বাংলাদেশ কি পারবে টুর্নামেন্টে টিকে থাকতে

প্রকাশিত: ২৯-১০-২০২১, সময়: ০২:৫৪ |
Share This

ডেস্ক রিপোর্ট : বাংলাদেশ কি পারবে টুর্ণামেন্টে টিকে থাকতে। বর্তমানে হতাশার মধ্যে রয়েছে টাইগাররা। ক্রিকেটপ্রেমীদের প্রত্যাশা পূরণ করতে পারিনি টাইগাররা। এর ব্যর্থতার দায়দায়িত্ব কার এ প্রশ্ন এখন সর্বসাধারণের।টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বাছাই পর্বে নিজেদের প্রথম খেলায় স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে হেরে দুশ্চিন্তায় পড়ে যায় বাংলাদেশ। এরপর টানা দুই ম্যাচে ওমান ও পাপুয়া নিউগিনিকে হারিয়ে চূড়ান্ত পর্বের টিকিট নিশ্চিত করে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের নেতৃত্বাধীন দলটি।বাছাই পর্বের শেষ দুই ম্যাচে টানা জয়ে মূলপর্বে উঠে টাইগারদের প্রত্যাশা ছিল জয়ের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখা। কিন্তু তারা সেটি করতে পারেনি।বাছাইপর্ব থেকে ওঠা শ্রীলংকার বিপক্ষে পরাজয় দিয়েই বিশ্বকাপের মূলপর্বের লড়াই শুরু হয় টাইগারদের। চূড়ান্ত পর্বে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে ইংল্যান্ডের কাছে পাত্তাই পায়নি মাহমুদউল্লাহ রিয়াদরা।শুক্রবার বাংলাদেশ খেলবে ওয়স্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে। বিশ্বকাপের দুইবারের চ্যাম্পিয়ন এ দলটি চলতি বিশ্বকাপে নিজেদের দুই ম্যাচেই হেরেছে। টুর্নামেন্টে টিকে থাকতে হলে ক্রিস গেইলদের বাংলাদেশ, শ্রীলংকা ও অস্ট্রেলিয়াকে হারাতেই হবে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের পর বাংলাদেশ খেলবে দক্ষিণ আফ্রিকা ও অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে। বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে যেতে হলে এই তিন দলের বিপক্ষে টানা জয় পেতে হবে টাইগারদের।শ্রীলংকা ও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টানা পরাজয়ের কারণে সামনের তিন ম্যাচে উইন্ডিজ, দক্ষিণ আফ্রিকা ও অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টাইগাদের জয়ের সম্ভাবনা ক্ষীণ। বলছেন জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আশরাফুল। তিনি বলেন, অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে, এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে আর একটি ম্যাচও আমরা জিতব না, দলের অবস্থা ভালো না। মানসিকভাবে ভয়ংকর অবস্থায় আছে। প্রথম দিন থেকেই দলের খেলোয়াড়রা মানসিক চাপ অনুভব করছে।জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক খালেদ মাসুদ পাইলট বলেন, এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাংলাদেশের কোনো ম্যাচ জেতার বাস্তবসম্মত সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। গ্রুপের প্রতিটি দলই আমাদের চেয়ে অনেক এগিয়ে। অন্যদের চেয়ে এভাবে এতটা পিছিয়ে থাকার দায় আমি শুধু খেলোয়াড়দের দেব না। এটা আমাদের অবকাঠামো আর ম্যানেজমেন্টেরই সমস্যা। বাংলাদেশ দলের প্রথম ওয়ানডে অধিনায়ক গাজী আশরাফ হোসেন লিপু বলেন, আমার ব্যক্তিগতভাবে মনে হয়, এ টুর্নামেন্টে বাংলাদেশ সেমিফাইনালের যে স্বপ্ন নিয়ে সুপার টুয়েলভ শুরু করেছিল, সেটা প্রায় ধূলিসাৎ হয়ে গেছে। পরিস্থিতিটাই এমন, বাংলাদেশ এখন বিচ্ছিন্ন কিছু জয়ের কথা ভাবতে পারে। ব্যক্তিগতভাবে কিছু অর্জনের কথা চিন্তা করতে পারে।

উপরে