বাগেরহাট প্রতিনিধি : বাগেরহাটে ট্রাক চাপায় মশিউর রহমান (৪৫) নামের এক প্রকৌশলী নিহতের ঘটনায় ট্রাকচালক মিজানুর রহমান (৩০)কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মিজানুর মূলত ট্রাকের হেলপার, মাদক সেবনরত অবস্থায় দ্রæত গতিতে ট্রাক চালাচ্ছিলেন। শনিবার (৪ জুন) দুপুরে বাগেরহাট পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে এক প্রেসব্রিফিংয়ে পুলিশ সুপার কেএম আরিফুল হক এসব তথ্য জানান। হত্যাকাÐের দশদিন পরে শুক্রবার (৩ জুন) সন্ধ্যায় মোল্লাহাট উপজেলার গাওলা এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।এর আগে গত ২২ মে সকালে মোটরসাইকেলযোগে বাগেরহাট শহরে যাওয়ার সময় মুনিগঞ্জ সেতুর টোলপ্লাজার ব্যারিকেড ভেঙ্গে ওই প্রকৌশলীর মোটরসাইকেলে ধাক্কা দেয় ট্রাকটি। তাতে গুরুতর আহত হন প্রকৌশলী মশিউর রহমান। পরে বাগেরহাট জেলা হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। আটক মিজানুর রহমান রামপাল উপজেলার ইসলামাবাদ গ্রামের এসকেন্দার শেখের ছেলে। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে প্রকৌশলী মশিউর রহমানকে চাপা দেওয়ার কথা স্বীকার করেছেন গ্রেফতার মিজানুর রহমান।পুলিশ সুপার কেএম আরিফুল হক বলেন, “গ্রেফতার মিজানুর রহমান ওই ট্রাকের মূল চালক ছিলেন না। তিনি ট্রাকের হেলপার ছিলেন। ঘটনার সময়ে ট্রাকের চালক হেলপার মিজানুরের পাশে বসা ছিলেন। মাদক সেবন করে দ্রæত গতিতে ট্রাক চালাচ্ছিলেন মিজানুর। মুনিগঞ্জ টোলপ্লাজায় এসে প্রকৌশলীর মোটরসাইকেলকে ধাক্কা দিয়ে বেরিকেড ভেঙ্গে পালিয়ে যায়।” পুলিশ সুপার আরও বলেন, “ট্রাক চাপায় প্রকৌশলীর মৃত্যুর পর থেকে চালক ও ট্রাকের মালিক পক্ষ বিষয়টি গোপন করার চেষ্টা করে। তারা ট্রাকের নাম্বার প্লেট ও ট্রাকের রং পরিবর্তন করে ফেলে। এরপর গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তেরখাদা থেকে ঘাতক ট্রাকটি জব্দ এবং মোল্লাহাটে অভিযান চালিয়ে ঘাতক চালক মিজানুর রহমানকে গ্রেফতার করা হয়।নিহত মশিউর রহমান বাগেরহাট সদর উপজেলার গোটাপাড়া এলাকার মৃত আঃ মজিদের ছেলে। সে বাগেরহাটে লোকাল গভর্নমেন্ট ইনিশিয়েটিভ অন ক্লাইমেট চেঞ্জ (লজিক) প্রকল্পের প্রকৌশলী হিসেবে কর্মরত ছিলেন।