লিজা বিরুদ্ধে নানা বিধ অভিযোগ থানায় মামলা

এস এম দুলাল : এমপি এনামুল হকের তালাক দেয়া দ্বিতীয় স্ত্রী আয়েশা আক্তার লিজার বিরুদ্ধে নানা বিধ অভিযোগ উঠেছে। বর্তমানে আয়েশা আকতার লিজা দেশজুড়ে আলোচনায়। একজন এমপির সঙ্গে অন্তরঙ্গ কিছু ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ করে তিনি নতুন করে আলোচনায় এসেছেন। তবে এবারই প্রথম আলোচনায় এসেছেন এমন নয়। ২০০৮ সালের ৩১ মে পুলিশের হাতে দুই খদ্দেরসহ গ্রেফতার হয়েছিলেন লিজা। নগরীর রামচন্দ্রপুর এলাকার একটি বাড়িতে দেহব্যবসা করতেন লিজা। সেখানে অভিযান চালিয়ে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করেছিল।ওই বছরের ১ জুন আদালত থেকে জামিনে মুক্তি পান লিজা। তাকে জামিন দেয়ায় এলাকায় বিক্ষোভ হয়েছিল। এ ঘটনার পর আর লিজাকে পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। একের পর এক ব্যক্তিকে ফাঁসিয়ে বস্তিতে থাকা লিজা এখন কোটিপতি। স্থানীয়রা জানান, প্রথম হিন্দু এক ছেলেকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে তাকে বিয়ে করেন লিজা। এরপর তার সম্পদ হাতিয়ে আলাদা হয়ে যান। কিছুদিন না যেতেই সিটি কলেজের পাশে এক মাছ ব্যবসায়ীর বিবাহিত ছেলেকে প্রেমের ফাঁদে ফেলেন। বিয়ে করেন বাবুল নামের একজনকে। সেই বাবুল এখন সৌদি আরবে থাকেন। এভাবে গত ১২ বছরে নানাজনকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে ও বিয়ের নাটক করে হাতিয়েছেন কোটি কোটি টাকা। নগরীর তেরখাদিয়া এলাকার সোহেল রানা জানান, সমাজের প্রভাবশালীদের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে লিজা এলাকায় দাদন ব্যবসার প্রসার ঘটিয়েছে। দেহব্যবসা আর দাদনের ব্যবসায় তার সম্পদ ফুলে ফেঁপে উঠেছে। প্রভাবশালীদের সঙ্গে সম্পর্ক থাকায় ভয়ে কেউ তার বিরুদ্ধে কোনো কথা বলে না। সর্বশেষ লিজার প্রতারণা ও ব্লাকমেইলের শিকার হয়েছেন একজন এমপি। এনিয়ে থানায় মামলা হয়েছে। মামলায় বলা হয়েছে, ওই নারী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছবি দিয়ে এমপি এনামুল হকের নামে আপ্রচার শুরু করেছেন। এ কারণে তার বিরুদ্ধে তথ্যপ্রযুক্তি আইনে মামলা হলো। মামলাটি হয় রাজশাহীর বাগমারা থানায়। বাগমারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আতাউর রহমান জানান, বৃহস্পতিবার রাত ১২টার পর এমপি এনামুল হকের পক্ষে তথ্যপ্রযুক্তি আইনে ও চাঁদা দাবির অভিযোগ এনে মামলাটি দায়ের করেছেন তার একান্ত সহকারী আসাদুজ্জামান আসাদ। এতে আসামি করা হয়েছে এনামুল হকের তালাক দেয়া দ্বিতীয় স্ত্রী আয়েশা আক্তার লিজাকে। মামলায় বলা হয়েছে, আয়েশা আক্তার লিজাকে তালাক দেওয়ার পর তিনি এমপি এনামুল হকের কাছে নিজের ব্যাংক লোনের এক কোটি টাকা পরিশোধের জন্য চাঁদা দাবি করেন। চাঁদা না দেয়ায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছবি দিয়ে এমপি এনামুল হকের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালিয়ে তার সুনাম ক্ষুন্ন করেছেন। রাজশাহীর পুলিশ সুপার মো. শহিদুল্লাহ জানান, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একজন এমপির নামের অপপ্রচারের অভিযোগে লিজা নামের এক নারীর নামে মামলা হয়েছে। তারা লিজাকে গ্রেফতারের চেষ্টা করছেন। ইতিমধ্যে মামলাটির তদন্ত শুরু হয়েছে।

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Comments are closed.

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক ও প্রকাশক : ডাঃ আওরঙ্গজেব কামাল
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : ইজ্ঞি: মোঃ হোসেন ভূইয়া।
বার্তা সম্পাদক : জহিরুল ইসলাম লিটন
যুগ্ন-সম্পাদক : শামীম আহম্মেদ

ঢাকা অফিস : জীবন বীমা টাওয়ার,১০ দিলকুশা বানিজ্যিক (১০ তলা) এলাকা,ঢাকা-১০০০
মোবাইলঃ ০১৭১৬-১৮৪৪১১,০১৯৪৪২৩৮৭৩৮

E-mail:dnanewsbd@gmail.com

ওয়েবসাইট নির্মানে: আইটি হাউজ বাংলাদেশ