মোজাম্মেল হকের যাদুর বাক্সে বন্দি বাগমারা র ইউএনওরা

এস এম দুলাল : অস্কার বিজয়ী চিত্রপরিচালক সত্যজিৎ রায়ের সিনেমা হীরক রাজার দেশে গল্পে নিরীহ প্রজাদেরকে যন্ত্র মন্ত্রর ঘরে ঢুকিয়ে মগজ ধোলাই করে যা বলতে বলা হতো তারা ঠিক তাই বলতো। বাগমারা রাজশাহী উপজেলা নির্বাহী দেরও একই অবস্থা মোজাম্মেল হক যা বলেন ইউএনও সাহেবেরাও তাই বলেন তাই করেন। ২০০৬ সালে মোঃ আবুল কালাম সামসুদ্দিন উপজেলা নির্বাহী অফিসার হিসাবে বাগমারাতে যোগদান করেন। যোগদানের পর পীরগঞ্জ টেকনিক্যাল এন্ড বিজনেজ ম্যানেজমেন্ট কলেজের সাবেক সভাপতি মোঃ মোজাম্মেল হক ইউএনও মোঃ আবুল কালাম সামসুদ্দিন কে এমন ভাবে ম্যানেজ করেন যে ইউএনও সাহেব মোঃ মোজাম্মেল হককে ছোট ভাই ও ব্যক্তিগত সহকারী হিসাবে পরিচয় দিতেন এবং মোজাম্মেলের মাধ্যম ছারা কোন কাজ করতেন না,মোজাম্মেদ সবুজ সংকেত দিলেই যে কোন কাজ হতে যেত। ইউএনওর ক্ষমতা বলে মোজাম্মেদ হক ২০০৬ সালে প্রভাব কাটিয়ে ছয়জন শিক্ষক,কর্মচারীর চাকুরী থেকে অন্যায় ভাবে বাদ দিয়েছিলেন পরে আবার টাকায় দফারফা হওয়ায় ইউএনওর মাধ্যমে তিন জনের পদোন্নতি দিয়ে চাকুরী ফিরিয়ে দেন।এই মোজাম্মেল হকের কারনে মোঃ আবুল কালাম সামসুদ্দিনকে প্রধান মন্ত্রীর কার্যালয়ের প্রকল্প পদ থেকে সরিয়ে ডিমোশন দিয়ে পল্লী বিদ্যুৎতে পাঠানো হয়েছে বর্তমানে তিনি পল্লী বিদ্যুৎ খিলক্ষেতে কর্মরত। তার কাছে মোজাম্মেলের সাথে ঘনিষ্ঠতার কথা জানতে চাইলে তিনি স্বীকার করেন। ২২ শে সেপ্টেম্বর ২০১৯ বেলা ১১ টায় বিদায়ী ইউএনও জাকিউল ইসলাম শেষ সময় পর্যন্ত মোঃ মোজাম্মেল হককে ছায়া দিয়ে আগলে রেখেছিলেন। মূলত মোজাম্মেলের কাছে ম্যানেজ হবার কারনে আইনের তোয়াক্কা না করে শিক্ষাগত যোগ্যতার জাল সনদধারী মোজাম্মেলের প্রিয়জন আব্দুল আজিজকে পীরগঞ্জ টেকনিক্যাল এন্ড বিজনেজ ম্যানেজমেন্ট কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষর দ্বায়িত্ব পালনের সুযোগ পান। জয়পুর হাটের আক্কেল পুরে বদলির আগে এই প্রতিবেদক মুঠো ফোনে ইউএনও জাকিউল ইসলামের কাছে একজন জাল সনদধারী কিভাবে পীরগঞ্জ টেকনিক্যাল এন্ড বিজনেজ ম্যানেজমেন্ট কলেজের অধ্যক্ষর দ্বায়িত্ব পালন করে জানতে চাইলে ইউএনও জাকিউল ইসলাম প্রতিবেদককে বলেন পীরগঞ্জ টেকনিক্যাল এন্ড বিজনেজ ম্যানেজমেন্ট কলেজের পাল্টপাল্টি মামলার কথা বলে সুকৌশলে আইন অমান্যর বিষয় এড়িয়ে যান। মোঃ শরিফ আহম্মেদ ইউএনও হিসাবে বাগমারাতে দ্বায়িত্ব নেবার পরে এই প্রতিবেদক পীরগঞ্জ টেকনিক্যাল এন্ড বিজনেজ ম্যানেজমেন্ট কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল আজিজের জাল সনদের বিষয়টি অবগত করলে ইউএনও মোঃ শরিফ আহম্মেদ সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা নেওয়ার উদ্যোগ নেন এবং জাল সনদধারী আব্দুল আজিজকে সরিয়ে দেবার জন্য এবং বলিষ্ঠ কন্ঠে বলেন আমি যতদিন বাগমারাতে থাকবো ততদিন কোন রকম অন্যায় অনিয়ম হতে দিবো না। কিন্তু ইউএনও মোঃ শরিফ আহম্মেদ তার কথা রাখতে পারেনি । খুব অল্প সময়ের মধ্যেই মোজাম্মেল হকের জাদুকরী ম্যানেজ ক্ষমতার কাছে নিজেকে সপে দিয়ে আতœসমর্পণ করেন হয়ে উঠেন মোজাম্মেলের অনুসারী। যেই কলেজ দিয়ে তৎকালীন ইউএনও মোঃ আবুল কালাম সামসুদ্দিনের মাধ্যমে মোঃ মোজাম্মেল হক অনিয়ম দূনীতি ঘুষের জগতে প্রবেশ করে গড়ে তুলেছেন কোটি কোটি টাকার অবৈধ্য সম্পদ।
সেই পীরগঞ্জ টেকনিক্যাল এন্ড বিজনেজ ম্যানেজমেন্ট কলেজের সভাপতি ইউএনও ( পদাধিকার বলে) কর্তৃক মোঃ মোজাম্মেল হককে এ্যাডহক কমিটির শিক্ষানুরাগী সদস্য মনোনীত করেন। এবং মোজাম্মেলের পছন্দের ও জাল সনদধারী অধ্যক্ষ আব্দুল আজিজের লোকদের দিয়ে গঠিত পূর্বের কমিটিই বহাল রাখেন। অথচ কলেজের জমি দাতা ও প্রতিষ্ঠাতা মোঃ আফসার আলী আবেদন করেও কমিটিতে জায়গা পাইনি। ইউএনওর স্বাক্ষরীত ২৭/০৭/২০২০ তারিখের পত্রে বলা হয়েছে এডহক কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক মোঃ আব্দুল আজিজ,প্রভাষক,কম্পিউটার অপারেশন কে তার অতিরিক্ত ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ পীরগঞ্জ টেকনিক্যাল এন্ড বিজনেজ ম্যানেজমেন্ট কলেজ,বাগমারা,রাজশাহী পদ হতে অব্যহতি প্রদান করা হলো এবং অত্র কলেজের ইংরেজি প্রভাষক জনাব মোঃ মোস্তাফিজুর রহমানকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দ্বায়িত্ব প্রদান করা হলো। অথচ মহামান্য হাইকোটে নির্দেশ ও শিক্ষা নীতিমালা অনুযায়ী মোঃ আব্দুর রউফ মন্ডল সিনিয়রকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দ্বায়িত্ব দেবার কথা কিন্তু ইউএনও মহদোয় কোন আইনের তোয়াক্কা না করে সকল নিয়ম ভঙ্গ করে মোঃ মোজাম্মেলের কথা মেনে নিয়ে মোঃ আব্দুর রউফ মন্ডলের চেয়ে আট বছরের জুনিয়র মোঃ মোস্তাফিজুর রহমানকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দ্বায়িত্ব প্রদান করেন। ২৭/০৭/২০২০ তারিখে ইউএনও কার্যালয়ের সভায় মোজাম্মেল হক প্রকাশ্যই বলেন সিনিয়র জুনিয়র বুঝিনা। আব্দুর রউফ মন্ডলকে দ্বায়িত্ব দিলে রক্তের বন্যা বয়ে যাবে। মোস্তাফিজুর রহমানকে দ্বায়িত্ব দিতে হবে। ইউএনও আইন রক্ষা করেননি মোজাম্মেলের কথা রক্ষা করেছেন। মোঃ মোস্তাফিজুর রহমানকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যখের দ্বায়িত্ব দিয়েছেন। এই বিষয়ে ইউএনও মহদোয়ের কাছে মুঠো ফোনে জানতে চাওয়া হলে কোন সুউত্তর দিতে পারেননি। ২০১০ সালের শিক্ষা নীতিমালায় বলা আছে প্রিভিয়াস মাস্টার্স পাশ ব্যক্তি কলেজের প্রভাষক হতে হলে তাকে মাস্টার্সে অবশ্যই ১ম শ্রেণী বধ্যতামূলক। কিন্তু ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান ২০০৯ সলে শান্ত মারিয়াম প্রাইভেট বিশ^বিদ্যালয় থেকে ২.৬৯ জিপিএ নিয়ে মাস্টার্স পাশ করেছেন। আবার মোস্তাফিজুর রহমানের নিবন্ধন রোল চেক করলে অন্য আরো দুজনের নাম পাওয়া যায়। মূল সনদ যাচাই করলে কেঁচো খুজতে সাপ বেড়িয়ে আসবে কোন সন্দেহ নাই। এখানেই শেষ নয় জাল সনদ প্রমাণিত অধ্যক্ষর জি আর মামলা নং-৩৭০/১৭ এর সহযোগি আসামী ছিলেন বর্তমান ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান। এস এম মাহমুদুল হাসান শিক্ষা অফিসার্স বাগমারার কাছে মোঃ মোস্তাফিজুর রহমানের সনদ যাচাইয়ের জন্য দেওয়া হলেও এখনও ফাইল পড়ে আছে। শিক্ষা অফিসার্স এস এম মাহমুদুল হাসান নিয়মিত অফিস করেন না মোবাইলে একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্ঠা করা হলেও তিনি মোবাইল ধরেন না। যদিও মোঃ মোস্তাফিজুর রহমানের সনদ যাচাইয়ের জন্য কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরে আবেদন করা হয়েছে।
ইউএনও কতটা আইন অমান্য করলে ২৭/০৭/২০২০ তারিখে মোঃ মোস্তাফিজুর রহমানকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দ্বায়িত্ব প্রদান করে কমিটি অনুমোদনের জন্য বোর্ডে পাঠান। যা বোর্ডের পরিদর্শক প্রকৌ,মোঃ আবদুল কুদ্দুস সরদার সাক্ষরীত পত্র অনুযায়ী ৩০/০৭/২০২০ তারিখে অনুমোদন পায়। এবিষয়ে বোর্ডে চেয়াম্যানের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর নির্দেশ আছে কোন অনিয়মকে প্রশ্রয় দেওয়া হবে না। লিখিত অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নিবো। ০৫/০৮/২০২০ তারিখে মোঃ আব্দুর রউফ মন্ডল বোর্ডের চেয়ারম্যানের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন। একই তারিখে অভিযোগ করেছেন মহাপরিচালক কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তর। ০৪/০৮/২০২০ তারিখে অভিযোগ করেছেন রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনারের কাছে। ইতি পূর্বেই সু বিচার চেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার্স,রাগমারা আবেদন করেছেন ২৭/০৭/২০২ তারিখে। কোন প্রতিকার না পেয়ে লিগ্যাল নোটিশ পাঠিয়েছেন সংশিষ্ট দপ্তর গুলোতে।

Comments

comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Comments are closed.

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক ও প্রকাশক : ডাঃ আওরঙ্গজেব কামাল
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : ইজ্ঞি: মোঃ হোসেন ভূইয়া।
বার্তা সম্পাদক : জহিরুল ইসলাম লিটন
যুগ্ন-সম্পাদক : শামীম আহম্মেদ

ঢাকা অফিস : জীবন বীমা টাওয়ার,১০ দিলকুশা বানিজ্যিক (১০ তলা) এলাকা,ঢাকা-১০০০
মোবাইলঃ ০১৭১৬-১৮৪৪১১,০১৯৪৪২৩৮৭৩৮

E-mail:dnanewsbd@gmail.com

ওয়েবসাইট নির্মানে: আইটি হাউজ বাংলাদেশ