ইন্দুরকানীতে পর্যাপ্ত পরিমাণ ঘূর্ণিঝড় আশ্রয় কেন্দ্র না থাকায় নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে লক্ষাধিক মানুষ

ইন্দুরকানী (পিরোজপুর) প্রতিনিধি : উপকুলীয় জেলা পিরোজপুরের ইন্দুরকানীতে লক্ষাধিক মানুষ ঘূর্নিঝড় আশ্রয় কেন্দ্রের অভাবে নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছে । এ উপজেলার বাসিন্দাদের জন্য নির্দিষ্ট কোন ঘূর্নিঝড় আশ্রয় কেন্দ্র নাই । তিন দিকে নদী বেষ্টিত এ উপজেলার বাসিন্দারা ঝড় এলেই আতংকে থাকে । নদীর কাছে আশ্রয় নেবার মত কোন বড় ভবন বা ঘূর্নিঝড় আশ্রয় কেন্দ্র না থাকায় ঝড় এলে প্রায়ই দুর্ঘটনা ঘটে থাকে । তবে উপজেলায় স্কুল কাম সেল্টার ঘূর্নিঝড় আশ্রয় কেন্দ্র ১২ টি ৭টি দ্বিতলা ভবন সহ মোট ১৯টি কে আশ্রয় কেন্দ্র হিসেবে প্রস্তুত রাখা হয়েছে । এগুলোতে বিদ্যালয়ের ক্লাস চলে বলে এর চাবি থাকে সংশ্লিষ্ট স্কুলের শিক্ষকদের কাছে । সরেজমিনে গেলে দেখা যায়,নদীর পানি বৃদ্ধি পেলেই চরাঞ্চল ও নদীর আশে পাশের মানুষ আতংকে দিন কাটায় । উপজেলার,টগরা,বালিপড়া, ইন্দুরকানী, ভবানীপুর, কালাইয়া, সাউদখালী, খোলপটুয়া, চাড়াখালী, চরলেশ^রসহ গ্রামগুলুতে পর্যাপ্ত আশ্রয় কেন্দ্র না থাকায় এলাকার মানুষ নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছে। এদের মধ্যে নদী পাশ^বর্তি থাকায় কালাইয়া গ্রামটি সবচেয়ে বেশি ঝুকিপূর্ন সত্বেও এখানে নেই কোন আশ্রায় কেন্দ্র । ইন্দুরকানী উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাডঃ এম মতিউর রহমান জানান, এ উপজেলায় যেভাবে ঘনবসতিপুর্ন তাতে প্রতিটি গ্রামেই কমপক্ষে ১টি ঘুর্নিঝড় আশ্রয় কেন্দ্র প্রয়োজন । উল্লেখ্য, ২০০৭ সালের ১৫ নভেম্বর ঘুর্নিঝড় সিডরে উপজেলার প্রায় শতাধিক লোক মারা গেছে এবং এখনো অনেক লোক নিখোঁজ রয়েছে ।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার হোসাইন মুহাম্মদ আল মুজাহিদ জানান,ঘুর্ণিঝড় আম্ফান কে ঘিরে এই উপজেলায় প্রস্তুতিমুলক সকল কার্যক্রম চলমান আছে । উপকূলিয়ও এলাকার স্কুল কাম-সাইক্লোন সেল্টারকে আশ্রায় কেন্দ্রের জন্য প্রস্তুত রাখা হয়েছে ।

Comments

comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Comments are closed.

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক ও প্রকাশক : ডাঃ আওরঙ্গজেব কামাল
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : ইজ্ঞি: মোঃ হোসেন ভূইয়া।
বার্তা সম্পাদক : জহিরুল ইসলাম লিটন
যুগ্ন-সম্পাদক : শামীম আহম্মেদ

ঢাকা অফিস : জীবন বীমা টাওয়ার,১০ দিলকুশা বানিজ্যিক (১০ তলা) এলাকা,ঢাকা-১০০০
মোবাইলঃ ০১৭১৬-১৮৪৪১১,০১৯৪৪২৩৮৭৩৮

E-mail:dnanewsbd@gmail.com

ওয়েবসাইট নির্মানে: আইটি হাউজ বাংলাদেশ