ফিরোজ আহম্মেদ, কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধিঃ ঝিনাইদহের কালীঞ্জে ধরন্ত গাছের কুলগাছ কেটে ও বাড়িয়ে বিনষ্ট করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে কে বা কারা উপজেলার রঘুনাথপুর গ্রামের রবিউল ইসলামের কুল বাগানে এ ক্ষয়ক্ষতি করে। এতে বাগানের প্রায় অর্ধলাখ টাকার কুল নষ্ট হয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে। কৃষক রবিউল ওই গ্রামের মোজাহার আলীর ছেলে। এবারই প্রথম তার ২২ শতক জমিতে বল সুন্দরী কুলের চাষ করেছিলেন।
রবিউল ইসলাম জানান, এক বছর আগে ২২ শতক জমিতে বল সুন্দরী জাতের কুলের চাষ করেছিলাম। গাছ লাগানো থেকে শুরু করে এ পর্যন্ত তার প্রায় এক লাখ টাকা খরচ হয়েছে। এবছরই প্রথম প্রতিটি গাছেই কুল এসেছে। তবে এখনো বিক্রি শুরু হয়নি। তবে আশা ছিল গাছে যে পরিমাণ কুল আছে তা লক্ষাধিক টাকা বিক্রি করতে পারবো। যে টাকায় তার খরচ উঠে আসবে। বাগান মালিক রবিউল আরো জানান, বুধবার বিকালে এলাকার কয়েকজন যুবক কুল ক্ষেতে এসেছিল। কিন্তু কুলে এখনো পাক না ধরায় তাদের ফিরয়ে দেওয়া হয়। এতে তারা কিছু বাজে কথাবার্তাও বলে যায়। এরপর বৃহস্পতিবার সকালে কুল বাগানে গিয়ে দেখা যায় আটটি গাছ গোড়া থেকে কেটে ফেলে দিয়েছে। এছাড়া অনেক গাছের অপরিপক্ক কুল বাড়িয়ে নষ্ট করেছে।
বাগান রক্ষক কুরবান আলী জানান, বুধবার বিকালে কয়েক কিশোর কুল ক্ষেতে এসেছিল। এসময় তারা কিছু কুল দেওয়ার কথা বলে। কুল না পাকায় পরে আসতে বললে তারা বাজে কিছু কথা বলে চলে যায়।
স্থানীয় ৭নং ওয়ার্ডের মেম্বার ইদ্রিস আলী জানান, আমরা অভিযুক্ত কিশোরদের বিকালে ডেকেছি। তাদের সাথে কথা বলে বিষিয়টি নিরসন করা হবে।
১১ নং রাখালগাছি ইউনিয়ন পরিসদের চেয়ারম্যান মহিদুল ইসলাম মন্টু জানান, বিষয়টি আমি জেনেছি। অভিযুক্ত ও বাগান মালিকের সাথে কথা বলে সমস্যার সমাধান করে দেব।