‘৭০ হাজার কিন্ডারগার্টেন সরকারের নজরদারির বাইরে’

প্রকাশিত: ০৩-০৩-২০১৭, সময়: ০৬:৪৫ |
খবর > জাতীয়
Share This

সরকারের নজরদারির বাইরে অন্তত ৭০ হাজার কিন্ডারগার্টেন। অবকাঠামো সংকট, যোগ্য শিক্ষকের অভাবসহ নানা সমস্যায় আক্রান্ত এসব স্কুল। সারাদেশে ৫৫৯টি টাস্কফোর্স গঠন করেও তথ্য পাচ্ছে না প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। সংকট কাটিয়ে উঠতে এবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের দ্বারস্থ হয়েছে তারা।

ভাঙা ব্ল্যাকবোর্ড, হাতে গোনা কটি বেঞ্চই এই শ্রেণিকক্ষ। নির্মাণাধীন ভবনেই চলছে এই কিন্ডারগার্টেন।

আর এভাবেই সারা দেশে চলছে হাজারো স্কুল। বগুড়ার জলেশ্বরীতলায় এক বর্গ কিলোমিটার এলাকায় এর সংখ্যা ত্রিশ।

যাত্রা শুরু ৩৬ বছর পরও দেশে কিন্ডারগার্টেনের সংখ্যা কত বলতে পারছে না মন্ত্রণালয়, অধিদপ্তর বা এসোসিয়েশন। তবে ধারণা করা হচ্ছে এ সংখ্যা প্রায় ৭০ হাজার।

অনেক স্কুলে খেলার মাঠ নেই। ওড়েনা জাতীয় পতাকা। ভর্তি ফি, বেতন নেয়া হয় ইচ্ছে মতো। সেশন ফির নামে আদায় হয় বাড়তি টাকা। বেশিরভাগ শিক্ষকেরই নেই পর্যাপ্ত প্রশিক্ষণ ও যোগ্যতা।

কিন্ডারগার্টেন নিয়ন্ত্রণে ২০১১ সালে বিধিমালা জারি করে সরকার। তবে ছয় বছরে নিবন্ধিত হয়েছে মাত্র ১৪ হাজার স্কুল।

এ অবস্থায় ২০১৬-র আগস্টে বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের নিয়ে সারা দেশে ৫৫৯টি টাস্কফোর্স গঠন করে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। তাতেও সাড়া না মেলায় তথ্য পেতে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সহায়তা চেয়ে চিঠি দেয় তারা। তাতেও হয়নি কাজ।

সম্প্রতি জঙ্গি সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে রাজধানীর লাইফ স্কুলসহ পিস স্কুলের বেশকিছু ক্যাম্পাস বন্ধ করে দিয়েছে সরকার। শিক্ষাবিদেরা বলছেন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করা না গেলে এসব স্কুলে বপন হতে পারে ভিন্ন মতাদর্শের বীজ।

শিক্ষাবিদ ফ্রেডরিক ফ্রোয়েবলের হাত ধরে ১৮৩৭ সালে জার্মানীতে কিন্ডারগার্টেন স্কুলের যাত্রা শুরু হয় যা বাংলাদেশে শুরু হয় ১৯৮১ সালে। ৩৬ বছর ধরে লাগামহীনভাবে চলা হাজার হাজার স্কুলকে নিয়ন্ত্রণে এনে সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা করতে পারলে প্রাথমিক শিক্ষা আরও শক্তিশালী হবে।

Leave a comment

উপরে