নোয়াখালী প্রতিনিধি: নোয়াখালীর সেনবাগে প্রেম ঘটিত তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই গ্রামবাসীর মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয় পক্ষের অন্তত ৫জন আহত হয়েছে। ভাঙচুর করা হয়েছে দোকান-পাট। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ১১ রাউন্ড গুলি করেছে পুলিশ। ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলার প্রতিবাদে মঙ্গলবার সকালে সোনাইমুড়ী-সেনবাগ সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করে ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ীরা। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বীরকোর্ট গ্রামের বাসিন্দা ও স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রীর সাথে কেশরপাড় গ্রামের দশম শ্রেণির ছাত্র রাকিবের সাথে প্রেমের সম্পর্ক চলছিল। বিষয়টি কয়েকদিন আগে ওইছাত্রীর ভাই লিমন জানতে পারেন। পরে বিষয়টি রাকিবকে জিজ্ঞেস করলে সে ক্ষিপ্ত হয়ে গত দু’দিন আগে নিজের বন্ধুদের নিয়ে লিমনকে মারধর করে। এ ঘটনার জেরে সোমবার রাতে বীরকোর্ট গ্রামের কানকিরহাট বাজারে রাকিব ও তার বন্ধু বাপ্পার নেতৃত্বে কানকিরহাট বাজারে লিমন ও তার লোকজনের ওপর পুনঃরায় হামলা চালায় একদল। এসময় উভয় পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া এবং সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে উভয় পক্ষের অন্তত ৫জন আহত হয়। ভাঙচুর করা হয় ৬-৭টি দোকানের সাটার’সহ বাইরের অংশ। খবর পেয়ে সেনবাগ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে ফাঁকা গুলি ছুঁড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এদিকে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলার ঘটনার প্রতিবাদ ও হামলাকারীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে প্রায় ঘন্টাব্যাপী সোনাইমুড়ী-সেনবাগ সড়ক অবরোধ করে রাখে কানকিরহাটের ব্যবসায়ীরা।
সেনবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকবাল হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ১১ রাউন্ড গুলি ছুঁড়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে, ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে একটি লিখিত অভিযোগ দিতে বলা হয়েছে।এ ঘটনায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।