পিরোজপুর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. জাহিদুল ইসলাম টিটুর স্বাক্ষর জাল করে পিরোজপুর সদর ‍উপজেলা কমিটির অনুমোদন দিয়েছেন জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক অনিরুজ্জামান অনিক। শুক্রবার সকালে প্রথমে পিরোজপুর জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক অনিক একক স্বাক্ষরে ওই কমিটি ঘোষণা করে নিজের ফেসবুক আইডিতে আপলোড করলে সমালোচনার মুখে পড়েন। পরবর্তীতে বিকালে তিনি জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জাহিদুল ইসলাম টিটুর স্বাক্ষর জাল করে নতুন করে আবারো সেই কমিটি আপ করেন।
২০১৮ সালের ৭ মে জেলা ছাত্রলীগের কমিটি গঠন করা হলেও পিরোজপুর সদর উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি স্থগিত করেছিলেন সংগঠনের সাবেক সভাপতি সাইফুর রাহমান সোহাগ এবং সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসেন। ওই স্থগিতাদেশ এখনো বহাল থাকার পর জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক অনিরুজ্জামান অনিক এমন বিতর্কিত কমিটি ঘোষণা করেছেন বলে অভিযোগ করেছেন অনেকে।
এমনকি জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জাহিদুল ইসলাম টিটু ভোরের পাতাকে বলেন, পিরোজপুর সদর উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি করার ক্ষেত্রে আমার সদিচ্ছ্বার কোনো অভাব নেই। কিন্তু জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক স্থগিতাদেশ থাকার পরও যেভাবে কমিটি দিয়েছেন তা কখনোই গ্রহণযোগ্য নয়। আমি বিষয়টি কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে জানিয়েছি। এমনকি ফেসবুকেও স্ট্যাটাস দিয়ে জানিয়েছি, পিরোজপুর সদর উপজেলা ছাত্রলীগের ভাইরাল হওয়া কমিটির স্বাক্ষর আমার নয়।
এ বিষয়ে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক অনিরুজ্জামান অনিককে ফোন করা হলেও তার ব্যবহত নম্বর বন্ধ পাওয়া গেছে।
উল্লেখ্য, মেয়াদোর্ত্তীণ জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক অনিকের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজিসহ মাদক ব্যবসার অভিযোগও রয়েছে। এমনকি সদর ‍উপজেলা ছাত্রলীগের অবৈধ কমিটিতেও তিনি অছাত্র, মাদক ব্যবসায়ী এবং বিতর্কিতদের ঠাঁই দিয়েছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।