আশাশুনির হাজরাখালী নদী ভাঙ্গনে শলিল সমাধি রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন

আহসান হাবিব, আশাশুনি প্রতিনিধি : আশাশুনির হাজরাখালী পাউবো’র বেড়ীবাঁধ ভাঙ্গন পার হতে গিয়ে শলিল সমাধি হওয়া মুক্তিযোদ্ধার লাশ প্রায় ২১ ঘন্টা পর উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল তার লাশ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন করা হয়েছে। নিহত মুক্তিযোদ্ধার পরিবার সূত্রে জানাগেছে, শুক্রবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে উপজেলার শ্রীউলা ইউনিয়নের হাজরাখালী খোলপেটুয়া নদীর চর থেকে মুক্তিযোদ্ধা সামাদ সানা ওরফে পীর আলীর (৬৫) মৃতদেহটি উদ্ধার করা হয়। ওই দিন বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় গার্ড অব অনার শেষে জানাযার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। এরপর মরহুমের পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মীর আলিফ রেজা, থানা নবাগত অফিসার ইনচার্জ গোলাম কবির, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুল হান্নান, ইউপি চেয়ারম্যান আবু হেনা সাকিলসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও মুসল্লীগণ। দাফন শেষে তার পরিবার বর্গের হাতে জেলা প্রশাসকের পক্ষে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মীর আলিফ রেজা সরকারী অনুদান হিসেবে দশ হাজার টাকা পৌছে দেন। তিনি তার পরিবারবর্গকে দুর্যোগকালীন সময়ে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ হতে সব ধরনের সহযোগিতা প্রদানে আশ^াস দেন। প্রসঙ্গতঃ বৃহস্পতিবার সকাল ৯টার দিকে হাজরাখালী গ্রামের সদ্য মুক্তিযোদ্ধাদের যাচাই-বাছাইয়ে তালিকাভুক্ত মুক্তিযোদ্ধা বাজারের উদ্দেশ্যে বাড়ী থেকে বের হন। সম্প্রতি আম্পানের আঘাতে পাউবোর খোলপেটুয়া নদীর বেড়িবাঁধ ভাঙ্গন পার হতে গিয়ে নদীর শ্রোতের তোড়ে ভেসে গিয়ে উধাও হয়ে যায়। সে থেকে তার কোন সন্ধান মেলেনি। অবশেষে পরদিন সকাল সাড়ে ৬টার দিকে পার্শ্ববর্তী নদীর চরে তার সন্ধান মেলে। এখবরে পরিবারের লোকজন নিয়ে এলাকাবাসী মুক্তিযোদ্ধা পীর আলীর লাশ উদ্ধার করে প্রশাসনের কর্তা ব্যক্তিদের খবর দেন। মুক্তিযোদ্ধা পীর আলীর মৃত্যুতে ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড সহ উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের নেতৃবৃন্দ তার রুহের মাগফিরাত কামনা ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন।

আশাশুনিতে মাক্স ও সামাজিক দূরত্ব ছাড়া মালামাল বিক্রয় নিষিদ্ধ

আহসান হাবিব, আশাশুনি প্রতিনিধি : আশাশুনিতে করোনা ভাইরাসের হাত থেকে রক্ষা পেতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে ব্যবসায়ী ও ক্রেতা সাধারণকে সতর্ক করে বিধি নিষেধ জারী করা হয়েছে। জেলা প্রশাসকের পক্ষে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মীর আলিফ রেজার পক্ষ হতে মাইকিং করে সকল ব্যবসায়ীকে নির্দেশ দিয়েছেন যে, মাস্ক ও সামাজিক দূরত্ব ছাড়া কোন ক্রেতার নিকট সকল প্রকার মালামাল বিক্রয় করা নিষিদ্ধ। একই সাথে ক্রেতাদেরকেও মাক্সসহ ঘর থেকে বের হতে এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে। কেউ এ আদেশ অমান্য করলে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে শাস্তি প্রদান করা হবে। তিনি সচেতন জনগণকে মাক্স এর ব্যবহার ও সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে সহযোগিতা করার আহবান জানান। সাথে সাথে ‘মাস্ক ছাড়া বিক্রয়ের প্রমাণ হিসেবে ছবি তুলে প্রেরণ করুন। উক্ত ছবির ভিত্তিতে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হবে। উল্লেখ্য, আপনার বাড়ীর পাশের টেইলরের দোকান থেকে ৩ স্তরের সুতি কাপড় দিয়ে মাস্ক তৈরি করে নিন। অথবা ৩ টি কাপড়ের মাস্ক কিনে নিন। ধুয়ে ধুয়ে অন্যান্য পরিধানের কাপড়ের মত ব্যবহার করুন। অভ্যাস করুন, শারীরিক দূরত্ত্ব বজায় রাখুন, নিরাপদে থাকুন এবং অন্যকে নিরাপদে থাকতে সহযোগিতা করুন।

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Comments are closed.

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক ও প্রকাশক : ডাঃ আওরঙ্গজেব কামাল
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : ইজ্ঞি: মোঃ হোসেন ভূইয়া।
বার্তা সম্পাদক : জহিরুল ইসলাম লিটন
যুগ্ন-সম্পাদক : শামীম আহম্মেদ

ঢাকা অফিস : জীবন বীমা টাওয়ার,১০ দিলকুশা বানিজ্যিক (১০ তলা) এলাকা,ঢাকা-১০০০
মোবাইলঃ ০১৭১৬-১৮৪৪১১,০১৯৪৪২৩৮৭৩৮

E-mail:dnanewsbd@gmail.com

ওয়েবসাইট নির্মানে: আইটি হাউজ বাংলাদেশ