চুয়াডাঙ্গায় স্যামসাং শোরুমে নকল পণ্য বিক্রির অভিযোগে জরিমানা

প্রকাশিত: ১৪-০৯-২০২১, সময়: ১০:০১ |
Share This

চিত্তরঞ্জন সাহা চিতু,চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি, ১৪ সেপ্টেম্নর  চুয়াডাঙ্গার স্যামসং শোরুমের ম্যানেজার ইফতেখার আহমেদকে ৪০হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। কোম্পানীর নাম ভাঙিয়ে শোরুমে নকল পণ্য বিক্রির অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ভ্রাম্যমাণ আদালতে তাকে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক সজল আহমেদ। সেই সাথে জরিমানার ২৫ শতাংশ অর্থাৎ ১০ হাজার টাকা অভিযোগকারিকে বুঝিয়ে দেয়া হয়। চুয়াডাঙ্গার জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকারের কাছ থেকে তিনি ও টাকা বুঝে নেন।জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর সুত্রে জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গার মালিক টাওয়ারে স্যামসাং শোরুমের ম্যানেজার ইফতেখার আহমেদ কিছুদিন আগে ফ্রিজ বিক্রয়ের সময় একজন ক্রেতার কাছে একটি স্যামসাং স্ট্যাবিলাইজারও বিক্রয় করেন। পরে, ক্রেতা সেটি বাসায় সেট করার পর দেখেন কোন কাজ করছে না। গত রোববার ওই ক্রেতা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর চুয়াডাঙ্গা কার্যালয়ে একটি লিখিত অভিযোগ করেন। সোমবার সরেজমিন তদন্ত করেন ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার সহকারী পরিচালক সজল আহমেদ। তদন্তে দেখা যায়,স্যামসাং কোম্পানির নামে যে স্ট্যাবিলাইজারটি বিক্রি করা হচ্ছে সেটা নকল। স্যামসাং এর বাজারজাতকারী ইলেক্ট্রা ইন্টারন্যাশনালের হেড অফ সেলস এন্ড মার্কেটিং এর সাথে কথা বলে বিষয়টি নিশ্চিত হন সজল আহমেদ।

স্যামসাং এর বাজারজাতকারী ইলেক্ট্রা ইন্টারন্যাশনালের হেড অফ সেলস এন্ড মার্কেটিং ভোক্তা অধিকারকে জানায়,বাংলাদেশে স্যামসাং ব্রান্ডের কোন স্ট্যাবিলাইজার তারা বিক্রয় করেন না। পরে, চুয়াডাঙ্গা শোরুমের ম্যানেজার ইফতেখার আহমেদ নিজেও স্বীকার করেন প্রডাক্টটি নকল এবং অনেক বছর ধরে তিনি শোরুমের অথোরাইজড প্রডাক্টের আড়ালে নিজস্ব ব্যবসা হিসেবে ওই নকল স্ট্যাবিলাইজার উচ্চ মুল্যে বিক্রয় করে আসছেন। ওই অপরাধে ম্যানেজার ইফতেখার আহমেদকে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন-২০০৯ অনুযায়ী ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। আইন অনুযায়ী অভিযোগকারীকে জরিমানার ২৫ শতাংশ হিসেবে ১০ হাজার টাকাও তুলে দেওয়া হয়। জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার অভিযোগকারির হাতে ওই টাকা তুলে দেন।

ফেসবুকে আমরা

সর্বশেষ সংবাদ

উপরে