আশাশুনি প্রতিনিধি : আশাশুনির বুধহাটা বাজারে দীর্ঘদিনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান সরকারি অনুমতিক্রমে সংস্কার করাকালে পার্শ্ববর্তী নিত্যানন্দদে গংরা বাঁধা প্রদান, মারপিট করে জখম ও মালামাল ক্ষয়ক্ষতি করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে থানায় লিখিত অভিযোগে জানাগেছে, উপজেলার বুধহাটা গ্রামের প্রবানন্দদের ছেলে দীপ্ত দে ২০০৯ সাল থেকে বাজারে জুয়েলারী দোকান করে ব্যবসা করে আসছে। ১নং খাস খতিয়ানভুক্ত ১৪৩৫/৯ নং দাগে ২০ বর্গমিঃ জমিতে দোকান ঘরটি সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক কর্তৃক ০১/২০০৯ (আশাঃ) নং মিস কেসে অনুমোদিত পেরিফেরিভুক্ত বুধহাটা বাজারের সম্পত্তির অর্ন্তভূক্ত। ইতোপূর্বে দীপ্ত’র পরিবারের অন্য কারও নামে কোন দোকানঘর ইজারা প্রদান করা হয়নি এবং প্রার্থিত জমিটি অন্য কারও নামে প্রস্তাব করা হয়নি মর্মে ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তার প্রতিবেদন রয়েছে। জেলা প্রশাসকের অনুমোদন সাপেক্ষে সহকারী কমিশনার (ভূমি) আশাশুনি দীপ্তকে লাইসেন্স প্রদান করে দোকান ঘর চুক্তিপত্র সম্পাদন করেন। জেলা প্রশাসকের অনুমোদন সাপেক্ষে সহকারী কমিশনার (ভূমি) দীপ্ত দে কে গত ১১ ফেব্রুয়ারী বন্তোবস্তকৃত জুয়েলারী দোকানঘরটি সংস্কারের লিখিত অনুমতি প্রদান করেন। গত ১৩ ফেব্রুয়ারী দীপ্ত ও তার পিতা প্রবানন্দদে দোকান ঘর সংস্কার কাজ করাচ্ছিলেন। বেলা ১১ টার দিকে মৃত. রামপদ দে’র ছেলে নিত্যানন্দ দে, ছেলে উৎপল দে ও স্ত্রী সুচিত্রা দে লাঠিশোটা ও লোহার রড নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে হামলা চালিয়ে কাজে বাঁধা দেয় এবং গলায় পা দিয়ে, শ্বাসরোধ করে হত্যার চেষ্টা ও রড দিয়ে আঘাত করে গুরুতর জখম করে। এ ছাড়া হামলাকারীরা সিমেন্ট, খোয়া, বালু ও সিমেন্ট মাখানো বালু ছড়িয়ে দিয়ে ক্ষতিসাধন করে। হার্টের রোগি প্রবানন্দকে স্থানীয়রা অজ্ঞান অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। এব্যাপারে দীপ্ত দে বাদী হয়ে আশাশুনি থানায় লিখিত এজাহার দাখিল করেন। পুলিশ ঘটনাস্থান পরিদর্শন করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন। এরপরও হামলাকারীরা বাদীর বাড়িতে গিয়ে জীবন নাশের হুমকী ও অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে তাদেরকে ভীত সন্ত্রস্থ করে তুলেছে বলে দীপ্ত’র পরিবার সূত্রে জানাগেছে।

আশাশুনির বুধহাটা বাজারে ভ্রাম্যমান আদালতে দু’ব্যবসায়ীকে জরিমানা

আশাশুনি প্রতিনিধি : আশাশুনির বুধহাটা বাজারে ভাম্যমান আদালত পরিচালনা করে দু’ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা ও ২ বেকারী ব্যবসায়ীকে সতর্ক করে দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে ভোক্তা অধিকার দপ্তর সাতক্ষীরার সহকারী পরিচালক নাজমুল হাসানের নেতৃত্বে বুধহাটা বাজারে অভিযান চালায়। এ সময় পরিবেশ দুষন, অপরিষ্কার ও মালামালের গুনাগুণ সন্তোষ জনক না হওয়ায় ভোক্তা অধিকার আইনে সাতক্ষীরা ঘোষ ডেয়ারী মালিক সুজনকে ১ হাজার টাকা এবং হাবিব বেকারীর মালিক হাফিজুর রহমানকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এছাড়া ভাই ভাই বেকারী ও আদিত্য বেকারী মালিককে সতর্ক করা হয়। এসময় আশাশুনি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সেনেটারী ইন্সপেক্টর জিএম গোলাম মোস্তফা, সাতক্ষীরা থেকে আগত পুলিশ সদস্যবৃন্দ সাথে ছিলেন।