বিক্রেতারা হতাশ ঈদের আগেও পোশাকের দোকানে ক্রেতা নেই

মো: মনোয়ার হোসেন,যশোর জেলা প্রতিনিধি : কোরবানির ঈদে পোশাক কেনাকাটার ভাবনাটা সবার ভেতর যেন একটু কমই থাকে। যার জন্য এই ঈদের সময়টাতে পোশাকের দোকানে ভিড় তেমন একটা হয় না বললেই চলে। তারপরও ঈদের কয়দিন আগে কমবেশি নতুন পোশাক কেনাকাটার পালা চলে। ফলে অনেকেই ঈদ কাছাকাছি আসলে বাজারমুখী হন। কিন্তু চলমান করোনাভাইরাসের কারণে এবার দৃশ্যপট পুরোপুরি পাল্টে গেছে। নভেল করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে দেশ ও মানুষের অর্থনৈতিক অবস্থার এখন করুণ হাল। যার ছাপ পড়েছে ঈদের বাজারেও। জরুরি নিত্যপণ্য কেনাকাটা বাদে অন্য কোথাও তেমন ভিড় নেই। তবে বাড়ির শিশুদের জন্য অনেকে মার্কেটপাড়া, শপিংমল ও পোশাকের দোকানে কেনাকাটা করছেন। কোরবানির ঈদ ঘনিয়ে আসার আগ মুর্হূতে গত কয়েকদিন ধরে যশোর শহরের বাজারের চিত্র এমনই। বিক্রেতারা বলছেন, অন্যবার ঈদের আগ দিয়ে এমন সময় ভিড় না জমলেও ক্রেতাদের আনাগোনা বাড়ত। এবারও ক্রেতা সমাগম হচ্ছে। কিন্তু সেটা বরাবরের মতন একেবারেই নয়। স্বাভাবিক সময়ে এরকম দিনে ক্রেতাদের উপস্থিতি এরচেয়ে অনেক বেশি থাকে। শহরের মুজিব সড়ক এলাকার দেশিয় ব্রান্ডের পোশাক উৎপাদনকারী ও বিক্রেতা প্রতিষ্ঠান ব্যাপ’র স্বত্বাধিকারী মোহাম্মাদ আজিম খান বলেন, ক্রেতা নেই বললেই চলে। ব্যবসার অবস্থা প্রচন্ড রকমের খারাপ। শুধুমাত্র শিশুদের পোশাক ছাড়া এবারের ঈদে অন্য বয়সী মানুষের পোশাকের কেনাকাটা একদম নেই বললেই চলে। তারপর শিশুদের পোশাকের আইটেম যেটুকু বিক্রি হচ্ছে। সেটির পরিমাণও খুব অল্পবিস্তর।
শহর ঘুরে দেখা গেছে, পোশাকের দোকানে ক্রেতা সমাগম অনেক কম। বিক্রেতাদের সাথে আলাপ করে জানা গেছে, শিশু ও অল্প বয়সী ছেলেমেয়েদের ছাড়া অন্যদের পোশাকের বেচাকেনা একদম নেই বললেই চলে। কালেক্টরেট মার্কেটের এক্সপো ফ্যাশানের বিক্রয়কর্মী তুহিন মালিক জানান, শিশু কিশোরদের পোশাক মোটামুটি বিক্রি হলেও অন্য বয়সীদের পোশাক বিক্রি নেই বললেই চলে। গতকাল সোমবার কালেক্টরেট মার্কেটে মেয়েকে সঙ্গে নিয়ে পোশাক কিনতে আসেন রোকেয়া খাতুন নামে এক নারী। তিনি জানান, বাড়ির অন্য সদস্যদের জন্য এবার কোন পোশাক কেনেননি। কিন্তু বাড়ির ছোটদের জন্য পোশাক না কিনলেই নয়। তাই মেয়েকে সাথে নিয়ে তার জন্য পোশাক কিনতে এসেছেন। শহরের রঙ ফ্যাশন ব্যাংকের ব্যবস্থাপক শেখ মাসুদ আহমেদ জানান, বিদেশি পণ্যের সংগ্রহ কম থাকায় তাদের ব্যবসায় এবার মন্দাভাব। তিনি বলেন, অন্যবারের মতন ক্রেতা সমাগম নেই বললেই চলে। তবে শিশুদের জন্য অনেকে পোশাক কিনতে আসছেন। কিন্তু স্বাস্থ্য ঝুঁকির বিবেচনায় অনেকে বাচ্চাদের সঙ্গে করে আনছেন না। বাড়ি থেকে মাপ নিয়ে এসে পোশাক কিনে নিয়ে যাচ্ছেন।

Comments

comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Comments are closed.

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক ও প্রকাশক : ডাঃ আওরঙ্গজেব কামাল
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : ইজ্ঞি: মোঃ হোসেন ভূইয়া।
বার্তা সম্পাদক : জহিরুল ইসলাম লিটন
যুগ্ন-সম্পাদক : শামীম আহম্মেদ

ঢাকা অফিস : জীবন বীমা টাওয়ার,১০ দিলকুশা বানিজ্যিক (১০ তলা) এলাকা,ঢাকা-১০০০
মোবাইলঃ ০১৭১৬-১৮৪৪১১,০১৯৪৪২৩৮৭৩৮

E-mail:dnanewsbd@gmail.com

ওয়েবসাইট নির্মানে: আইটি হাউজ বাংলাদেশ