কেশবপুরে শীতের বৈরীতা উপেক্ষা করে চলছে বোরো ধানের চারা রোপন

এম আব্দুল করিম কেশবপুর (যশোর)প্রতিনিধি : যশোরের কেশবপুরে শীতের বৈরীতা উপেক্ষা করে উপজেলা ব্যাপী চলছে ইরি বোরো ধানের চারা রোপনের মহোৎসব। পৌষ-মাঘ মাস বাংলাদেশের ঋতু বৈচিত্রে শীতকাল। কৃষি প্রধান বাংলাদেশের কৃষকের জন্য বোরো ধানের চারা রোপনের গুরুত্বপুর্ণ ও সুবর্ণ সময় এই শীতকাল। তাই প্রচন্ড শৈত্য প্রবাহ ও শীতের কুঁয়াশা ভেদ করে কেশবপুরের কৃষকরা ইরি বোরো ধানের চারা রোপনে ব্যাস্ত সময় পার করছে। শীতের মৌসুম শুরু হওয়ার আগেই শুরু হয়েছে ইরি বোরো ধান চাষের আগাম প্রস্তুতি। কার্ত্তিক অগ্রাহায়ন মাসে কৃষকেরা শুরু করেছে আগাম বীজতলা তৈরীর কাজ। কালবৈশাখীর কবল থেকে নিরাপদে ধান ঘরে তোলার জন্য কৃষকরা আগাম কবীজতলা তৈরী ও ধানের চারা রোপন শুরু করেছে। এই মৌসুমে নীচু জমির পানি না কমায় কেউ কেউ ধান ফেলতে পারিনি তাই অনেকে আবার দুর-দূরান্ত থেকে ধানের চারা এনে জমিতে রোপন করছে। কেশবপুরের প্রত্যন্ত অঞ্চল জুড়ে তাই এখন চলছে ইরি বোরো ধানের চারা রোপনের মহোৎসাব। কেশবপুরে পরপর কয়েক বছর ধরে অতিবৃষ্টি ও কপোতাক্ষের উপচে পড়া পানিতে অধিকাংশ গ্রাম পানি বন্ধী হয়ে পড়ার কারণে নীচু আবাদী জমি পানিতে তলিয়ে থাকার কারণে আমন ধান চাষ করা সম্ভব না হয়নি। কিন্তু এবছর অতিবৃষ্টি ও বন্যা না থাকায় এবার কেশবপুরের কৃষকরা মনের সুখে ইরি বোরো ধান চাষের উপর জোর দিয়েছে। যার ফলে কুয়াশার চাঁদরে ঢাকা হাড় কাঁপানো শীতের বৈরীতা উপেক্ষা করে সকাল থেকে সন্ধ্যা অবধি মাঠের কাদা-জলে ভিজে ধানের চারা রোপনে ব্যাবস্ত সময় পার করছে। এবিষয়ে কেশবপুর উপজেলা কৃষি অফিসার মহাদেব চন্দ্র সানা বলেন কেশবপুরে এবার ১৫ হাজার হেক্টর জমিতে ইরি বোরো ধান চাষের লক্ষ্য মাত্রা ধরা হয়েছে। এবছর অতিবৃষ্টি ও বন্যা না থাকায় লক্ষ্য মাত্রা অর্জনের অধিক সম্ভবনা রয়েছে।

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Comments are closed.

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক ও প্রকাশক : ডাঃ আওরঙ্গজেব কামাল
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : ইজ্ঞি: মোঃ হোসেন ভূইয়া।
বার্তা সম্পাদক : জহিরুল ইসলাম লিটন
যুগ্ন-সম্পাদক : শামীম আহম্মেদ

ঢাকা অফিস : জীবন বীমা টাওয়ার,১০ দিলকুশা বানিজ্যিক (১০ তলা) এলাকা,ঢাকা-১০০০
মোবাইলঃ ০১৭১৬-১৮৪৪১১,০১৯৪৪২৩৮৭৩৮

E-mail:dnanewsbd@gmail.com

ওয়েবসাইট নির্মানে: আইটি হাউজ বাংলাদেশ