জয়পুরহাট প্রতিনিধি : জয়পুরহাটে পরকীয়ার জেরে স্বামীকে হত্যার ঘটনায় স্ত্রীসহ তিনজনের মৃত্যুদ-াদেশ দিয়েছেন জয়পুরহাট জেলা ও দায়রা জজ আদালত। বৃহস্পতিবার দুপুরে জয়পুরহাট জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক নুর ইসলাম এ রায় ঘোষণা করেন। দন্ডপ্রাপ্তরা হলেন, দিনাজপুর জেলার ঘোড়াঘাট উপজেলার দেওগ্রাম ডুগডুগি গ্রামের নিহত আব্দুর রহিমের স্ত্রী আকলিমা খাতুন, একই উপজেলার শালগ্রামের মৃত শহিদুল ইসলামের ছেলে সেলিম মিঞা ও গোপালপুর গ্রামের মৃত গোলাপ রহমানের ছেলে আইনুল ।মামলার বিবরণে জানা যায়, দিনাজপুর জেলার ঘোড়াঘাট উপজেলার দেওগ্রাম ডুগডুগি গ্রামের মাইক্রোবাস চালক রহিম বাদশার স্ত্রী আকলিমা খাতুনের সাথে তার সহকারি সেলিম মিয়া পরকিয়া সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এক পর্যায় সেলিম ও আকলিমার যোগসাজসে তাদের পথের কাটা দূর করতে ২০১৬ সালের ১০ জুলাই মাইক্রোবাস ভাড়ার কথা বলে পাঁচবিবি উপজেলার বারোকান্দি এলাকায় নিয়ে গিয়ে রাস্তার ধারে গভির রাতে প্রেমিক সেলিম মিয়া ও তার বন্ধু আইনাল হোসেন রহিম বাদশাকে মাইক্রোবাসের মধ্যে গলা কেটে হত্যা ফেলে যান। সকালে স্থানীয়রা খবর দিলে পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে। এ হত্যাকান্ডে নিহতের বাবা শাহাদত হোসেন সাদা বাদি হয়ে পরের দিন পাঁচবিবি থানায় অজ্ঞাত নামা মামলা করার পর পুলিশ তদন্ত করে ঐ বছরের ১৭ ই ডিসেম্বর ৩ জনকে অভিযুক্ত করে তদন্ত প্রতিবেদন আদালতে প্রদান করেন। দীর্ঘ শুনানী শেষে বৃহস্পতিবার বিচারক এ রায় দেন।এ সময় ৩ আসামীর মধ্যে সেলিম মিঞা ও আইনাল আদালতে উপস্থিত ছিলেন অপর আসামী অনুপস্থিত ছিলেন। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন এ্যাড. নিপেন্দ্রনাথ মন্ডল পিপি