২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার বিচার আবার শুরু

প্রকাশিত: ২৫-০৪-২০১৭, সময়: ১৫:৪৪ |
Share This

মুফতি হান্নানের মৃত্যুদণ্ডকে ঘিরে প্রায় দেড় মাস ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার সাক্ষ্য গ্রহণ কার্যক্রম বন্ধ থাকার পর আবার সাক্ষ্য গ্রহণ শুরু করেছে ট্রাইব্যুনাল।

মঙ্গলবার মামলাটির তদন্ত কর্মকর্র্তা সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার আব্দুল কাহার আকন্দকে জেরা করেন আসামি সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবরের আইনজীবী।

এদিন এ আসামির পক্ষে জেরা শেষ না হওয়া বুধবার পর্যন্ত সাক্ষ্য গ্রহণ মুলতবি করেন বিচারক। মঙ্গবার বেলা সাড়ে ১১ টা থেকে বেলা দেড়টা পর্যন্ত সাক্ষ্য গ্রহণ কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয়।

এ মামলার প্রধান অভিযুক্ত মুফতি হান্নান ও অপর অভিযুক্ত শরিফ শাহেদুল ইসলাম বিপুলের ব্রিটিশ হাই কমিশনার আনোয়ার চৌধুরীর উপর হামলার মামলায় চলতি বছর ১৯ মার্চ রায় পুনর্বিচেনার আদেশে বহাল রাখার পর এই মামলার বিচার বন্ধ হয়ে যায়। কারণ ওই রায়ের পর মুফতি হান্নানসহ ওই দুই আসামিকে কারাকর্তৃপক্ষ আদালতে হাজির না করায় সাক্ষ্য গ্রহণ করতে পারেনি ট্রাইব্যুনাল। সম্প্রতি তাদের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হয়। ফলে মঙ্গলবার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হওয়ায় বিষয়ে ট্রাইব্যুনালে প্রতিবেদন দাখিল হওয়ায় আবার সাক্ষ্য গ্রহণ কার্যক্রম শুরু হয়।

মামলাটিতে আসামি খালেদা জিয়ার ভাগ্নে লে. কমান্ডার (অব.) সাইফুল ইসলাম ডিউক, সাবেক আইজিপি মো. আশরাফুল হুদা, শহিদুল হক ও খোদা বক্স চৌধুরী এবং মামলাটির তিন তদন্ত কর্মকর্তা সাবেক বিশেষ পুলিশ সুপার রুহুল আমিন, সিআইডির সিনিয়র এএসপি মুন্সি আতিকুর রহমান, এএসপি আব্দুর রশীদ ও সাবেক ওয়ার্ড কমিশনার আরিফুল ইসলাম জামিনে রয়েছেন।

অন্যদিকে সাবেক স্বরাষ্ট্রপ্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর, সাবেক উপমন্ত্রী আব্দুস সালাম পিন্টুসহ ২২ জন কারাগারে রয়েছে। মামলার আসামি জামায়াত নেতা আলী আহসান মুহাম্মাদ মুজাহিদের মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হয়েছে।

২০০৪ সালের ২১ আগস্ট আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে জনসভায় গ্রেনেড হামলায় আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা ও প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমানের স্ত্রী আইভি রহমানসহ ২৪ জনের মৃত্যু হয়। গ্রেনেডের স্প্লিন্টারের আঘাতে আহত হন কয়েকশ। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে গেলেও শ্রবণশক্তি হারান।

Leave a comment

ফেসবুকে আমরা

সর্বশেষ সংবাদ

উপরে