মীর জেসান হোসেন তৃপ্তী : কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক (এমপিও) বিমল মিশ্র, সংযুক্ত কর্মকর্তা, মোঃ কামরুজ্জামান ও সাইফুল ইসলামের অনতিবিলম্ভে অপসারণ, এমপিওভুক্তির জন্য আবেদিত শিক্ষক-কর্মচারীবৃন্দের বেতন-ভাতাদি ছাড়করণের দাবিসহ মোট ১১ (এগার) দফা দাবিতে ০১ ফেব্রæয়ারী ২০২২ খ্রিঃ মঙ্গলবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি অডিটরিয়ামে এক সাংবাদিক সম্মেলন করেছে বেসরকারী কৃষি ডিপ্লোমা এসোসিয়েশন এর উদ্যোগে সম্মিলিত শিক্ষক সংগঠনগুলো। সাংবাদিক সম্মেলন শেষে একইদিন জাতীয় প্রেসক্লাব চত্ত¡রে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। সাংবাদিক সম্মেলন ও মানববন্ধনে লিখিত বক্তব্য উপস্থাপন করেন- বেসরকারী কৃষি ডিপ্লোমা এসোসিয়েশনের মহাসচিব মোহাম্মদ সাখাওয়াত হোসেন ভূঞা। অন্যান্য দাবীগুলোর মধ্যে রয়েছে-
ক্স কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরে কয়েকজন অধ্যক্ষ ও শিক্ষকবৃন্দের উপর নারকীয় হামলায় জড়িতদের সারাদেশের শিক্ষক সমাজের কাছে নিঃশর্তভাবে ক্ষমা প্রার্থনা করতে হবে।
ক্স কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলোতে কারিগরি বান্ধব, মানবিক ও ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি সম্পন্ন দক্ষ কর্মকর্তাবৃন্দকে পদায়ন/ দায়িত্ব প্রদান করতে হবে।
ক্স কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরের এমপিও কার্যক্রম ডিজিটালাইজড ও ডিসেন্ট্রেলাইজড করতে হবে।
কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরে এমপিওভুক্তির জন্য আবেদিত শিক্ষক-কর্মচারীবৃন্দকে কাম্য শিক্ষাগত যোগ্যতা ও বর্তমান জনবল কাঠামোর প্রাপ্যতা বিবেচনায় দ্রæততম সময়ের মধ্যে বেতন-ভাতাদি ছাড় করতে হবে।কথায় কথায় তদন্ত, নাম পরিচয় বিহীন অভিযোগের নামে তদন্ত ও অধিদপ্তরের ওয়েব সাইডে নেতিবাচক নোটিশ জারি করে সারাদেশে কারিগরি শিক্ষা ব্যবস্থাকে হেয় করার ষড়যন্ত্র বন্ধ করতে হবে।
এমপিও শাখাসহ কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তর ও কারিগরি শিক্ষাবোর্ডের সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলোতে বেসরকারী কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দক্ষ ও অভিজ্ঞ শিক্ষক-কমচারীবৃন্দকে ডেপুটেশনে পদায়ন/দায়িত্ব প্রদান করতে হবে।
সরকারী কারিগরি ও বেসরকারী কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জনবল কাঠামোর বৈষম্য দূর করতে হবে।
কস বেসরকারী কারিগরি প্রতিষ্ঠানে ল্যাবঃ, অবকাঠামো উন্নয়ন, সকল শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি প্রদানসহ বিষয়ভিত্তিক শিক্ষক প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।
বর্তমান জব মার্কেটের প্রতিযোগিতায় যোগ্যতাভিত্তিক দক্ষ জনশক্তি তৈরী ও চতুর্থ শিল্প বিপ্লব মোকাবেলার জন্য বিশ্বায়নের প্রতিযোগিতার উপযোগী দক্ষ জনশক্তি তৈরীর লক্ষ্যে বিভিন্ন দেশের কারিগরি প্রতিষ্ঠানের সাথে ঈড়ষষধনড়ৎধঃরড়হ (শিক্ষার্থী বিনিময়) কর্মসূচী চালূ করতে হবে।
জব মার্কেটের চাহিদা অনুযায়ী নতুন নতুন স্পেশালাইজেশন/ট্রেড চালুর উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে।সাংবাদিক সম্মেলন ও মানববন্ধনে আরও বক্তব্য রাখেন- বাংলাদেশ কারিগরি (বিএম) কলেজ অধ্যক্ষ সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ মাসুদুর রহমান, বাংলাদেশ করিগরি কলেজ শিক্ষক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ মোহাম্মদ আলী চৌধুরী, শিক্ষক ইউনিয়ন টিভির সভাপতি অধ্যক্ষ আবুল বাসার হাওলাদার, বাংলাদেশ কারিগরি কলেজ শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যক্ষ জাকির হোসেন আকন্দ, বাংলাদেশ ব্যবসায় ব্যবস্থাপনা কলেজ শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যক্ষ নাসির উদ্দিন বাবুল, বাংলাদেশ বিএম অধ্যক্ষ সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ সরদার গোলাম মোস্তফা প্রমূখ। সংবাদ সম্মেলন ও মানববন্ধনে বক্তারা আগামী ১২ ফেব্রæয়ারী ২০২২ খ্রিঃ এর মধ্যে ঘোষিত ১১ দফা দাবিপূরণে সংশ্লিষ্ট কতৃৃপক্ষের কার্যকর উদ্যোগ দৃশ্যমান না হলে প্রতিটি জেলা হতে একযোগে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান, শিক্ষক সংগঠনের প্রতিনিধি দল প্রধানমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাতকারের আয়োজন, প্রতিটি জেলায় অভিযুক্ত কর্মকর্তাদের নামে মামলা দায়ের, কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তর প্রাঙ্গনে মানববন্ধন ও পর্যায়ক্রমে আমরণ অনশনের মত কঠিনতর কর্মসূচীর মাধ্যমে আমাদের ঘোষিত দাবীসমূহ আদায় করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শিক মননে কারিগরি শিক্ষা সম্প্রসারণ ও সংস্কার সাধনপূর্বক বক্তারা শিক্ষকদের যথাযোগ্য মর্যাদা প্রতিষ্ঠা ও অধিকার আদায়ের দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।