সুমন ইসলাম বাবু, লালমনিরহাট : লালমনিরহাটের আদিতমারীতে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে দু’পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় উভয় পক্ষের ৪ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। রবিবার দুপুরে আদিতমারী উপজেলা সদরের মাষ্টারপাড়া এলাকা ঘটনাটি ঘটেছে।আহতরা হলেনঃ আদিতমারী বুড়িরবাজার এলাকার পল্লীচিকিৎসক রফিকুল ইসলাম (৭২), ভাদাই ইউনিয়নের দক্ষিণবত্রিশ হাজারী গ্রামের বীরমুক্তিযোদ্ধা তসলিম উদ্দিন (৭৫),,মুক্তিযোদ্ধার জামাতা আব্দুল বাতেন (৫০) ও তার ছেলে তারিকুল ইসলাম (২৭)। এদের মধ্যে আব্দুল বাতেন রংপুর মেডিকেল হাসপাতালে ও বাকিরা আদিতমারী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।এদিকে এ ঘটনায় আহত পল্লীচিকিৎসক রফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে আদিতমারী থানায় ১০ জনের নামে একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। আহত রফিকুল ইসলাম উপজেলার ভাদাই ইউনিয়নের আরাজি দেওডোবা গ্রামের মৃত সাইফুল ইসলামের ছেলে।অভিযোগ সুত্রে জানাগেছে, আদিতমারী উপজেলার মাষ্টারপাড়া এলাকায় পল্লীচিকিৎসক রফিকুল ইসলাম ১২ শতক জমি ক্রয় সুত্রে ভোগদখল করে আসছেন (যাহার দলিল নং- ২৩৬২, তারিখ- ১৩/০৫/২০০৪ ইং)। ক্রয়কৃত সম্পত্তি নিজের মালিকানা দাবী করে দীর্ঘদিন যাবত জবর দখলের পায়তারা করে আসছেন আব্দুল বাতেন (৫০)। এ ঘটনায় রফিকুল ইসলাম বিজ্ঞ আদালতে চিরস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা চেয়ে মামলা দায়ের করেন (যাহার মোকদ্দমা নং-অন্য ৯২/২০২০(আদিত)। ওই মোকদ্দমায় গত বছরের ৯ নভেম্বর আদালত নালিশী তফশিল বর্ণিত জমিতে আইন বহিভূত অনুপ্রবেশ হতে বিবাদী পক্ষদ্বয়কে চিরস্থায়ীভাবে বারিত করার আদেশ প্রদান করেন।এদিকে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে আব্দুল বাতেন তার দলবল নিয়ে রবিবার (১২ জুন) দুপুরে ওই জমিতে প্রবেশ করে লাঠি ও লোহার রড নিয়ে জোরপূর্বক দখলের চেষ্টা চালান। এসময় আব্দুল বাতেনের লোকজন বাড়ীর বেড়া ভাংচুর করে মূল্যবান গাছপালা কেটে ক্ষতি সাধন করেন। বাঁধা দিতে গেলে তারা পল্লীচিকিৎসক রফিকুল ইসলামের গলা টিপে শ্বাসরোধ করে হত্যার চেষ্টা চালান বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়। এছাড়াও আব্দুল বাতেনের ছেলে তারিকুল ইসলাম (২৭) এর হাতে থাকা লোহার রড দিয়ে তাকে এলোপাথাড়ি মারধর করা হয় বলে তিনি দাবী করেন। পরে আহত অবস্থায় এলাকাবাসী উদ্ধার করে রফিকুল ইসলামকে আদিতমারী হাসপাতালে ভর্তি করেন। বর্তমানে তিনি সেখানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।আদিতমারী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সুরুজ্জামান রবিবার বিকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এসময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন, বিষয়টি গুরুত্বসহকারে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে তিনি দাবী করেন।আদিতমারী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোক্তরুল ইসলাম জমি নিয়ে উভয় পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় একটি পক্ষ থেকে থানায় অভিযোগ পাওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করেছে ।