজন আহত হন। হযরত আলী ঢাকায় একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
কালীগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) মতলেবুর রহমান জানান,যুবলীগ নেতার হাতের কব্জি কাটার ঘটনায় ইউনুস আলী ১২ জনের নাম উল্লেখ করে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলায় অজ্ঞাতনামা চার থেকে পাঁচ জন আসামির কথাও উল্লেখ করা হয়েছে।
তিনি আরো জানান,মামলা দায়ের পর আসামিদের গ্রেপ্তার করতে অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে প্রধান আসামিসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।বাকিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।