বরগুনার দুই প্রাইমারী শিক্ষকসহ চার জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা ব্যবস্থা নিতে গড়িমসি

আবুল হাসান বেল্লাল,বিশেষ প্রতিবেদকঃ কোনো সরকারী কর্মচারীর বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা হলে প্রত্যেকের বিরুদ্ধে আইনে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহনের নির্দেশনা থাকলেও তা আমলে নিচ্ছেনা প্রাথমিক শিক্ষা ও বরগুনা ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষ।বহায়ল তবিয়তে রয়েছে সবাই।সরকারী চাকুরীজীবীদের বিরুদ্ধে ফৌজদারী মামলা হওয়ার দীর্ঘ সময় পেরিয়ে গেলেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বিভাগীয় পর্যায়ে কোনো আইনগত ব্যবস্থা না নেয়ায় প্রশ্ন বিদ্ধ হচ্ছে। বরগুনা সদর উপজেলার পাতাকাটা দরবার শরিফ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোঃ আসলাম হোসেন (৫০),তার স্ত্রী বাওয়ালকর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শিউলী আক্তার পপি(৪৫),বরগুনা ফায়ার সার্ভিসের ফায়ারম্যান,সজল কুমার সিং (৩৫) ও আসলামের মেয়ে সামিনা ঐশি(১৫)র বিরুদ্ধে কনফিডেন্স কিন্ডারগার্টেন ও হাই স্কুলের ৯বম শ্রেনীর ছাত্র মোঃ বায়েজিদ ইমরান(১৪) হত্যার ঘটনায় দন্ডবিধি আইনের ৩০২/৩৪ ধারায় বরগুনার বিজ্ঞ চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিট্রেট আদালতে সিআর ৮৭৩/১৯(বর) নং হত্যা মামলা দায়ের করেন ভিকটিম ইমরানের বাবা মোঃ খলিলুর রহমান (৪২)। মামলাটি আমলে নিয়ে ২৪ ঘন্টার মধ্যে এজাহার হিসেবে গন্য করিয়া আদালতকে অবহিত করতে বরগুনা থানার ওসিকে নির্দেশ দেন আদালত।আদালতের আদেশের কপি ০৫/১২/২০১৯ তারিখ ৪৩৫ নং স্মারকে থানায় পাঠানো হলে ওসি বরগুনা থানার মামলা নং ১০, জিআর নং ৩৮৪/১৯ তাং ০৬/১২/২০১৯ দায়ের করা হয়।মামলার বিবরন থেকে জানা যায়,গত ২৮/১০/২০১৯ তারিখ সোমবার ভোর আনুমানিক ৫.০০টার সময় কোরক মোহাম্মাদিয়া জামে মসজিদের মুসুল্লীরা ফজরের নামাজ পড়তে মসজিদে এলে তারা দেখতে পায় যে,ভিকটিম বায়েজিদ ইমরান(১৪) কে ফুল প্যান্টের বেল্ট দ্বারা মৃত অবস্থায় মসজিদের বাড়তি চালের চেড়ার সাথে ঝুলিয়ে রাখা হয়।এরপর স্থানীয়রা পুলিশে খবর দিলে পুলিশ এসে ভিকটিম বায়েজিদ ইমরানের মৃত দেহ উদ্ধার করে পোস্ট মর্টেম এর জন্য বরগুনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। পুলিশ এ বিষয়ে বরগুনা থানায় একটি অপমৃত্যু(ইউডি) মামলা দায়ের করে।ভিকটিম বায়েজিদ ইমারনের বাবা খলিলুর রহমান জানান,আমার একমাত্র ছেলের মৃত্যুতে আমি কাতর ছিলাম।কে আমাকে কি বলেছে কোন কাগজে স্বাক্ষর নিয়েছে তা আমার বুঝে ছিলনা।পরে আমি খোঁজখবর নিয়ে স্বাক্ষীদের মাধ্যমে জানতে পারি,১ ও ২ নং আসামী আসলাম ও শিউলীর মেয়ে ঐসির সাথে আমার ছেলের ভালবাসার সম্পর্ক ছিল।একারনে নাকি আমার ছেলে ইমারনকে আসামী আসলাম,শিউলী ও সজল কুমার সিং ইতিপূর্বে অনেক মারধর করেছিল।আমার ছেলেকে আসলাম,শিউলী, সজল কুমার সিং প্রেমঘটিত কারনে পরিকল্পিত ভাবে অপরিচিত ৪/৫ জন লোক মিলে রাতের আধারে আমার ছেলে বায়েজিদ ইমরানকে খুন করিয়া লাশ মসজিদের বাড়তি টিনে চালের চেড়ার সাথে ঝুলাইয়া রাখছে।এরপর আমি বরগুনা প্রেস ক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলন করি যা বিভিন্ন পত্রিকায় ছাপা হয়।টিভিতেও দেখায়।পরে আমি কোনো উপায় অন্ত না পাইয়া থানায় আমার ছেলে হত্যা মামলা করতে থানায় যাই।থানা মামলা না নেয়ায় আদালতে নালিশি মামলা করলে আদালতের নির্দেশে পরে থানায় মামলা হয়।আসামীরা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এস আই আব্দুর রবের সাথে যোগাযোগ করে মামলা ফাইনাল দেয়ার চেষ্টা করছে।আমি একাধিকবার আব্দুর রব স্যারের সাথে যোগাযোগ করেও কোনো সহযোগীতা পাচ্ছি না।থানায় মামলা হওয়ার পর পরই আসামীরা উচ্চ আদালত থেকে আগাম জামিন নিয়ে বাদী এবং স্বাক্ষীদের হুমকী দিচ্ছেন বলেও অভিযোগ করেন বাদী খলিল।উল্লেখ্য,প্রধান শিক্ষক শিউলী আক্তার পপি নিজের মেয়ের বাবা আসলাম এর নাম পরিবর্তন করে ভিন্ন লিটন নামের এক ব্যক্তিকে পিতা দেখিয়ে সরকারী উপবৃত্তির অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনের নির্দেশে দায়েরকৃত বিভাগীয় মামলায় দন্ড প্রদান করা হয়েছে।মামলাটি পূনবিচারাধীন।এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মামলার আসামী এবং তদন্তকারী কর্মকর্তার কোনো বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।এ বিষয়েে আরও অনুুুুসন্ধান চলছে।বিস্তারিত জানতে চোখ রাখুন ডিটেকটিভ নিউজে।

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Comments are closed.

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক ও প্রকাশক : ডাঃ আওরঙ্গজেব কামাল
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : ইজ্ঞি: মোঃ হোসেন ভূইয়া।
বার্তা সম্পাদক : জহিরুল ইসলাম লিটন
যুগ্ন-সম্পাদক : শামীম আহম্মেদ

ঢাকা অফিস : জীবন বীমা টাওয়ার,১০ দিলকুশা বানিজ্যিক (১০ তলা) এলাকা,ঢাকা-১০০০
মোবাইলঃ ০১৭১৬-১৮৪৪১১,০১৯৪৪২৩৮৭৩৮

E-mail:dnanewsbd@gmail.com

ওয়েবসাইট নির্মানে: আইটি হাউজ বাংলাদেশ