আশাশুনিতে আম্পানে ক্ষতিগ্রস্থ রাস্তা সংস্কারের কাজ উদ্বোধন করলেন ইউএনও

আশাশুনি প্রতিনিধি : আশাশুনির হাসখালীতে ইউএনও আম্পানে ক্ষতিগ্রস্থ রাস্তা সংস্কারের কাজ উদ্বোধন করেছেন। রোববার সকালে উপজেলা সদরের হাসখালী জাতিসংঘের কৃষি ও খাদ্য সংস্থার অর্থায়নে কাজের বিনিময়ে অর্থ প্রকল্পের আওতায় বাংলাদেশ সরকারের কৃষি, মৎস্য ও প্রানী সম্পদ দপ্তরের বাস্তবায়নে এবং সুশিলনের সহযোগীতায় কাজের উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মীর আলিফ রেজা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সোহাগ খান, সদর ইউপি চেয়ারম্যান সম সেলিম রেজা মিলন, এফএও প্রতিনিধি উত্তম কুমার মজুমদার, জিএম মনিরুজ্জামান, পিএম কাজী তোবারক হোসেন মামুন, এফএস এন্ড এমএ সাবিনা ইয়াসমিনসহ গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। প্রধান অতিথি বাসুদেবের বাড়ী হতে সঞ্জিব বৈরাগী মৎস্য ঘেরের মাথা পর্যন্ত ৬২০ ফুট রাস্তা মাটির কাজ উদ্বোধন করেন। ১০ দিন ব্যাপী মাথাপিচু নগদ বিকাশের মাধ্যমে ৩,০৫৬ টাকা চুক্তিতে ৩৮জন মহিলা ও ৮৭ জন পুরুষ উপকারভোগী শ্রমিক কাজ করছেন। উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথি শ্রমিকদের সুশিলন কর্তৃক সরবরাহকৃত মাস্ক ও ক্যাপ বিতরণ করেন।

আশাশুনির শ্রীউলায় ভূ-গর্ভের বালু উত্তোলনের মহাৎসব যেন থামছে না, এলাবাসী মহা ঝুকিতে

আশাশুনি প্রতিনিধি : আশাশুনির শ্রীউলা ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে অবৈধ ভাবে ভূ-গর্ভস্থ বালি উত্তোলন যেন থামছেই না। সরকারি নির্দেশকে বৃদ্ধাঙ্গলি দেখিয়ে প্রশাসনের কর্তা ব্যক্তিদের চোখ ফাকি দিয়ে প্রকাশ্যে বালি উত্তোলনের ঘটনায় এলাকার মানুষের হতবাক করে তুলেছে। জমি ওয়ালাকে যত সমান্য অর্থের বিনিময়ে ম্যানেজ করে ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে প্রতিদিন ড্রেজার মেশিনের সাহার্যে গ্রামের মধ্যে, লোকালয়ে ও পুকুর খানা-খন্দক থেকে ভূ-গর্ভস্ত লক্ষ লক্ষ ফুট বালু উত্তোলন করে বাড়ি ভলাট, পুকুর ভরাট, দোকান ভরাট, রাস্তার কাজে ব্যবহারের জন্য উচ্চ মূল্যে বিক্রয় করে থাকে। কাজকে সহজ করতে একটি প্রভাবশালী পক্ষকে মাসোহারা দিয়ে কাজকে নিরাপদ রাখার ব্যবস্থা করা হয় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। অবৈধ ভাবে পূর্বানুমতি নিয়ে সরকারি নিয়মনীতিকে তুয়াক্কা না করে বালু উত্তোলন করা হলেও সম্প্রতি নাছিমাদ গ্রামের মৃত. ছমেদ আলি ফকিরের পুত্র প্রতিবন্ধী শাহাজাহান ও মাওঃ শামছুর রহমানের পুত্র প্রতিবন্ধী হাবিবুর রহমান ইটের ভাটার কাজে বাইরে থাকার সুযোগে তাদের জমি থেকে জোর পূর্বক বালি উত্তোলন করে বিক্রয় করে দিয়েছে। অবৈধ বালু ব্যবসার সাথে জড়িত হিজলিয়া গ্রামের আব্দুল হামিদ সানার পুত্র ওমর ফারুক, নাছিমাবাদ গ্রামের আরশাদ গাজীর পুত্র আব্দুর রাজ্জাক ও মৃত. ধুনাই গাজীর পুত্র আব্দুল গফফার। তারা তাদের নাছিমাবাদ মৌজায় ১৬৫ নং খতিযানে ৩১৪, ৩১৫ ও ৩১৬ দাগে এক একর জমির সমতল ভূমির ভ’-গর্ভস্ত বালি ড্রেজার মেশিন দিয়ে উত্তোলন করে লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি সাধন করেছে। এব্যাপারে প্রতিবন্ধীরা জেলা প্রশাসক সাতক্ষীরা বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন।
শ্রীউলা ইউনিয়নে দীর্ঘ ৬ মাস যাবত উপরোক্ত ৩ জনসহ হিজলীয়া গ্রামের আনার ঢালীর ছেলে ফজলে হক, কলিমাখালী গ্রামের মৃত. নুর আলীর মোড়লের ছেলে শাহাজান, গফ্ফার গাজীর ছেলে সালাউদ্দীন বাবলু, শহিদ মোড়লের ছেলে ফারুক হোসেন, মাহমুদ মিস্ত্রির ছেলে মনিরুল, নূর আলির ছেলে হোসেন, হিজলিয়া গ্রামের সবুর, রাজ্জাক, কওছার মোড়লের ছেলে জাহাঙ্গীর আরো অনেকে লোভ বা লাভের বসবর্তী হয়ে এলাকার বালু উত্তোলনের উৎসব সৃষ্টি করেছেন। দীর্ঘ ৬ মাস শ্রীউলা ইউনিয়নের তারা গ্রামের লোকালয়, বাড়ি ঘরের পাশে, রাস্তার পাশ হতে বালি উত্তোলন করায় এলাকা মহল্লাবাসী মহা ঝুঁকিতে রয়েছেন। দিনের পর দিন ১১/১২ জন অপরাধী কিভাবে প্রকাশ্যে ভূ-গর্ভের বালি উত্তোলন করে রেহাই পেয়ে যাচ্ছে, তা সচেতন মহলের ভাবিয়ে তুলেছে। এব্যপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মীর আলিফ রেজার সাথে সাংবাদিকদের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, কার অনুমতিতে বালু উত্তোলন করছে আমার জানা নাই। যদি এমন কিছু হয়ে থাকে অব্যশই তাদেরকে সনাক্ত করে আইনের আওতায় আনা হবে। শ্রীউলা ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তার কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বালু উত্তোলন করছে আমার জানা নাই। এলাকাবাসী প্রকাশ্যে বালু উত্তোলনের ন্যাক্কার জনক ঘটনা দ্রুততার সাথে তদন্ত পূর্বক আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের জোর দাবি জানিয়েছেন।

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Comments are closed.

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক ও প্রকাশক : ডাঃ আওরঙ্গজেব কামাল
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : ইজ্ঞি: মোঃ হোসেন ভূইয়া।
বার্তা সম্পাদক : জহিরুল ইসলাম লিটন
যুগ্ন-সম্পাদক : শামীম আহম্মেদ

ঢাকা অফিস : জীবন বীমা টাওয়ার,১০ দিলকুশা বানিজ্যিক (১০ তলা) এলাকা,ঢাকা-১০০০
মোবাইলঃ ০১৭১৬-১৮৪৪১১,০১৯৪৪২৩৮৭৩৮

E-mail:dnanewsbd@gmail.com

ওয়েবসাইট নির্মানে: আইটি হাউজ বাংলাদেশ