বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কিছু বই

প্রকাশিত: ০১-০৫-২০১৭, সময়: ০৪:২৯ |
Share This

বাংলাদেশ রাষ্ট্রের জন্মের সাথে যাকে একমাত্র সরাসরি যুক্ত করা যায় তিনি হলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। যাকে অভিহিত করা হয় হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী হিসেবে। যার নেতৃত্বে দীর্ঘ নয় মাসের রক্তক্ষয়ী সংগ্রামের পর স্বাধীন হয়েছে বাংলাদেশ। পৃথিবীর মানচিত্রে জায়গা করে নিয়েছে লাল সবুজের বর্ণিল মানচিত্র। তিনি ছিলেন বাংলাদেশের অন্যতম প্রধান রাজনৈতিক নেতা যিনি পূর্ব পাকিস্তান থেকে বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে অন্যতম পুরোধা ব্যক্তিত্ব এবং বাংলাদেশের জাতির জনক হিসেবে বিবেচিত। তিনি মাওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানী প্রতিষ্ঠিত আওয়ামী লীগের সভাপতি, বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি এবং পরবর্তীতে এদেশের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। জনসাধারণের কাছে তিনি “শেখ মুজিব” এবং “শেখ সাহেব” হিসেবেই বেশী পরিচিত এবং তার উপাধি ‘বঙ্গবন্ধু’। তার কন্যা শেখ হাসিনা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বর্তমান সভানেত্রী এবং বাংলাদেশের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম ১৯২০ সালের ১৭ ই মার্চ গোপালগঞ্জ জেলার টুঙ্গিপাড়ায়। তার বাবা শেখ লুৎফর রহমান গোপালগঞ্জ দায়রা আদালতের সেরেস্তাদার (যিনি আদালতের হিসাব সংরক্ষণ করেন) ছিলেন। তার মায়ের নাম ছিল সায়েরা খাতুন। চার কন্যা এবং দুই পুত্রের সংসারে তিনি ছিলেন তৃতীয় সন্তান। তার বড় বোন ফাতেমা বেগম, মেজ বোন আছিয়া বেগম, সেজ বোন হেলেন ও ছোট বোন লাইলী; তার ছোট ভাইয়ের নাম শেখ আবু নাসের। ১৯২৭ সালে শেখ মুজিব গিমাডাঙ্গা প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়াশোনা শুরু করেন যখন তার বয়স সাত বছর। নয় বছর বয়সে তথা ১৯২৯ সালে গোপালগঞ্জ পাবলিক স্কুলে ভর্তি হন এবং এখানেই ১৯৩৪ সাল পর্যন্ত পড়াশোনা করেন। ১৯৩৭ সালে গোপালগঞ্জ মাথুরানাথ ইনস্টিটিউট মিশন স্কুলে সপ্তম শ্রেনীতে ভর্তি হন। গোপালগঞ্জ মিশনারি স্কুল থেকে তিনি ম্যাট্রিকুলেশন পাশ করেন। ১৯৩৮ সনে আঠারো বছর বয়সে তার সাথে ফজিলাতুন্নেসার বিয়ে হয়।
ahsan১৯৪৭-এ ভারত বিভাগ পরবর্পূতী পূর্ব পাকিস্তানের রাজনীতির প্রাথমিক পর্যায়ে শেখ মুজিব ছিলেন ছাত্রনেতা। ক্রমে তিনি আওয়ামী লীগের জাতীয় নেতৃত্বের উচ্চপদে আসীন হয়েছিলেন। তার সবচেয়ে বড় গুণ ছিল তার তুখোড় বক্তৃতা প্রদানের ক্ষমতা। সমাজতন্ত্রের পক্ষসমর্থনকারী একজন অধিবক্তা হিসেবে তিনি তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তনের জনগোষ্ঠীর প্রতি সকল ধরণের বৈষম্যের বিরুদ্ধে আন্দোলন গড়ে তোলেন। জনগণের স্বাধিকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে তিনি একসময় ছয় দফা স্বায়ত্ত্বশাসন পরিকল্পনা প্রস্তাব করেন যাকে পশ্চিম পাকিস্তানে একটি বিচ্ছিন্নতাবাদী পরিকল্পনা হিসেবে বিবেচনা করা হয়েছিল। ছয় দফা দাবীর মধ্যে প্রধান ছিল বর্ধিত প্রাদেশিক স্বায়ত্ত্বশাসন যার কারণে তিনি আইয়ুব খানের সামরিক শাসনের অন্যতম বিরোধী পক্ষে পরিণত হন। ১৯৬৮ খ্রিস্টাব্দে ভারত সরকারের সাথে যোগসাজশ ও ষড়যন্ত্রের অভিযোগে আগরতলা মামলার মাধ্যমে তার বিচার শুরু হয় কিন্তু পরবর্তীতে তিনি নির্দোষ প্রমাণিত হন। ১৯৭০ খ্রিষ্টাব্দের নির্বাচনে তার নেতৃত্বাধীন আওয়ামী লীগ বিপুল বিজয় অর্জন করে। তথাপি তাকে সরকার গঠনের সুযোগ দেয়া হয় নি।
পাকিস্তানের নতুন সরকার গঠন বিষয়ে তৎকালীন রাষ্ট্রপতি ইয়াহিয়া খান এবং পশ্চিম পাকিস্তানের রাজনীতিবিদ জুলফিকার আলী ভুট্টোর সাথে শেখ মুজিবে আলোচনা বিফলে যাওয়ার পর ১৯৭১ খ্রিষ্টাব্দে মার্চ ২৫ মধ্যরাত্রে পাকিস্তান সেনাবাহিনী ঢাকা শহরে গণহত্যা পরিচালনা করে। একই রাতে তাকে গ্রেফতার করা হয় এবং পরবর্তীকালে পশ্চিম পাকিস্তানে নিয়ে যাওয়া হয়। রহিমুদ্দিন খান সামরিক আদালতে তাকে মৃত্যুদণ্ড প্রদান করে তবে তা কার্যকরা হয়নি। দীর্ঘ ৯ মাসের রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধ শেষে ১৯৭১-এর ১৬ই ডিসেম্বর বাংলাদেশ-ভারত যৌথ বাহিনীর কাছে পাকিস্তান সেনাবাহিনী আত্মসমর্পণ করার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ নামে স্বাধীন রাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠা হয়। ১০ এপ্রিল ১৯৭২ শেখ মুজিব পাকিস্তানের কারাগার থেকে মুক্ত হয়ে স্বদেশে প্রত্যাবর্তন করেন এবং বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন শুরু করেন। পরবর্তীকালে তিনি প্রধানমন্ত্রী হন। সমাজতন্ত্র ও ধর্মনিরপেক্ষতাকে ভিত্তি করে সংবিধান প্রণয়ন এবং সে অনুযায়ী রাষ্ট্র চালনার চেষ্টা সত্ত্বেও তীব্র দারিদ্র্য, বেকারত্ব, সর্বব্যাপী অরাজকতা এবং সেই সাথে ব্যাপক দুর্নীতি মোকাবেলায় তিনি কঠিন সময় অতিবাহিত করেন।
ক্রমবর্ধমান রাজনৈতিক অস্থিরতা দমনের লক্ষ্যে ১৯৭৫ খ্রিস্টাব্দে তিনি সকল দলীয় রাজনীতি নিষিদ্ধ ঘোষণা করে নিজেকে আজীবনের জন্য রাষ্ট্রপতি ঘোষণা করেন। এর সাত মাস পরে, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট তারিখে একদল সামরিক কর্মকর্তার হাতে তিনি সপরিবারে নিহত হন।
কিন্তু বঙ্গবন্ধুর এই হত্যাকাণ্ডের মাধ্যমে তার আদর্শের পথ চলা থেমে থাকেনি। তার আদর্শ প্রজন্মের পর প্রজন্ম ধরে শুধু লালিতই হয়ে আসেনি তার পালনও হয়েছে। ১৯৭৫ সালের ১৫ ই আগস্ট সপরিবারে নিহত হওয়ার শেষ মুহুর্ত পর্যন্ত ঘাতকরা তাকে তার লক্ষ্য থেকে টলাতে পারেনি। তার ব্যক্তিত্ব ছিল পাহাড়সম। তাকে দেখে কিউবার প্রেসিডেন্ট ফিদেল ক্যাস্ট্রো মন্তব্য করেছিলেন “আমি হিমালয় দেখিনি। কিন্তু আমি শেখ মুজিবকে দেখেছি। ব্যক্তিত্ব ও সাহসিকতায় তিনিই হিমালয় এবং এভাবেই মুজিবের মাধ্যমেই আমি হিমালয়কে দেখেছি।”
মুজিবকে হত্যার পর থেকে আজ পর্যন্ত তাকে নিয়ে অসংখ্য বই, পুস্তিকা, কবিতা ও নাটক রচিত হয়েছে। আসছে ১৫ ই আগস্ট জাতীয় শোক দিবসে তাকে নিয়ে লেখা লেখা বইগুলো পড়তে পারেন। নতুন প্রজন্মের অনেকেই এখনো মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস ও তাতে শেখ মুজিবের ভূমিকা সম্পর্কে প্রায় কিছুই জানেন না। চাইলে কাউকে উপহার হিসেবেও দিতে পারেন বইগুলো। নিম্নে শেখ মুজিবকে নিয়ে রচিত বেশ কিছু বইয়ের নাম, প্রকাশনী, মূল্য এবং প্রাপ্তিস্থান উল্লেখ করা হলো। মুজিব এবং বাংলাদেশের ইতিহাস প্রিয়জনকে জানাতে বইগুলো উপহার হিসেবেও দিতে পারেন প্রিয়জনকে।

1010347_510886572330530_930007097_n• অসমাপ্ত আত্নজীবনী – শেখ মুজিবুর রহমান – দি ইউনিভার্সিটি প্রেস লিমিটেড – ৪০০ টাকা
• বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্নজীবনী পুনর্পাঠ – হারুন অর রশিদ – দি ইউনিভার্সিটি প্রেস লিমিটেড – ৩০০ টাকা
• বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান : বহুমাত্রিক মূল্যায়ন – সম্পাদক ডঃ মমতাজউদ্দিন পাটোয়ারী এবং জি এম তরিকুল ইসলাম – অনিন্দ্য প্রকাশ – ৭৫০ টাকা
• জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান – সিরাজ উদ্ দীন আহমেদ – ভাস্কর প্রকাশনী – ৫০০ টাকা
• বঙ্গবন্ধু – সম্পাদনা মিজান রহমান – ইত্যাদি প্রকাশনী – ৫০০ টাকা
• বঙ্গবন্ধুর মানবাধিকার দর্শন : বক্তৃতার সারসংক্ষেপ ও সংবাদ ভাষ্য – সংকলন ও সম্পাদনা ডঃ মোঃ রহমত উল্লাহ – জাতীয় মানবাধিকার কমিশন – ৫০০ টাকা
• ভারত, মুজিবুর রহমান, বাঙলাদেশের স্বাধীনতা ও পাকিস্তান (অজানা তথ্য) – শশাঙ্ক এস ব্যানার্জী – অপরাজিতা সাহিত্য ভবন – ৪০০ টাকা
• বঙ্গবন্ধু ও তাজউদ্দীন – আমির হোসেন – অ্যাডর্ণ পাবলিকেশন – ১৫০ টাকা
• সত্ত্বায় বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ – আলমগীর সাত্তার – সাহিত্য প্রকাশ – ১২০ টাকা
• একাত্তরে বন্দী মুজিব পাকিস্তানের মৃত্যুযন্ত্রনা – অধ্যাপক আবু সাইয়ীদ – সূচীপত্র – ২৯৫ টাকা
• বাংলাদেশের আরেক নাম বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব – আতিউর রহমান – সাহিত্য প্রকাশ – ১২৫ টাকা
• বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ও তার পরিবার – বেবী মওদুদ – অনিন্দ্য প্রকাশ – ১২০ টাকা
• বাংলাদেশ জাতীয় সংসদে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান – শেখ হাসিনা ও বেবী মওদুদ সম্পাদিত – আগামী প্রকাশনী – ৬০ টাকা
• বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের সম্মোহনী নেতৃত্ব ও স্বাধীনতা সংগ্রাম – ডঃ জিল্লুর রহমান খান – মাওলা ব্রাদার্স – ৫২৫ টাকা
• জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর নির্বাচিত ভাষণ(চতুর্থ খন্ড) – সম্পাদনায় ডঃ এ এইচ খান – বাংলাদেশ কালচারাল ফোরাম – ৩৫০ টাকা
• মুজিবুরের রচনা সংগ্রহ – শেখ মুজিবুর রহমান – বাংলাদেশ কালচারাল ফোরাম – ২৬০ টাকা
• বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও বঙ্গবন্ধু – খালেক বিন জয়েনউদ্দিন – বর্ণায়ন – ২০০ টাকা
• মার্কিন দলিলে মুজিব হত্যাকান্ড – মিজানুর রহমান খান – প্রথমা প্রকাশন – ৬০০ টাকা
• From Rebel to Founding Father : Sheikh Mujibur Rahman – সৈয়দ বদরুল আহসান – নিয়োগী বুকস – ১১৯০ টাকা

বইগুলো পাওয়া যাবে স্ব স্ব প্রকাশনী ও বিভিন্ন স্বনামধন্য বইয়ের দোকানে। এছাড়াও সবগুলো বই পাওয়া যাবে পাঠক সমাবেশ কেন্দ্রে। উপরোক্ত বইগুলো ছাড়াও আপনাদের পছন্দের অন্যান্য বইগুলো তো রয়েছেই।

Leave a comment

ফেসবুকে আমরা

সর্বশেষ সংবাদ

উপরে