একজনের জন্য হাজার জনের শান্তি নষ্ট হবে এরকম কর্মী আমার দরকার নাই

পিরোজপুর ব্যুরো : মৎস্য ও প্রানীসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম এমপি বলেছেন,একজনের জন্য হাজারজনের শান্তি নষ্ট হবে। একজনের জন্য আমার বদনাম হবে। আমার ভাবমুর্তি যারা ধ্বংস করতে চায় এরকম কর্মী আমার দরকার নাই। আমার নামে ছবি দিবেন আর মাদক ব্যবসা করবেন তা হবেনা। আমি আপনাদের কাছ থেকে মাসোয়ারা চাইনা- চাইবো না, কমিশন চাইবোনা। কোনো ক্যাডার লালনকরে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করবোনা। ইভটিজার সন্ত্রাসীকে আমি প্রশ্রয় দেইনাÑদেবো না। সাধারন মানুষ আমার উপর খুশী থাকলে হবে। অবিচার কর দলের নেতা হিসেবে আমার দায়িত্ব না। এ জন্য কিন্তুু খড়গহস্ত হইনি। এটা আমি কখনো করতেও চাইনা অতীতে কিন্তুু রেকর্ড আছে এমপি হওয়ার পর পর যে ভয়ংকর ঘটনা ঘটিয়েছেন। দলের ভিতরে কেউ কাউকে শত্রু ভাবা ঠিক না। দলের লোকদের তাড়িয়ে দিলে দিন কয়েক পরে আবার ভয়ংকর পরিস্থিতি আসলে তা কাদের নিয়ে মোকাবেলা করবেন? বিএনপি জামাত জোট সরকারের আমলে অনেকে মামলার আসামী হয়েছেন, নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। এমনকি গত ১০ বছরে আওয়ামীলীগের প্রকৃত নেতারা নানা হয়রানীর শিকার হয়েছেন। ধরে নিয়ে থানার মধ্যে পিটানো হয়েছে। তারপর টাকা দিয়ে ছাড়িয়ে আসতে হয়েছে। আমি কাউকে মিথ্যা মামলায় দেইনি। তিনি শনিবার স্বরূপকাঠি কলেজিয়েট একাডেমীর মাঠে অনুষ্ঠিত উপজেলা আওয়ামীলীগ আয়োজিত সম্প্রতি মৃত্যুবরন করা ৫ জন দলীয় নেতার স্মরণসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
শ মরেজাউল করিম বলেন, বালাদেশের মুক্তিযুদ্ধের চেতনার অস্তিত্বের কেন্দ্রীকতা শেখ হাসিনা। দল করলে নিয়ম কানুন মানতে হবে। শেখ মুজিবের নৌকা,শেখ হাসিনার নৌকার প্রতি আস্থা রাখতে হবে। নেতাকে মানিনা,নেত্রীকে মানিনা আর বঙ্গবন্ধু কন্যাকে যদি না মানি তাহলে তো আওয়ামীলীগ করার দরকার নাই। নিজের একটা লীগ খুলে বসা দরকার। তারপর দেখা যাবে আপনার গ্রহনযোগ্যতা। প্রয়াত আব্দুর রাজ্জাক বাকশাল করেছিলেন। শেষের দিকে দেখলেন আর কেউ নাই তারপর আবার তিনি আওয়ামীলীগে ফিরলেন।মিজানুর রহমান চৌধুরীর মত ক্যারিশমেটিক নেতা আওয়ামীলীগ থেকে বের হয়ে দল করেছিলেন শেষে আবার আওয়ামীলীগেই ফিরে এসেছিলেন। এক এগারোর সময় অনেকে সঠিক ভাবে দায়িত্ব পালন করতে পারেননি। শেষ পর্যন্ত আবার শেখ হাসিনার কাছেই ফিরে এসেছেন। সম্প্রতি স্বরূপকাঠি উপজেলার সোহাগদলে ওষূধ ব্যবসায়ী যুবলীগ মো. মামুন মিয়ার হত্যাকান্ড প্রসংঙ্গে তিনি বলেন, হত্যাকারীরা যেই হোক তাদের দ্রæত শনাক্ত করে আইনের আওতায় এনে শাস্তি কার্যকর করা হবে। সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সাবেক এমপি অধ্যক্ষ মো. শাহ আলম। উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মো. আব্দুল হামিদের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি মো. মহিউদ্দিন, অধ্যক্ষ মো. বেলায়েত হোসেন, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান এস এম মুইদুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম সিকদার, শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক কাজী সাইফুদ্দিন তৈমুর, পৌর আওয়ামীলীগের সম্পাদক মো. ফারুক হোসেন, ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ, উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি শশাংক রঞ্জন সমদ্দার, প্রভাষক সাইফুল ইসলাম শাওন, যুবলীগ নেতা শাহ নাসির উদ্দিন, মো. শহিদুল ইসলাম রিপন ও উপজেলা স্বেচ্ছা সেবকলীগের সভাপতি মো. শহিদুল ইসলাম মিন্টু প্রমুখ। শেষে সাম্প্রতিক সময়ে মৃত্যুবরনকারী আওয়ামীলীগের নেতা সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মো. শহিদুল্লাহ মিয়া, সুটিয়াকাঠি ইউনিয়ন সাবেক চেয়ারম্যান গাউস মিয়া তালুকদার, দৈহারী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মো. বেলায়েত হোসেন, উপজেলা যুবলীগ নেতা মো. মামুন মিয়া ও ছাত্রলীগ নেতা জুয়েল হাসান সহ নিহত আওয়ামীলীগের নেতাকর্মিদের রুহের মাগফেরাত কামনায় বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। পরে মন্ত্রী নিহত যুবলীগ নেতা মামুনের বাড়িতে গিয়ে তার কবর জিয়ারত ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Comments are closed.

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক ও প্রকাশক : ডাঃ আওরঙ্গজেব কামাল
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : ইজ্ঞি: মোঃ হোসেন ভূইয়া।
বার্তা সম্পাদক : জহিরুল ইসলাম লিটন
যুগ্ন-সম্পাদক : শামীম আহম্মেদ

ঢাকা অফিস : জীবন বীমা টাওয়ার,১০ দিলকুশা বানিজ্যিক (১০ তলা) এলাকা,ঢাকা-১০০০
মোবাইলঃ ০১৭১৬-১৮৪৪১১,০১৯৪৪২৩৮৭৩৮

E-mail:dnanewsbd@gmail.com

ওয়েবসাইট নির্মানে: আইটি হাউজ বাংলাদেশ