ডেস্ক রিপোর্ট : বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনের দিন চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট ১৭ সংগঠনের সদস্যদের এফডিসিতে ঢুকতে দেওয়া হয়নি। বিষয়টিকে অপমানজনক দাবি করে তিন দফা দাবিতে লাগাতার কর্মবিরতি ও আন্দোলনের ডাক দিয়েছে ১৭ সংগঠন।
তিন দাবির একটি নুজহাত ইয়াসমিনকে এফডিসির ব্যবস্থাপনা পরিচালকের পদ থেকে অপসারণ। আজ সকালে এক সাংবাদিক সম্মেলনে ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) নুজহাত ইয়াসমিনকে দুর্নীতিবাজ, ঘুষখোর, অযোগ্য আখ্যা দিয়েছে চলচ্চিত্রকর্মীরা।
তারা আরও দাবি করেছেন, শিল্পী সমিতির নির্বাচনে একটি প্যানেলকে সাপোর্ট দিয়েছেন তিনি। সেই প্যানেলের জন্য সুবিধা করে দিতেই এফডিসি ফাঁকা রাখতে চেয়েছেন এফডিসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক। রবিবার সকালে আরেকটি সাংবাদিক সম্মেলনে নুজহাত ইয়াসমিন তার বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে দাবি করেন। তিনি বলেন, ‘পীরজাদা হারুনের সঙ্গে আমার আঁতাত করার প্রয়োজন নেই। আমার সাথেও তার আঁতাত করার কোনো প্রয়োজন নেই। যারা এসব কথা বলছেন সেগুলো প্রমাণ করার দায়িত্বও তাদের। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের করোনাভাইরাস বিষয়ক নির্দেশনা মেনে শিল্পী সমিতির নির্বাচনে ভোটগ্রহণ করা হয়েছিল। আমার মনে হয়, আমি কোনো অন্যায় করিনি। এফডিসির পাস হাজার মানুষের কাছে আছে। কিন্তু মহামারি করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী, গণজমায়েত নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করেছি আমরা। রবিবার দুপুরে নুজহাত ইয়াসমিনের কুশপুত্তলিকায় আগুন দেয় চলচ্চিত্রের ১৭ সংগঠনের কর্মীরা এ সময় সাংবাদিকরা পাল্টা প্রশ্ন করেন, শিল্পকলা একাডেমিতে আট শতাধিক ভোটার ও শত শত মিডিয়াকর্মী অংশগ্রহণে কি করে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলো? এমন প্রশ্নের জবাবে নুজহাত বলেন, ‘সেটা আমার দেখার বিষয় নয়। নির্বাচনে অংশ নেওয়া দুই পরিষদ চাইলে নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে আলোচনা করে সঠিক জায়গায় বিষয়টি উপস্থাপন করে সমাধান করতে পারত। চলচ্চিত্র সংগঠনগুলোর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর অনুমোদন ছিল এফডিসিতে সবার প্রবেশের। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এ বিষয়ে নির্দেশনা দিলেও এফডিসির এমডির কারণে কেউ প্রবেশ করতে পারেননি। এ বিষয়ে প্রশ্ন করলে এমডি বলেন, ‘এসব ভিত্তিহীন। করোনা পরিস্থিতিতে সবার নিরাপত্তার স্বার্থে এটি করা হয়েছে। এদিকে নুজহাত ইয়াসমিনকে এফডিসির এমডির পদ থেকে অপসারণের দাবিতে বিভিন্ন কর্মসূচির ডাক দিয়েছে ১৭ সংগঠন। দুপুরে এফডিসিতে তার কুশপুতুলও দাহ করা হয়েছে।