তেঁতুলিয়ায় ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ

পঞ্চগড় প্রতিনিধিঃ পঞ্চগড় জেলাধীন তেঁতুলিয়া উপজেলায় ওয়ার্ড সদস্যের বিরুদ্ধে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার ৭নং দেবনগড় ইউপি’র ৬নং ওয়ার্ড সদস্য মোজাফফর আলীর বিরুদ্ধে “যার জমি আছে ঘর নাই” আশ্রায়ণ-২ প্রকল্পের ঘর দেওয়া, রুরাল এমপ্লয়মেন্ট এন্ড রোড মেন্টেনেন্স (আরইআরএমপি) লটারীভুক্ত ৪ বছর মেয়াদী রাস্তার কাজ দেওয়া এবং ভালনারেবল গ্রুপ ডেবলোপমেন্ট (ভিজিডি) কার্ড দেওয়ার বিপরীতে টাকা ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ করেন ঐ ওয়ার্ডের ব্রম্মতোল গ্রামের আব্দুস সামাদ পিতা- মৃত শওকত আলী, শান্তিজোত গ্রামের ঝিনাই বেওয়া স্বামী- মৃত শুকুর আলী, হাজেরা খাতুন স্বামী- মৃত শরীফ উদ্দিন, খাটিয়াগছ গ্রামের মালেকা বেগম স্বামী- মুকবুল হোসেন এবং মাঝগ্রামের অলিফা বেওয়া স্বামী- মৃত সহিদুল ইসলাম। গত ইং ২০মে/২০২০ তারিখে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে অভিযোগটি দাখিল করেন তাঁরা।
অভিযোগ সূত্রে, ইউপি সদস্য মোজাফফর তৎকালীন কর্মরত থাকা উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে টাকা ঘুষ দেওয়ার নাম ভাঙ্গিয়ে অসহায়, গরীব অভিযোগকারী ব্যক্তিদের কাছ থেকে সর্বসাকুল্যে ২৮,০০০/- (আঠাশ হাজার) টাকা হাতিয়ে নেন বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে।
অভিযোগকারীনি হাজেরা খাতুন জানান, আগে তিনি পাথর ভাঙ্গা মেশিনে কাজ করতেন। যখন লটারীভুক্ত ৪ বছর মেয়াদী রাস্তার কাজের জন্য লটারী করা হয় তখন লটারীতে হাজেরার নাম উঠেন। অত:পর লটারীতে নাম উঠার পর ইউপি সদস্য মোজাফফর তার বাড়িতে আসেন এবং বলেন যে, ১০ হাজার টাকা দিতে না পারিলে নির্বাহী কর্মকর্তা তার নাম কেটে অন্য নাম ঢুকিয়ে দিবেন। হাজেরা নিরুপায় হয়ে টাকা হাওলাদ করিয়ে দু’দফায় ইউপি সদস্য মোজাফফরকে ১০ হাজার টাকা দেয়। এতে ইউপি সদস্য টাকা হাতিয়ে নেওয়ার পর হাজেরাকে শর্ত দেন যে, টাকা দেওয়ার কথা প্রকাশ না করিতে। টাকা দেওয়ার কথা প্রকাশ করিলে তাকে উক্ত কাজটি দেওয়া হবেনা বলে ভয়ভীতি দেখান।
অন্যদিকে অভিযোগকারী আব্দুস সামাদ জানান, সে একজন গরীব অসহায় তার বসত জমি ছাড়া অন্য কোন জমা-জমি নেই। দিনাতিপাত জীবন-যাপন করেন সামাদ। ইউপি সদস্য মোজাফফর তাকে দু’ঘর বিশিষ্ট এঙ্গেলের ছাউনীযুক্ত আশ্রায়ণ প্রকল্পের ঘর দিবে বলে তার কাছ থেকে ১০ হাজার টাকা নেয়। টাকা হাতিয়ে নেওয়ার পর সামাদকে শর্ত দেন যে, টাকা দেওয়ার কথা প্রকাশ না করিতে। টাকা দেওয়ার কথা প্রকাশ করিলে তাকে উক্ত ঘরটি দেওয়া হবেনা বলে ভয়ভীতি দেখান। এতে অন্যান্য অভিযোগকারীরাও একই কথা জানান।
এলাকাবাসী ও শান্তিজোত গ্রামের মোস্তফা, পিতা- সানাউল্লাহ জানান, ইউপি সদস্য মোজাফফর শুধু অভিযোগকারী ব্যক্তিদেরই নয়, এভাবে আরো অনেক মানুষের কাছ থেকে বিভিন্ন ধরণের কার্ড দেওয়ার কথা বলে টাকা নিয়েছেন। তিনি আরোও জানান যে, কার্ড ধারী ব্যক্তিদের কার্ড বাতিল হয়ে যাবেন এবং যাদেরকে ঘর দেওয়া হয়েছে তাদের ঘর খুলে নিয়ে যাবেন বলে ইউপি সদস্য ভয়ভীতি দেখান। ফলে তার এই অনিয়মের বিরুদ্ধে কেউ মুখ খুলছেন না।
এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য মোজাফফর অস্বীকার করে বলেন যে, এটা সম্পূর্ণ মিথ্যা অভিযোগ, এর কোনো ভিত্তি নেই। আমাকে ফাঁসানোর জন্য কিছু চক্রধারী ব্যক্তি এ ধরণের অভিযোগ আনয়ন করেছেন। যে অভিযোগটি আমার বিরুদ্ধে করা হয়েছে সেটা অনেক আগের কথা, এখন অভিযোগ করে কি লাভ হবে? তাদের কাছে কোন সত্যতা নেই বলে তিনি জানান।
উক্ত বিষয়ে ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মহসিনউল হক জানান, ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে যে অভিযোগটি করা হয়েছে তার কোনো সত্যতা নেই। এটি একটি মিথ্যা অভিযোগ। তিনি আরোও বলেন যে, আমার মেম্বরকে ফাঁসানোর জন্য অভিযোগটি করা হয়েছে।
উল্লেখিত বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহাগ চন্দ্র সাহা জানান, এ ধরণের ঘটনা প্রায় ঘটেই থাকে, ত্রাণের কয়েকটি অভিযোগ আমি পেয়েছি তবে ঘরের অভিযোগ এখনো পায়নি। উক্ত বিষয়টি নিকট আসলে তদন্ত পূর্বক শক্ত প্রমাণাদি সাপেক্ষে ব্যবস্থা নিবেন।

Comments

comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Comments are closed.

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক ও প্রকাশক : ডাঃ আওরঙ্গজেব কামাল
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : ইজ্ঞি: মোঃ হোসেন ভূইয়া।
বার্তা সম্পাদক : জহিরুল ইসলাম লিটন
যুগ্ন-সম্পাদক : শামীম আহম্মেদ

ঢাকা অফিস : জীবন বীমা টাওয়ার,১০ দিলকুশা বানিজ্যিক (১০ তলা) এলাকা,ঢাকা-১০০০
মোবাইলঃ ০১৭১৬-১৮৪৪১১,০১৯৪৪২৩৮৭৩৮

E-mail:dnanewsbd@gmail.com

ওয়েবসাইট নির্মানে: আইটি হাউজ বাংলাদেশ