সালথায় ইউএনও-এসি ল্যান্ডের গাড়িতে আগুন,বিভিন্ন অফিসে অগ্নিসংযোগ

প্রকাশিত: ০৬-০৪-২০২১, সময়: ১২:১৪ |
Share This

বুলবুল ,সালথা (ফরিদপুর) : করোনা ঠেকাতে বিধিনিষেধ কার্যকর করতে ফরিদপুরের সালথায় লোকজনকে পেটানো হয়েছে এমন অভিযোগে সোমবার রাতে থানা ও উপজেলা ঘেরাও করেছেন স্থানীয় লোকজন। এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও সহকারী কমিশনারের (ভূমি) গাড়িতে আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটে।সোমবার বিকেলে উপজেলা সদর থেকে সামান্য দূরের ফুকরা বাজার থেকে ঘটনার সূত্রপাত। স্থানীয় সূত্রের ভাষ্য অনুযায়ী, করোনা ঠেকাতে বিধিনিষেধ কার্যকর করতে দুই আনসার সদস্য ও ব্যক্তিগত সহকারীকে নিয়ে এসি ল্যান্ড মারুফা সুলতানা খান হিরামনি ফুকরা বাজারে যান। সে সময় চা পান করতে আসা জাকির হোসেন নামের এক ব্যক্তিকে লাঠিপেটা করা হয়েছিল বলে স্থানীয় লোকজনের অভিযোগ। এই ঘটনার জেরে ফুকরা বাজারে পুলিশের সঙ্গে স্থানীয় লোকজনের কয়েক দফা সংঘর্ষ হয়। এ সময় উপজেলার বিভিন্ন স্থানে গুজব ছড়িয়ে পড়ে পরে জনতার আক্রোশ থানা এবং উপজেলার উপরে গিয়ে পড়লে থানা ঘেরাও করে তারা। এ সময় থানায় আক্রমন ঠেকাতে পুলিশের গুলিতে দুজন নিহত হয়েছে, এমন গুজবে শত শত মানুষ এসে থানা ও উপজেলা অবরোধ করে রাখে মারমুখী জনতা।এ বিষয়ে এসি ল্যান্ড বলেছেন, তিনি রুটিন ওয়ার্কে বিভিন্ন বাজারে গিয়েছিলেন। এর অংশ হিসেবে ফুকরা বাজারে যান। সেখানে দুটি দোকান খোলা ছিল, তাদের বন্ধ করতে বলা হয়েছিল। পেটানোর কোনো ঘটনা ঘটেনি। তিনি জানান, উপজেলায় থাকা ইউএনও হাসিব সরকার ও তাঁর গাড়ি পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।পুলিশ জানায়, ফুকরা বাজারে পুলিশের একজন উপপরিদর্শক এসআই মিজান ও দুজন কনস্টেবল আহত হয়েছেন।নগরকান্দা ও সালথা সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার সুমিউর রহমান বলেন, ‘সাধারণ মানুষের আড়ালে মৌলবাদী গোষ্ঠী এ সুযোগ নিয়েছে। বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালেও হামলা করা হয়েছে। আমরা পরিস্থিতি মোকাবিলা করে যাচ্ছি।

ফেসবুকে আমরা

সর্বশেষ সংবাদ

উপরে