তেঁতুলিয়ায় অনিয়মের তথ্য চাওয়ায় সাংবাদিকদের হুমকি দিলেন ব্যাংক কর্মকর্তা রোকনুজ্জামান

প্রকাশিত: ০৭-১০-২০২১, সময়: ১৬:৩৩ |
Share This

মুহম্মদ তরিকুল ইসলাম, পঞ্চগড় প্রতিনিধিঃ পঞ্চগড় জেলাধীন তেঁতুলিয়া উপজেলায় প্রান্তিক চাষিদের গমের টাকা বিতরণে অনিয়মের তথ্য চাইতে গেলে উপজেলার তিরনইহাট শাখা’র রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক কর্মককর্তা রোকনুজ্জামান সাংবাদিকদের নানাভাবে হেনস্থা ও হুমকি প্রদান করেছেন। এ ঘটনায় যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে ওই কর্মকর্তার শাস্তি দাবি করে লিখিত আবেদন করেছেন সাংবাদিকরা।
জানা গেছে, বৃহস্পতিবার (৭ অক্টোবর ২০২১) দুপুরে বাংলাদেশ প্রতিদিন ও সংবাদ ভিত্তিক টেলিভিশন চ্যানেল নিউজ ২৪ এর পঞ্চগড় প্রতিনিধি সরকার হায়দার, বাংলাভিশনের পঞ্চগড় প্রতিনিধি মোশারফ হোসেন, ভোরের দর্পন ও দীপ্ত টেলিভিশনের জেলা প্রতিনিধি গোফরান বিপ্লব, আমাদের সময় ও ডেইলি অবজারভার উপজেলা প্রতিনিধি এস কে দোয়েল, সকালের সময়ের তেঁতুলিয়া প্রতিনিধি আতিকুজ্জামান শাকিল ওই ব্যাংকে দুর্নীতি ও অনিয়মের তথ্য চাইতে ম্যানেজার ধীমান রায়ের সাথে কথা বলছিলেন ।
এসময় ব্যাংক কর্মকর্তা রোকনুজ্জামান ম্যানেজারের কক্ষে প্রবেশ করে ইংরেজীতে হু আর ইউ বলে সম্বোধন শুরু করেন। পরে সে নিজেকে ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র নেতা দাবি করে বলেন তথ্য চাওয়ার আপনারা কে? আপনারা তো কার্ড দেখিয়ে সাংবাদিকতা করেন । বেতন পান না। আপনারা এখানে প্রবেশ করার আগে যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিয়েছেন? এক সময় তিনি উত্তেজিত হয়ে টেবিল থাপরিয়ে বলেন আপনারা বাল ছিড়াবেন। তাকে ম্যানেজার বার বার নিবৃত্ত করতে চাইলেও তিনি চিৎকার করতে থাকেন।
ওই সময় সাংবাদিকরা বলেন, আমরা নির্দিষ্ট একটি অভিযোগের ভিত্তিতে তথ্য চাইতে এসেছি। তথ্য না দিলে আমরা তথ্য আইনের তথ্য ফরমে আবেদন করতে পারি। কিন্তু আমাদের সাথে আপনারা বিরুপ ব্যবহার করতে পারেন না। এ কথার প্রতি উত্তরে অনিয়মে সন্দেহান ওই কর্মকর্তা বলেন আপনারা তো ১৫’শ টাকাও বেতন পান না। অনেক সাংবাদিক গ্রাজুয়েটও করেনি। আামি ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ে ৮ বছর সাংবাদিকতা করেছি। আমাকে সাংবাদিকতা শেখাবেন না। একপর্যায়ে তিনি আরও উত্তেজিত হয়ে উঠেন। পরে ব্যাংকের ম্যানেজার তাকে কক্ষ ত্যাগ করতে বললে তিনি কক্ষ ত্যাগ করে অন্যত্র চলে যান।
এ ব্যাপারে বাংলাভিশনের সাংবাদিক মোশারফ হোসেন জানান, ওই কর্মকর্তার আচরণে আমরা হতভম্ব। দীর্ঘ দিনের সাংবাদিকতার জীবনে এরকম আচরণ দেখিনি।
ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে তেতুলিয়া জর্নালিষ্ট ক্লাবসহ সাংবাদিক, সাংস্কৃতিক ও সামাজিক বেশ কয়েকটি সংগঠন। তেতুলিয়া জর্নালিষ্ট ক্লাবসহ উপজেলার বেশ কয়েকটি সংগঠন ওই কর্মকর্তার দ্রত অপসারন সহ বিচারের দাবি জানিয়েছেন।
ম্যানেজার ধীমান রায় জানান, ঘটনাটি অনাকাংখিত এবং দু:খজনক।
এ বিষয়ে রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন তেঁতুলিয়া শাখার ব্যবস্থাপক দিদারুল আলম জানান, বিষয়টি আমি শুনেছি, এটার সত্যতা রয়েছে। তবে আমি ওখান থেকে আসার পর ঘটনাটি ঘটেছে। যা আমার সাথে সংশ্লিষ্টতা নেই বললেন তিনি।
রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক পঞ্চগড় জেলার প্রধান শাখার ব্যবস্থাপক শফিউল হক জানান, মুঠোফোনে ঘটনাটি শুনেছি । আগামী রোববার (১০ অক্টোবর) এ ব্যাপারে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে ।

ফেসবুকে আমরা

সর্বশেষ সংবাদ

উপরে