নোয়াখালীতে করোনায় এক দিনে শনাক্ত ৩৬,মোট আক্রান্ত ১৩৭৬,মৃত্যু-৩৬

মোস্তফা মহসিন,(নোয়াখালী) : নোয়াখালীতে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। গত ২৪ ঘন্টায় ১২৯টি নমুনা পরীক্ষার ফলাফলে নতুন করে আরও ৩৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।এপর্যন্ত জেলায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১৩৭৬জন। গত ২৪ঘন্টায় ১জনসহ এ জেলায় মারা গেছে এ পর্যন্ত ৩৬ । বেগমগঞ্জসহ জেলায় করোনা ভাইরাসের সংক্রমন হার বেড়ে যাওয়ায় গত মঙ্গলবার ভোর ৬টা থেকে আগামী ২৩ জুন পর্যন্ত চৌমুহনী শহরসহ বেগমগঞ্জ উপজেলা এবং জেলা শহরসহ সদর উপজেলাকে রেডজোন হিসেবে চিন্থিত করে পুনরায় কঠিন লকঢাউন দেয়া হলেও মানা হচ্ছেনা স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দৃরত্ব বজায় রাখার নিয়ম। নতুন আক্রান্তের মধ্যে জেলার বেগমগঞ্জে ১৫জন,সদরে ৮জন,কোম্পানীগঞ্জে১০জন,কবিরহাটে ০২জন,ও সবনচর উপজেলায় ১ জন। এনিয়ে জেলায় এ পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১৩৭৬ জন।গত ২৪ঘন্টায় ১জনসহ এ জেলায় মারা গেছে এ পর্যন্ত ৩৬ জন,যার মধ্যে বেগমগঞ্জে মারা গেছে ২০ জন,সেনবাগে ৬জন, সদরে ৫জন, সোনাইমুড়িতে ২জন,চাটখিলে ১জন,সুবর্নচরে ১জন, ও কবিরহাট উপজেলায় ১জন। গত ২৪ ঘন্টায় ৩৮জনসহ এ পর্যন্ত ৪০২জন সুস্থ হয়ে বাড়ী ফিরে গেছেন। আক্রান্তদের মধ্যে পুলিশ, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী,ব্যাবসায়ীসহ বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ রয়েছে। জেলার গ্রামাঞ্চলের হাটবাজারগুলোতে জনসমাগম বেশী। নোয়াখালীতে সবচেয়ে বেশী করোনা ঝুঁকিতে রয়েছে জেলার প্রধান বানিজ্য কেন্দ্র চৌমুহনী শহরসহ বেগমগঞ্জ উপজেলা। এ উপজেলায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৫২৭ জন। যার মধ্যে প্রায় ৭৫ শতাংশই চৌমুহনী পৌরসভার বাসিন্দা এবং শনাক্ত হওয়া ব্যাক্তিদের বেশীর ভাগই চৌমুহনী বাজারের ব্যাবসায়ী। বেগমগঞ্জে এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে ২০ জন। পুনরায় কঠিন লকঢাউন ঘোষনা করলেও স্বাস্থ্যবিধি না মেনে মাস্ক ছাড়াই রাস্তাঘাটে ও হাটবাজারে চলাচল করছে অনেকেই। প্রশাসনের কঠোর অবস্থানের মধ্যেও যানবাহনে স্বাস্থ্যবিধি না মেনে গাদাগাদি করে যাত্রী বহন করা হচ্ছে।প্রধান সড়কের পাশে দোকানপাঠ বন্ধ থাকলেও বাজার গুলোর ভেতরের গলিতে দোকানপাঠ খোলা রেখে বিভিন্ন কৌশলে স্বাস্থ্যবিধি না মেনে ব্যবসা করছে অনেকেই। সোমবার সকালে জেলা সিভিল সার্জন অফিস ও তথ্য অফিস সৃত্র জানায়, নোয়াখালীতে গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে আরও ৩৬ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এনিয়ে জেলায় ১৩৭৬ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। আক্রান্তদের মধ্যে পুলিশ, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী ,জনপ্রতিনিধি ও ব্যাবসায়ীসহ বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ রয়েছে। যার মধ্যে জেলায় মারা গেছে এ পর্যন্ত ৩৬ জন। জেলা সিভিল সার্জন কর্মকর্তা ডা. মোমিনুর রহমান জানান, শনাক্ত হওয়া প্রায় সবাই জ্বর,সর্দি ও কাশিতে ভুগছিল। নমুনা সংগ্রহ করে নোয়াখালী আবদুল মালেক উকিল মেডিকেল কলেজ ও নোয়াখালী বিঞ্জান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে পাঠানো নমুনার মধ্যে ১২৯টি নমুনা পরীক্ষার ফলাফলে গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে ৩৬ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয় এনিয়ে জেলায় মোট ১৩৭৬ জনের করোনা রিপোর্ট পজেটিভ আসে। বেগমগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কর্মকর্তা অশিম কুমার দাশ জানান, নতুন করে ১৫জনসহ বেগমগঞ্জ উপজেলায় করোনা সংক্রমিত রোগীর সংখ্যা এখন ৫২৭ জন এবং এ পর্যন্ত মারা গেছে ২০জন, যার মধ্যে প্রায় ৭৫ শতাংশই চৌমুহনী পৌরসভার বাসিন্দা এবং শনাক্ত হওয়া ব্যাক্তিদের বেশীর ভাগই চৌমুহনী বাজারের ব্যবসায়ী এবং সরকারি কর্মকর্তা – কর্মচারী ও জনপ্রতিনিধি।এটা খুবই উদ্বেগ ও আতংকের বিষয় বলে উল্লেখ করেন ওই স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ।

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Comments are closed.

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক ও প্রকাশক : ডাঃ আওরঙ্গজেব কামাল
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : ইজ্ঞি: মোঃ হোসেন ভূইয়া।
বার্তা সম্পাদক : জহিরুল ইসলাম লিটন
যুগ্ন-সম্পাদক : শামীম আহম্মেদ

ঢাকা অফিস : জীবন বীমা টাওয়ার,১০ দিলকুশা বানিজ্যিক (১০ তলা) এলাকা,ঢাকা-১০০০
মোবাইলঃ ০১৭১৬-১৮৪৪১১,০১৯৪৪২৩৮৭৩৮

E-mail:dnanewsbd@gmail.com

ওয়েবসাইট নির্মানে: আইটি হাউজ বাংলাদেশ