নোয়াখালীতে করোনায়একদিনেশনাক্ত ৭৭,মোট আক্রান্ত ১৯০৫,মৃত্যু-৪২

মোস্তফা মহসিন,(নোয়াখালী) : নোয়াখালীতে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। গত ২৪ ঘন্টায় ৩৪০টি নমুনা পরীক্ষার ফলাফলে নতুন করে আরও ৭৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।এ পর্যন্ত জেলায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১৯০৫জন। এ জেলায় মারা গেছে এ পর্যন্ত ৪২জন। নতুন আক্রান্তের মধ্যে জেলার বেগমগঞ্জে ১৬জন,সদরে ১৯জন ,কবিরহাটে ১৫জন,কোম্পানীগঞ্জে ১১জন, সুবর্নচরে ০৭জন, চাটখিল ০৩,সেনবাগে ০৫জন ও সোনাইমুড়িতে০১ জন । এনিয়ে জেলায় এ পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১৯০৫ জন। এ জেলায় মারা গেছে এ পর্যন্ত ৪২ জন, যার মধ্যে বেগমগঞ্জে মারা গেছে ২১ জন,সেনবাগে ৬জন, সদরে ৬জন, সোনাইমুড়িতে ০৩জন,চাটখিলে ০২জন,সুবর্নচরে ০১জন, কোম্পানীগঞ্জে ০১জন ও কবিরহাট উপজেলায় ০২জন। গত ২৪ ঘন্টায় ৬৫জনসহ এ পর্যন্ত ৮১৩জন সুস্থ হয়ে বাড়ী ফিরে গেছেন। আক্রান্তদের মধ্যে পুলিশ, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী,ব্যাবসায়ীসহ বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ রয়েছে। এদিকে কিট সংকটের কারনে গত রবিবার থেকে নোয়াখালী আবদুল মালেক উকিল মেডিকেল কলেজে করোনা পরীক্ষা কম হচ্ছে এবং ফলাফল পেতে বিলম্ব হচ্ছে।এতে করে নোয়াখালী,লক্ষীপর ও ফেনী জেলা থেকে করোনা উপসগ নিয়ে আসা রোগীরা হয়রানীর শিকার হচ্ছে । নোয়াখালীতে সবচেয়ে বেশী করোনা ঝুঁকিতে রয়েছে জেলার প্রধান বানিজ্য কেন্দ্র চৌমুহনী শহরসহ বেগমগঞ্জ উপজেলা। এ উপজেলায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৬২৪ জন। যার মধ্যে প্রায় ৭৫ শতাংশই চৌমুহনী পৌরসভার বাসিন্দা এবং শনাক্ত হওয়া ব্যাক্তিদের বেশীর ভাগই চৌমুহনী বাজারের ব্যাবসায়ী। বেগমগঞ্জে এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে ২১ জন। স্বাস্থ্যবিধি না মেনে মাস্ক ছাড়াই রাস্তাঘাটে ও হাটবাজারে চলাচল করছে অনেকেই। প্রশাসনের কঠোর অবস্থানের মধ্যেও যানবাহনে স্বাস্থ্যবিধি না মেনে গাদাগাদি করে যাত্রী বহন করা হচ্ছে।প্রধান সড়কের পাশে নিয়মমেনে দোকানপাঠ খোলা ও বন্ধ থাকলেও বাজার গুলোর ভেতরের গলিতে দিনরাত দোকানপাঠ খোলা রেখে বিভিন্ন কৌশলে স্বাস্থ্যবিধি না মেনে ব্যবসা করছে অনেকেই।জেলার গ্রামাঞ্চলের হাটবাজারগুলোতে জনসমাগম বেশী।আজ সকালে জেলা সিভিল সার্জন অফিস ও তথ্য অফিস সৃত্র জানায়, নোয়াখালীতে গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে আরও ৭৭ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এনিয়ে জেলায় ১৯০৫জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। আক্রান্তদের মধ্যে পুলিশ, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী ,জনপ্রতিনিধি ও ব্যাবসায়ীসহ বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ রয়েছে। যার মধ্যে জেলায় মারা গেছে এ পর্যন্ত ৪২ জন। জেলা সিভিল সার্জন অফিস জানায়, শনাক্ত হওয়া প্রায় সবাই জ্বর,সর্দি ও কাশিতে ভুগছিল। নমুনা সংগ্রহ করে নোয়াখালী আবদুল মালেক উকিল মেডিকেল কলেজ ও নোয়াখালী বিঞ্জান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে পাঠানো নমুনার মধ্যে ৩৪০টি নমুনা পরীক্ষার ফলাফলে গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে ৭৭ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। এনিয়ে জেলায় মোট ১৯০৫ জনের করোনা রিপোর্ট পজেটিভ আসে। বেগমগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কর্মকর্তা অশিম কুমার দাশ জানান, নতুন করে ১৬ জনসহ বেগমগঞ্জ উপজেলায় করোনা সংক্রমিত রোগীর সংখ্যা এখন ৬২৪ জন এবং এ পর্যন্ত মারা গেছে ২১জন, যার মধ্যে প্রায় ৭৫ শতাংশই চৌমুহনী পৌরসভার বাসিন্দা এবং শনাক্ত হওয়া ব্যাক্তিদের বেশীর ভাগই চৌমুহনী বাজারের ব্যবসায়ী এবং সরকারি কর্মকর্তা – কর্মচারী ও জনপ্রতিনিধি। অনেকেই প্রশাসনের নিদেশনা ও স্বাস্থ্যবিধি না মানার কারনেই এখানে দিনদিন করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে।এটা খুবই উদ্বেগ ও আতংকের বিষয় বলে উল্লেখ করেন ওই স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ।

Comments

comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Comments are closed.

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক ও প্রকাশক : ডাঃ আওরঙ্গজেব কামাল
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : ইজ্ঞি: মোঃ হোসেন ভূইয়া।
বার্তা সম্পাদক : জহিরুল ইসলাম লিটন
যুগ্ন-সম্পাদক : শামীম আহম্মেদ

ঢাকা অফিস : জীবন বীমা টাওয়ার,১০ দিলকুশা বানিজ্যিক (১০ তলা) এলাকা,ঢাকা-১০০০
মোবাইলঃ ০১৭১৬-১৮৪৪১১,০১৯৪৪২৩৮৭৩৮

E-mail:dnanewsbd@gmail.com

ওয়েবসাইট নির্মানে: আইটি হাউজ বাংলাদেশ