যশোরে বঙ্গবন্ধু ছাত্র পরিষদ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

যশোর থেকে মীর রাজিবুল হাসান নাজমুল : যশোরে পূর্ব শত্রুতার জেরে দুর্বৃত্তরা বঙ্গবন্ধু ছাত্র পরিষদ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক সাব্বির আহমেদ রাসেলকে (২৩) কুপিয়ে হত্যা এবং তার বড় ভাই আল-আমিনকে (২৬) গুরুতর জখম করেছে প্রতিপক্ষ।বুধবার রাত ১১টার দিকে যশোর সদর উপজেলার আরবপুর ইউনিয়নের বালিয়া ভেকুটিয়া গ্রামের সরদারপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত রাসেল আরববপুর ইউনিয়নের ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বালিয়া ভেকুটিয়া গ্রামের ছালেক মৃধার ছেলে।খুনিদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে শহরে লাশ নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন স্বজন ও স্থানীয়রা।সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ত্রাণ বিতরণ উপলক্ষে বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে বালিয়া ভেকুটিয়া গ্রামের ছালেক মৃধার বাড়ির সামনে রাস্তার ওপর সাব্বির আহমেদ রাসেল ও সংরক্ষিত মহিলা আসনের ইউপি সদস্য চায়না খাতুন গরিব, অসহায় ও দুস্থদের তালিকা প্রস্তুত করছিলেন।একই গ্রামের মৃত রফিকুল ইসলাম ওরফে মঙ্গলের ছেলে সামিরুল ওরফে সামিনুল (২৮) দুই সহযোগীকে নিয়ে দ্রুত গতিতে মোটরসাইকেল চালিয়ে যায়। তাদেরকে থামিয়ে গালিগালাজ করেন রাসেল।এতে মোটরসাইকেল চালক সামিরুল উত্তেজিত হয়ে বিভিন্ন হুমকি দিয়ে যায়। রাত সাড়ে ১০টার দিকে সামিরুল তার সহযোগী পিচ্চি বাবু (২২), সাগর (২২) ও সোহাগ (২৫), জনি (২২), বাঁশবাড়িয়া গ্রামের শান্ত (২২) ও আজাদ (২০) এবং তাদের সহযোগী ১০-১৫ জন দা, ছুরি লোহার রডসহ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে রাসেলের বাড়ির পাশে জনৈক নাসিরের মুদির দোকানে বসা রাসেলের বন্ধুদের মারধর করে।তাদের চিৎকারে রাসেল ও তার বড় ভাই আল আমিন এগিয়ে গেলে মাথা ঘাড়সহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে সামিরুল ও তার সহযোগীরা। এতে সাব্বির আহমেদ রাসেল ঘটনাস্থলেই মারা যান। তার ভাই আল আমিনকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।নিহতের বাবা ছালেক মৃধা জানান, সদর উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক শহীদুজ্জামান শহীদের অনুসারী গ্রামে বিভিন্ন সময় মাদকের ব্যবসা করত। কিন্তু রাসেল বিভিন্ন সময় তাদেরকে বাধা দেয়ায় ক্ষিপ্ত ছিল স্থানীয় সন্ত্রাসী পিচ্চি বাবু, সামিরুল, সোহাগসহ অনেকেই।তারা বুধবার রাতে আমার দুই ছেলেকে কুপিয়ে জখম করে। তাদের উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে নিলে রাসেলকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক। আল আমিন চিকিৎসাধীন রয়েছে। তার অবস্থাও সংকটাপন্ন। আরও জানান, মাদক ব্যবসায় বাধা দেয়ায় পূর্ব শত্রুতার জেরে এ চক্রটি এর আগে ২০১৯ সালের ১২ জুন রাসেলকে হত্যার উদ্দেশে তার বাড়িতে বোমা হামলা চালায়।আরবপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শাহারুল ইসলাম জানান, হামলাকারীরা মাদক ব্যবসায়ী। এ দুর্বৃত্তদের অপকর্ম রুখতে তিনি ১০ দিন আগেও ইউনিয়ন পরিষদের প্যাডে পুলিশ প্রশাসনের কাছে আবেদন করেছেন। সেই দুর্বৃত্তরাই এ হত্যাকাণ্ড ঘটাল।যশোর জেনারেল হাসপাতালে ময়নাতদন্ত শেষে বৃহস্পতিবার দুপুরে রাসেলের মরদেহ তার বাবা সালেক মৃধার কাছে হস্তান্তর করা হয়। এরপর আরবপুর চেয়ারম্যান ও যশোর সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহারুল ইসলামের নেতৃত্বে লাশ নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। বিক্ষোভকারীরা রাসেলের খুনিদের অবিলম্বে আটক ও ফাঁসির দাবি করেন।যশোর কোতোয়ালি থানার ওসি মনিরুজ্জামান জানান, এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে অভ্যন্তরীণ কোন্দলে হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। এ ঘটনায় মামলা হয়নি। যশোর পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সার্কেল ক) গোলাম রব্বানি জানিয়েছেন, রাসেল হত্যাকাণ্ডে কাউকে আটক করা হয়নি। তবে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য দু’জনকে আনা হয়েছে। তদন্তের স্বার্থে তার নাম ঠিকানা পরিচয় জানানো সম্ভব হচ্ছে না।

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Comments are closed.

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক ও প্রকাশক : ডাঃ আওরঙ্গজেব কামাল
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : ইজ্ঞি: মোঃ হোসেন ভূইয়া।
বার্তা সম্পাদক : জহিরুল ইসলাম লিটন
যুগ্ন-সম্পাদক : শামীম আহম্মেদ

ঢাকা অফিস : জীবন বীমা টাওয়ার,১০ দিলকুশা বানিজ্যিক (১০ তলা) এলাকা,ঢাকা-১০০০
মোবাইলঃ ০১৭১৬-১৮৪৪১১,০১৯৪৪২৩৮৭৩৮

E-mail:dnanewsbd@gmail.com

ওয়েবসাইট নির্মানে: আইটি হাউজ বাংলাদেশ