নড়াইল প্রতিনিধি : নড়াইলের লাহাগড়া উপজলার কুমড়ি গ্রামর স¿াসী  সোহেল খানক (৪০) কুপিয় হত্যা করছ দুর্বত্তরা। বহস্পতিবার (১৪ এপ্রিল) রাত ১২টার দিক লাহাগড়ার পূর্বদিঘলিয়া গ্রাম তাক হত্যা করা হয়। সাহল কুমড়ি গ্রামর বদির খানর ছল। তার মাথা, পিঠ, হাতসহ শরীরর বিভিন ¯ান কুপিয় হত্যা করা হয়ছ।
পুলিশ ও ¯ানীয়রা জানান, বহস্পতিবার রাত সাহল স্ত্রীসহ তার শ্বশুরবাড়ির উঠান বস গল্প করছিলন। বাড়ির পাশ হঠাৎ শব্দ পয় সদিক যান তিনি। এ সময় পাঁচ থক সাতজন লাক সাহলক এলাপাতাড়ি কুপিয় হত্যা কর। তার স্ত্রী রাজিয়া সুলতানা ঠকাত গিয় ডান হাত সামান্য আহত হন। তব হত্যাকান্ডর ব্যাপার সাংবাদিকদর সঙ্গ কথা বলননি সাহলর স্ত্রী।
লাহাগড়া থানার ওসি শখ আবু হনা মিলন বলন, সাহল খান পুলিশর তালিকাভুক্ত স¿াসী। তার নাম চারটি হত্যা ও অস্ত্রসহ ১৩টি মামলা রয়ছ। তিনি এলাকায় বিভিন স¿াসী কার্যকালাপর সঙ্গ জড়িত ছিলন। নড়াইল সদর হাসপাতাল ময়নাতদÍ শষ হয়ছ।