শেষ মূহুর্তে ইউপি নির্বাচনকে ঘিরে প্রচার-প্রচারণায় মুখরিত

প্রকাশিত: ১৭-০৯-২০২১, সময়: ০৪:০৮ |
Share This

মোঃ রোকনুজ্জামান টিপু,তালা(সাতক্ষীরা)প্রতিনিধি ঃআগামী ২০ সেপ্টেম্বর সাতক্ষীরা তালা উপজেলায় ১১টি ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) নির্বাচন। ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে শেষ মূহুর্তে  প্রার্থীদের প্রতিশ্রæতি আর প্রচার-প্রচারণায় মুখরিত হয়ে উঠেছে। চায়ের দোকান থেকে শুরু করে সকল জায়গাতেই প্রার্থীদের নিয়ে চলছে চুলচেরা বিশ্লেষণ নানা জল্পনা-কল্পনা আর আলোচনা। ভোটের দিন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই বাড়ছে নির্বাচনী উত্তাপ। এগিয়ে চলেছে সকল প্রার্থীদের সমর্থনে প্রচার প্রচারণা। গণসংযোগ ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রার্থীরাও । এসময় তারা নিজ নিজ প্রতিকের লিপলেট বিতারণ ছাড়াও ভোটারদের কাছে ভোট প্রার্থনা করে বিজয়ী হলে ইউনিয়নের উন্নয়নে বিভিন্ন প্রতিশ্রæতি দিচ্ছেন। সুষ্ঠু ভোট নিয়ে দ্বিধা-দন্দে আছেন সাধারণ ভোটাররা। তবে নির্বাচনকে সামনে রেখে সতর্কবস্থায় রয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।
বিভিন্ন এলাকা ঘুরে সাধারন ভোটারদের সাথে কথা বলে জানাযায়, বিগত দিনে যাদের দিয়ে এলাকার উন্নয়ন হয়েছে সুখে -দুখে যাদেরকে সব সময় পাশে পায়েছেন ,আগামীতে যাদের দ্বারা এলাকার উন্নয়ন হবে এমন প্রার্থীকেই ভোট দিয়ে নির্বাচিত করবেন তারা।
খলিলনগর ইউনিয়নের নৌকা প্রতিকের চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রভাষক প্রণব ঘোষ বাবলু বলেন,বিগত চেয়ারম্যানের আমলে খলিলনগর ইউনিয়নে তেমন কোন উন্নয়ন হয়নি।ইউনিয়ন বাসী যে উন্নয়নের স্বপ্ন দেখেছে তা পুরণে ব্যার্থ বর্তমান চেয়ারম্যান। তাই এবার উন্নয়নের প্রতিক নৌকায় ভোট দিয়ে জবাবদিহিতা এবং স্বচ্ছতার পাশাপাশি বর্তমান সরকারের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখার আহবান জানান তিনি।
তালা সদর ইউনিয়নের নৌকা প্রতিকের প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান সরদার জাকির হোসেন জানান,তিনি তার ইউনিয়নে ব্যাপক উন্নয়নের কাজ করেছেন। এই উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে সব সময় কাজ করে যাচ্ছেন তিনি।এই উন্নয়নের ধারা অব্যহত রাখতে জনগন আবারও তাকে ভোট দিয়ে জয়ী করবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী না দেওয়ায় জালালপুর ইউনিয়নের বিএনপি সমার্থীত বর্তমান চেয়ারম্যান এম মফিদুল হক লিটু স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে আনারস প্রতীক নিয়ে প্রতিদন্দীতা করছেন। নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে তিনিই বিজয়ী হবেন, কারণ দুই বার চেয়ারম্যান হিসাবে নিষ্টার সাথে দায়িত্ব পালন করেছেন। আবারো জনগণ তাকে ভোট দিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত করবেন এমনটাই আশা তার।
মাগুরা ইউনিয়নে হাতুড়ি মার্কা প্রতিকের চেয়ারম্যান বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পাটির তালা উপজেলার সাধারণ সম্পাদক হিরণ¥য় মন্ডল বলেন,বর্তমান চেয়ারম্যান ইউনিয়নের উন্নয়নের চেয়ে নিজের উন্নয়ন নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন।তাই সাধারণ ভোটাররা চান পরিবর্তন । সুষ্ঠনির্বাচন হলে তিনি জয়ী হবেন এমনটাই আশা তার।
জালালপুর ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী মোঃ রবিউল ইসলাম মুক্তি ইউনিয়নবাসীর আস্থা-ভালোবাসায় সিক্ত হয়ে জয়ের ব্যপারে শতভাগ আশাবাদব্যক্ত করেন বলেন, চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে জালালপুর ইউনিয়নকে একটি আধুনিক মডেল ইউনিয়ন গঠনে কাজ করে যাবেন। বর্তমান সরকারের উন্নয়ন চোখে পড়লেও জালালপুর ইউনিয়নে দৃশ্যাত কোন উন্নয়ন হয়নি। ইউনিয়নবাসীর জীবনমান উন্নয়ন ও গ্রাম হবে শহর এই প্রত্যয় নিয়ে জনগণের পাশে থেকে ইউনিয়নবাসীর সেবা করে যেতে চান।
তালা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, ১১টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৪৩ প্রার্থী,সাধারণ সদস্য পদে ৪৪৫ এবং সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ১৩৫ জন প্রার্থী নির্বাচনে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছেন। উপজেলায় ১১টি ইউনিয়নে ২ লাখ ৩০ হাজার ৮২৪ জন ভোটার রয়েছে। এর মধ্যে ধানদিয়া ১৭২৩৭ জন, নগরঘাটা ১৫২৫৩ জন, সরুলিয়া ৩০০৫৫ জন, তেঁতুলিয়া ২০৭৫৩জন, তালা সদর ২৬৫৮৩ জন , ইসলামকাটী ১৬৭৩৯ জন, মাগুরা ১৭৩৫৫ জন, খলিষখালি ২১০৯৫ জন ,খেশরা ২২০৬২ জন , জালালপুর ১৯২২১ জন ও খলিলনগর ২৪৪৭১ জন ভোটার সংখ্যা।
তালা উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা রাহুল রায় কালের কণ্ঠকে জানান, আগামী ২০ সেপ্টেম্বর উপজেলার ১১টি ইউনিয়নে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণের জন্য প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।তালা উপজেলায় এই প্রথম ৩ টি ইউনিয়নে ইলেকটোরাল (ইভিএম) এর মাধ্যমে ভোট নেয়া হবে।ইউনিয়ন ৩টি হলো তালা সদর, খলিলনগর ও তেঁতুলিয়া ইউনিয়ন। সে লক্ষে রিটার্নিং অফিসার, প্রিজিাইডিং অফিসার, সহকারি প্রিজাইডিং অফিসার ও পোলিং অফিসারদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে।নির্বাচন সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য করতে প্রতিটি কেন্দ্রে নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করাসহ আনুষঙ্গিক সব ব্যবস্থার করা হবে। নির্বাচনে কোন প্রার্থী আচরণবিধি লঙ্ঘন করলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলেও জানান তিনি।

ফেসবুকে আমরা

সর্বশেষ সংবাদ

উপরে