খুলনা থেকে শেখ আব্দুল মজিদ : বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ সদস্য সেখ সালাহ্ উদ্দিন জুয়েল বলেছেন, কোন ষড়যন্ত্র করে খুলনা তথা বাংলাদেশের উন্নয়নকে দমিয়ে রাখা যাবে না। বাঙালিকে আর জু জু’র ভয় দেখিয়ে কোন লাভ হবে না। বাংলার মানুষ বুঝতে পেরেছে একমাত্র আওয়ামী লীগ তথা শেখ হাসিনার সরকারই বাংলাদেশের নিরবিচ্ছন্ন উন্নয়ন ও গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে পারে। তিনি বলেন, খুলনায় একাধারে উন্নয়ন চলছে। এই সকল উন্নয়ন কাজের জন্য নাগরিক জীবনে কিছুটা হলেও সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে। তবে এটি সাময়িক। উন্নয়নের স্বার্থে এতটুকু সমস্যা মেনে নেয়ার জন্য নগরবাসির প্রতি আহবান জানান। তিনি আরো বলেন, তালুকদার আব্দুল খালেককে পুনরায় মেয়র নির্বাচিত করে খুলনাকে তিলোত্তমা নগরীতে পরিণত করবো ইনশাল্লাহ।এ সময়ে সিটি মেয়র আলহাজ¦ তালুকদার আব্দুল খালেক বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এক ধ্বংস্তুপের উপর দাড়িয়ে বাংলাদেশের উন্নয়ন কাজ করছিলেন। বঙ্গবন্ধুর উন্নয়ন কাজে ঈর্ষান্বিত হয়ে দেশি বিদেশী চক্র এবং ’৭১-এর পরাজিত শত্রুরা ষড়যন্ত্র করে বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারে হত্যা করে। ঠিক সেই সকল পরাজিত শত্রুদের প্রেত্মারা শেখ হাসিনার উন্নয়নে একই ভাবে ঈর্ষান্বিত হয়ে তাঁকে হত্যার সহ নানা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। তিনি দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, ওই সকল ষড়যন্ত্রকারীদের মূলোৎপাটনের জন্য সকলকে ঐক্যবদ্ধ থেকে আগামী নির্বাচনে বিজয় অর্জন করে দেশরতœ জননেত্রী শেখ হাসিনাকে পুনরায় প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত করে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ে তুলবো ইনশাল্লাহ।গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টায় ১৮নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কর্মি সভায় সম্মানিত অতিথি ও প্রধান অতিথির বক্তব্যে নেতৃবৃন্দ এসব কথা বলেন। ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ জাহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক মো. জাকির হোসেন খানের পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য করেন, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এমডিএ বাবুল রানা, অধ্যক্ষ শহিদুল হক মিন্টু, সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ কামাল, অধ্যা. আলমগীর কবির, মহানগর আওয়ামী লীগ দপ্তর সম্পাদক মো. মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ। প্রধান বক্তার বক্তব্য করেন, সোনাডাঙ্গা থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান বুলু বিশ^াস, বিশেষ বক্তার বক্তব্য রাখেন, সোনাডাঙ্গা থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তসলিম আহমেদ আশা, আ’লীগ নেতা কাউন্সিলর শেখ মো. গাউসুল আযম, কাউন্সিলর শেখ হাফিজুর রহমান, রনজিত কুমার ঘোষ, মো. সফিকুর রহমান পলাশ, এম এ নাসিম, শেখ শাহজালাল হোসেন সুজন, এস এম আসাদুজ্জামান রাসেল, মো. রাজুল হাসান রাজু, কাউন্সিলর আমেনা হালিম বেবী, রুম্মান আহমেদ, রফিকুল ইসলাম, শেখ জাহাঙ্গীর আলম।এসময়ে উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামী লীগ নেতা শেখ মো. আনোয়ার হোসেন, কাজী জাহিদুল ইসলাম, তারিকুল আলম খান, কাউন্সিলর আনিছুর রহমান বিশ^াষ, নুরজাহান রুমি, নূরীনা রহমান বিউটি, অধ্যাপক এ বি এম আদেল মুকুল, চ. ম. মুজিবর রহমান, মো. মোতালেব মিয়া সহ মহানগর, থানা ও ওয়ার্ডের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।বক্তব্য শেষে ১৮নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের অনুমোদিত কমিটির পরিচয় করিয়ে দেয়া হয়।