জয়পুরহাটে প্রভাবশালী জাপা নেতা ও ইউপি সদস্য ভাবিকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

চম্পক কুমার, জয়পুরহাট : জয়পুরহাট সদর উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক ও দোগাছী ইউপি সদস্য প্রভাবশালী আবু বায়েজীদ তার ভাবি বিলকিস বানুকে হত্যার অভিযোগে আদালতে মামলা দায়ের হয়েছে। গত ১৮ ফেব্রæয়ারি জয়পুরহাট জেলা বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী-১ আদালতে মৃত বিলকিস বানুর বড় বোন মর্জিনা বেগম বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় জাপা নেতা ও ইউপি সদস্য আবু বায়েজীদ ও তার স্ত্রী ফাতেমাকে আসামী করা হয়েছে। আদালতের বিচারক মোহাম্মদ ইকবাল বাহার মামলাটি আমলে নিয়ে জয়পুরহাট থানায় এজাহার ভুক্ত করার নিদের্শ দিয়েছেন। মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, মৃত বিলকিস বানুর স্বামী অত্যন্ত গরীব হওয়ায় সে অন্যের বাড়িতে ঝিঁয়ের কাজ করে তিন সন্তানকে নিয়ে খুব কষ্টে জীবনযাপন করছিলেন এবং বিলকিস পিতার বাড়ির সম্পত্তি বিক্রয় করে বসত বাড়ির পাশে একখন্ড জমি ক্রয় করেন। ঐ জমি দেবর জাপা নেতা ও ইউপি সদস্য আবু বায়েজীদ ও তার স্ত্রী ফাতেমা গ্রাস করার কু-উদ্দেশ্যে প্রায়ই বিলকিস বানুকে শারীরিক ও মানসিক ভাবে নির্যাতন করে আসছিল। আবু বায়েজীদ প্রভাবশালী হওয়ায় বিলকিসের স্বামীও তাকে কিছু বলতে পারতো না। বিলকিস নিরুপায় হয়ে গত ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯ তারিখে বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলাটি করার পর আবু বায়েজীদ ক্ষিপ্ত হয়ে এ বছরের গত ১০ ফেব্রæয়ারি বিকেলের দিকে বিলকিসের বসতবাড়ির সম্মুখে কলা বাগানে নিয়ে পূর্ব পরিকল্পনামতো বেদম মারপিট করে। এতে বিলকিস অজ্ঞান হলে প্রতিবেশীদের সহযোগিতায় তাকে জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে পরেরদিন ১১ ফেব্রæয়ারি সকালে উন্নত চিকিৎসার জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেল ৫টার দিকে বিলকিস মারা যায় এবং লাশটি তাঁর পরিবার নিয়ে আসে। লাশের শরীরে আঘাতে চিহ্ন দেখে জয়পুরহাট থানা পুলিশকে খবর দেয় ও থানায় লিখিত অভিযোগ করেন এবং পুলিশ বিলকিসের পরিবারকে ভুল বুঝিয়ে লাশের সুরৎ হাল রিপোর্ট তৈরি করেন। ময়না তদন্ত শেষে বিলকিসের মায়ের বাড়িতে কবর দেওয়ার ইচ্ছা অনুয়ায়ী তাকে মায়ের বাড়ি ধামইরহাট নিয়ে যাওয়ার পথে বায়েজীদের নেতৃত্বে অজ্ঞাতনামা ২০/২৫ জন তাদের পথরোধ করে এবং লাশের সঙ্গে থাকা লোকজনদের পিটিয়ে লাশ ছিনতাই করে নিয়ে বায়েজীদের নিজ এলাকায় দাফন সম্পন্ন করেন। পরে থানায় খবর নিয়ে জানা যায় আগের দেওয়া অভিযোগটি মামলা রেকর্ড করা হয়নি। এ ব্যাপারে আবু বায়েজীদ এবং তার লোকজন বাদীনি মর্জিনা বেগমকে মোবাইলে হুমকি দেয় ও মামলা করলে বাদীনির মেয়েকে অপহরন করারও হুমকি দেয়। পরে মৃত বিলকিসের বড় বোন মর্জিনা বেগম বাদী হয়ে জয়পুরহাট আদালতে মামলা দায়ের করেন।মামলার বাদী মর্জিনা বেগম, তার পরিবার ও এলাকাবাসীরা বলেন, প্রভাবশালী বায়েজীদের বিরুদ্ধে বিলকিস নিরাপত্তা চেয়ে গত বছরের ১৬ ডিসেম্বর নিবার্হী ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ১০৭/১১৭ ধারায় মামলা দায়ের করেন। প্রভাবশালী বায়েজীদ সু-কৌশলে বিলকিসকে ভয়ভীতি ও প্রভাবিত করে ২০২০ সালের ৯ ফেব্রæয়ারি মামলাটি প্রত্যাহার করে নেন ও পরের দিন ১০ ফেব্রæয়ারি তাকে মারপিট করে গুরুতর আহত করে এবং ১১ ফেব্রæয়ারি বিলকিস বানু মারা যান। এরপর থানায় অভিযোগ করে বায়েজীদসহ তাদের আসামী করতে বললে পুলিশ আমাদেরকে অসহযোগিতা করেছে। বাধ্য হয়ে আদালতে মামলা করা হয়েছে। মামলার পর থেকে বায়েজীদ ও তার লোকজন আমাদের পরিবারকে নানা রকম ভয়ভীতি ও হুমকি দিয়ে যাচ্ছে এবং নিহত বিলকিসের ছেলেদের প্রভাবশালী বায়েজীদ নানা ভাবে ভয়ভীতি দেখিয়ে আমাদের বিরুদ্ধে তাদের লেলিয়ে পুলিশকে দিয়ে হয়রানি করার চেষ্টা করছে। সুষ্ঠ তদন্ত করে এই হত্যাকারীদের বিচার চান তারা।এ ব্যাপারে জাপা নেতা ও ইউপি সদস্য আবু বায়েজীদকে একাধিক বার মুঠোফোনে তার বক্তব্য নেওয়ার জন্য যোগাযোগ করলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি। পরে গত ২০ ফেব্রæয়ারি প্রতিনিধি সন্ধ্যায় থানাতে মামলার তথ্য নিতে গেলে, থানা চত্ত¡রে তাকে দলবল সহ দেখা যায়। সেখানে তার বক্তব্য নিতে চাইলে তিনি এসব সত্য নয় বলে বক্তব্য না দিয়ে দ্রæত সটকে পড়েন। জয়পুরহাট থানার অফিসার ইনচার্জ শাহরিয়ার খান বলেন, আদালতের এজাহারটি এসেছে কিনা তা দেখতে হবে। অবশ্যই আদালতের নির্দেশ অনুয়ারি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Comments are closed.

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক ও প্রকাশক : ডাঃ আওরঙ্গজেব কামাল
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : ইজ্ঞি: মোঃ হোসেন ভূইয়া।
বার্তা সম্পাদক : জহিরুল ইসলাম লিটন
যুগ্ন-সম্পাদক : শামীম আহম্মেদ

ঢাকা অফিস : জীবন বীমা টাওয়ার,১০ দিলকুশা বানিজ্যিক (১০ তলা) এলাকা,ঢাকা-১০০০
মোবাইলঃ ০১৭১৬-১৮৪৪১১,০১৯৪৪২৩৮৭৩৮

E-mail:dnanewsbd@gmail.com

ওয়েবসাইট নির্মানে: আইটি হাউজ বাংলাদেশ