খুলনার ডুমুরিয়ায় জমি নিয়ে বিরোধে পাল্টা-পাল্টি হামলায় ১০জন রক্তাক্ত জখম

প্রকাশিত: ০১-০৯-২০২১, সময়: ১৪:০৬ |
Share This

ডুমুরিয়া প্রতিনিধি : খুলনার ডুমুরিয়ায় জমি জবর দখলে বাঁধা দিতে গেলে পাল্টা-পাল্টি হামলায় ১০জন রক্তাক্ত জখম হয়েছে।আহতরা ডুমুরিয়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।গতকাল বুধবার সকালে উপজেলার রঘুনাথপুর ইউনিয়নের মাধবকাটি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।এলাকাবাসি ও আহতদের পরিবার সূত্রে জানা যায়,উপজেলার মাধবকাটি এলাকার ওয়ার্ড আ’লীগের সাধারন সম্পাদক মোসলেম আলী হাওলাদার ক্রয়সূত্রে ৮৮ শতাংশ জমির মালিক হয়ে বিআরএস রেকর্ড সহ ও খাজনা পরিশোধ করিয়া ভোগ দখল করে আসছে।এমতবস্থায় ওই একই জমি স্থানীয় সুনিল মন্ডল গং মালিকানা দাবি করায় তাদের মধ্যে বিরোধের সৃষ্টি হয়।তারই জের ধরে ঘটনার দিন সকালে সুনিল মন্ডল ভাড়াটিয়া সহ ১৫/২০ জনকে সাথে নিয়ে দা,লাঠিসোটা,রড সহ পরিকল্পিত ভাবে ওই জমি জবর দখল করতে যায়।এসময় বাঁধা দিতে গেলে উভয় গ্রæপের মধ্যে পাল্টা-পাল্টি হামলার ঘটনা ঘটে।এতে মোসলেম গ্রæপের লিটন মল্লিক,রাতুল মল্লিক,সাঈদুল ইসলাম রক্তাক্ত জখম এবং জহুরুল মল্লিক ওরফে বিরু’র হাত ভেঙ্গে গুরুতর আহত হয়।অপরদিকে সুনিল মন্ডল গ্রæপের অতনু মন্ডল,ননী গোপাল,বিপ্লব মন্ডল,খোকন মন্ডল,প্রিতিষ মন্ডল ও খোকন ওরফে খোকা মন্ডল জখম হয়।এসময় স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে ডুমুরিয়া হাসপাতাল গেটে পৌঁছালে ভাড়াটিয়াদের মধ্যে সোহেল ও জাহাঙ্গীর নামের দুজন আহত বিরুর উপর আবারও হামলা চালায় বলে প্রত্যক্ষদর্শী ও আহত বিরু জানান।মোসলেম গ্রæপের লিটনের আবস্থা আশংকা জনক বলে কর্তব্যরত ডাক্তার জানান।এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত উভয় গ্রæপের মধ্যে পাল্টা-পাল্টি মামলার প্রস্তÍতি চলছিল।

  • খুলনার ডুমুরিয়ায় বিএনপির প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা ও দোয়া মাহফিল

ডুমুরিয়া প্রতিনিধি : খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলা বিএনপির আয়োজনে দলের ৪৩তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে এক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।এ উপলক্ষে গতকাল বুধবার সকালে দলীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা বিএনপির আহবায়ক মোল্যা মোশাররফ হোসেন মফিজ।উপজেলা বিএনপির ১ম যুগ্ম আহবায়ক শেখ সরোয়ার হোসেনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্যদেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান গাজী আঃ হালিম,চেয়ারম্যান শেখ দিদারুল হোসেন দিদার, মোল্যা কবির হোসেন, জহুরুল ইসলাম আকুঞ্জী, শেখ শাহিনুর রহমান, হাবিবুর রহমান হবি, অরুন কুমার গোলদার, মশিউর রহমান লিটন, শেখ ফরহাদ হোসেন, আমিনুর রহমান মোড়ল, মাষ্টার আমিরুল ইসলাম হালদার ,শেখ আতিয়ার রহমান, জহুরুল হক, শহিদুল ইসলাম মোড়ল, আঃ ছালাম মহলদার, আহম্মদ আলী ফকির, শাহাদাৎ হোসেন, ইকরামুল হোসেন, শেখ মাহাবুবুর রহমান, গোলাম সরোয়ার, দেলোয়ার হোসেন, আইয়ুব মাষ্টার, সেলিম মাষ্টার, অধ্যাপক জি এম আমান উল্লাহ, এ এক এম জাফর, সোহরাফ হোসেন খান, শফিকুল ইসলাম খান, সরদার দৌলত হোসেন, মোনায়েম হোসেন গাজী, শাহেদুজ্জামান বাবু, শহিদুজ্জামান শহিদ , ডাঃ অংসুপতি বৈরাগী, আঃ ছালাম সরদার, মাষ্টার সেলিম হালদার, মাহাবুব আলম, আলমগীর শাহিন, গাজী রফিকুল ইসলাম, খান ওলিয়ার রহমান, সম মমতাজ, আবুল হোসেন সরদার, পারভেজ গাজী, মোঃ দেলোয়ার হোসেন জোদ্দার, রুহোল আমিন, ডাঃ জিয়া, হাফিজ বিশ্বাস, মাহাবুর রহমান, তাজনুর রহমান খান, মাহাবুর রহমান পিকুল, আছাবুর রহমান হবি। রফিকুল ইসলাম রাফি, মাছুদুর রহমান, নূর ইসলাম, ছরোয়ার মোড়ল, আমজাদ হোসেন, বিল্লাল গাজী, রফিকুল ইসলাম, আঃ খালেক, আঃ হাই গাজী, সফিকুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার, সামছুর রহমান, সৌকত মোল্যা, জাহাতাফ গাজী, ইমরান হোসেন, এনামুল হোসেন , তৌফিক হোসেন, গোলাম রসুল, আঃ গফ্ফার, মনিরুল শেখ, রিপন মোড়ল, আইয়ুব মাহমুদ,হাফিজ বাগাতি, আমিনুর রহমান, আবুল কালাম, হাসানুর রহমান, কামরুল হোসেন, ছাদেক বিশ্বাস, শহিদুল ইসলাম, হালিম বাগাতি , মন্টু জোয়াদ্দার, আনিচুর রহমান, হাকিম শেখ, মুজার শেখ, সাহেদ গাজী প্রমুখ।সভায় কেক কাটা শেষে অনুষ্ঠিত মাহফিলে দোয়া পরিচালনা করেন মাওলানা শরিফুল ইসলাম।

ফেসবুকে আমরা

সর্বশেষ সংবাদ

উপরে